Home আরোও বিভাগ ক্রীড়া বিনোদন সাকিবের নেতৃত্বে-ই ২০২৩ সালের বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলবে বাংলাদেশ : মাশরাফি

সাকিবের নেতৃত্বে-ই ২০২৩ সালের বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলবে বাংলাদেশ : মাশরাফি

SHARE

সাকিব আল হাসানের ওপর এক বছরের নিষেধাজ্ঞায় ধাক্কা খেয়েছে ক্রিকেটবিশ্ব। যে ঝড় উঠেছে তা স্বাভাবিকভাবেই লেগেছে বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষের হৃদয়ে। সাকিব আল হাসানের রাতটা কেমন কাটবে—এর উত্তর খোঁজাটা বড্ড নিষ্ঠুরতা হয়ে যাবে। সাকিবের নিষেধাজ্ঞায় তাঁর অনেক ভক্ত, সতীর্থই এখনও কাঁদছেন নিশ্চিত; হয়তো গোপনে। বাংলাদেশ ক্রিকেটের আরেক বড় বিজ্ঞাপন মাশরাফিও সাকিবের নিষেধাজ্ঞায় কষ্ট পেয়েছেন। ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, এই ঘটনায় সামনের কিছু রাত তাঁর নির্ঘুম কাটবে। তবে মাশরাফি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করেন ২০২৩ সালে বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলবে বাংলাদেশ। এবং সেটা সাকিবের নেতৃত্বেই। কারণ মাশরাফি জানেন সাকিব কী জিনিস। কিভাবে জবাব দিতে হয়, কিভাবে ফিরে আসতে হয় এটা যে সাকিবের ভালো করেই জানা আছে। আর সাকিবকে মাশরাফির চেয়ে কে-ই বা ভালো চেনে বলুন! জাতীয় দলে দুজনের শুরুটা যে রেললাইনের মতো সমান্তরাল।
মাশরাফি তাঁর ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে লিখেছেন, ‘দীর্ঘ ১৩ বছরের সহযোদ্ধার ঘটনায় নিশ্চিতভাবেই কিছু বিনিদ্র রাত কাটবে আমার। তবে কিছুদিন পর এটা ভেবেও শান্তিতে ঘুমাতে পারব যে, তার নেতৃত্বেই ২০২৩ সালে আমরা বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলব। কারণ নামটি তো সাকিব আল হাসান…’
নিজের ভুলে
দুঃখিত সাকিব
আইসিসির কাছে নিজের ভুল স্বীকার করেছেন সাকিব আল হাসান। তিনি বলেছেন, ‘যে খেলাটি ভালোবাসি, সেখান থেকে নিষিদ্ধ হয়ে আমি অবশ্যই অসম্ভব কষ্ট পাচ্ছি। কিন্তু আমার কাছে অনৈতিক প্রস্তাব আসার পরও না জানানোর ফলে আমার শাস্তি আমি মেনে নিয়েছি। আইসিসির দুর্নীতিবিষয়ক কমিটির দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই খেলোয়াড়দের ওপর নির্ভর করে। এ ঘটনায় আমি আমার দায়িত্ব পালন করতে পারিনি।’ ভবিষ্যতে তরুণ কোনো ক্রিকেটার যেন এমন ভুল না করে, সেটা নিশ্চিত করতে চান সাকিব। এ ব্যাপারে আইসিসিকে পূর্ণাঙ্গ সহযোগিতা করতে চান, ‘বিশ্বের অধিকাংশ ক্রিকেটার ও সমর্থকের মতো আমিও চাই দুর্নীতিবিরোধী খেলার পরিবেশ। আমি আইসিসির দুর্নীতিবিষয়ক কমিটির সঙ্গে এ ব্যাপারে কাজ করার অপেক্ষায় আছি। তরুণ ক্রিকেটারদের শিক্ষা কার্যক্রমে অংশ নেব এবং নিশ্চিত করতে চাই, তরুণ ক্রিকেটাররা আমার ভুল থেকে শিক্ষা নেবে।’
এমসিসি ক্রিকেট কমিটি থেকে সাকিবের পদত্যাগ
মেরিলিবোন ক্রিকেট ক্লাবের (এমসিসি) ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট কমিটি থেকে পদত্যাগ করেছেন সাকিব আল হাসান। আইসিসির দেওয়া দুই বছরের নিষেধাজ্ঞার পরপর এই সিদ্ধান্ত নেন সাকিব। ২০১৭ সালের অক্টোবরে এমসিসির ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট কমিটি সঙ্গে যুক্ত হয়েছিলেন সাকিব। এরপর সিডনি ও বেঙ্গালুরুতে এই কমিটির দুটি সভায় অংশ নিয়েছেন তিনি। ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে এমসিসির ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট কমিটি কাজ করে। এতে আছেন সাবেক ও বর্তমান ক্রিকেটাররা। বছরে সাধারণত দুটি সভা করে এই কমিটি। আগামী মার্চে শ্রীলঙ্কায় কমিটির পরবর্তী সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা।