Home বইমেলা প্রতিদিন  সাড়ে সাতটায় প্রথম সাইরেন বাজবে! : শামসুজ্জামান খান

 সাড়ে সাতটায় প্রথম সাইরেন বাজবে! : শামসুজ্জামান খান

SHARE

মহাপরিচালক, বাংলা একাডেমি  শুরু হলো বাংলা একাডেমি আয়োজিত অমর একুশে বইমেলা ২০১৬। এবারের বইমেলা বেশ তাৎপর্যপূর্ণ কারণ বাংলা একাডেমি এবার ৬০ বছরে পা দিয়েছে। তাই এবার বইমেলার থিম নির্ধারণ করা হয়েছে বাংলা একাডেমির হীরক জয়ন্তী। বইমেলা নিয়ে আনন্দ আলো বইমেলা প্রতিদিনের সঙ্গে কথা হয় বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খানের সাথে।  আনন্দ আলো: আপনি বলছেন এবারের একুশে বইমেলা অন্যান্য বারের চেয়ে আলাদা ও ভিন্নতর। কেন? শামসুজ্জামান খান: আমি একথা এখনো বলছি এবারের বইমেলা সবদিক দিয়ে আলাদা ও স্বতন্ত্র। কারণ এবারই প্রথম বইমেলা সবচেয়ে বেশি জায়গা জুড়ে হচ্ছে। মোট চার লাখ আটাত্তর হাজার বর্গফুট জায়গা জুড়ে মেলা বিস্তৃত। এবারই প্রথম সর্বাধিক প্রতিষ্ঠানকে স্টল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে ১৫টি প্যাভিলিয়ন রয়েছে। দৃষ্টিনন্দন এই প্যাভিলিয়ন দেয়া হয়েছে দেশের গুরুত্বপুর্ণ ১৪টি প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানকে।  আনন্দ আলো: এবার কোন বিষয়কে বেশি প্রাধান্য দিচ্ছেন? শামসুজ্জামান খান: বিষয়তো একটাই, নিরাপত্তা। আমরা সবার আগে নিরাপত্তার কথা আগে ভাবছি। গত বই মেলায় লেখক অভিজিৎ সন্ত্রাসীদের হামলায় নিহত হন। এটি বেদনা দায়ক একটি ঘটনা। এ ধরনের ঘটনা যাতে না ঘটে সে ব্যাপারে আমরা খুবই সচেতন। ইতিমধ্যে মেলার সোহরাওয়ার্দী ও বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গনে প্রবেশ পথে র‌্যাব ক্যাম্প বসানো হয়েছে, টিএসসিতেও র‌্যাব-এর ক্যাম্প থাকবে। দু’শটি সিসি ক্যামেরা দিয়ে বইমেলা সার্বক্ষণিক মনিটরিং এর ব্যবস্থা থাকবে। এছাড়া থাকবে পর্যবেক্ষণ টাওয়ার এর মাধ্যমে পুরো এলাকা নজর দারিতে থাকবে। র‌্যাব, পুলিশ, আনসার ও গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা সক্রিয় থাকবে। এই ফাঁকে আরো একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় বলি, প্রতিদিনি মেলা শেষ হবে রাত আটটায়। একেবারের ঘড়ির কাটায় কাটায় আটটা। সাড়ে সাতটায় প্রথম সাইরেন বাজবে, দ্বিতীয় সাইরেন বাজবে রাত পৌনে আটটায় এবং সর্বশেষ রাত আটটায় আলো নিভিয়ে দেয়া হবে। এটা করা হয়েছে শুধুমাত্র নিরাপত্তার কথা ভেবে।