SHARE
Mousumi-Hamid

ছোটপর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী মৌসুমী হামিদ। শ্যুটিংয়ের অনুমতি পাওয়ার পর থেকেই তিনি কাজ শুরু করেছেন। তার শ্যুটিং অভিজ্ঞতা তুলে ধরা হলো…

করোনাকালের শ্যুটিং নিয়ে বলুন…
জীবনের মায়া সবারই আছে। কিন্তু অনেক সময় আমাদের রিস্ক নিতে হয়। আমি সেই রিস্কটা নিয়েই কাজ করছি। একজন শিল্পীকে শুধু নিজেরটা ভাবলে হয় না। আশপাশের মানুষ থেকে শুরু করে বৃহত্তর পরিবেশ-পরিস্থিতি নিয়েও ভাবতে হয়। আমি হয়তো আরও ৬ মাস ঘরে বসে খেতে পারতাম। কিন্তু আমার অভিনীত যে কটি ধারাবাহিক প্রচার চলতি, সেগুলোর সঙ্গে কয়েকশ মানুষ জড়িত, যারা দিন আনে দিন খায় অবস্থা। তাদের জন্য হলেও আমাকে কাজ করা উচিত। তাছাড়া অন্য পেশাতেও তো ঝুঁকি নিয়ে সবাই কাজ করছে। ঘর থেকে বের হচ্ছে। শোবিজের কাজে কেন এত কথা হবে?

‘তোলপাড়’…
এই ব্যস্ত শহরে নানা রকম মানুষ থাকে। তাদের একজন জয়নাল। শ^শুরবাড়ির সম্পত্তি ভোগ করে বেশ আরাম আয়েশে দিন কাটে তার। সারা দিন ঘরে বসে ইউটিউবে আজগুবি জিনিস দেখে। জয়নালের স্ত্রী রোকসানা সংসার চালাতে একটি লেডিস হোস্টেল চালু করে। একে একে বিভিন্ন ধরনের মেয়েরা আসতে থাকে সেই হোস্টেলে। বিভিন্ন শহরের মেয়েরা বিভিন্ন ভাষা আর বিচিত্র সব আচরণে কোলাহলমুখর করে রাখে হোস্টেল। এমনই গল্প নিয়ে নির্মিত হচ্ছে ধারাবাহিক নাটক ‘তোলপাড়’। জাকির হোসেন উজ্জ্বলের রচনা ও মুসাফির রনির পরিচালনায় নাটকটি প্রতি শুক্র থেকে সোমবার প্রচার হচ্ছে আরটিভিতে রাত ১০টায়। এখন এই নাটকের কাজই করছি। একে তো নতুন নাটকের অভাব, তার ওপর গল্পটি খুব মজার। দর্শক নাটকটি দারুণ উপভোগ করছেন বলে খবর পাচ্ছি।

সাবধানতা…
লকডাউন উঠে যাওয়ার পর যে কদিন শ্যুটিং করেছি, বেশিরভাগ ইনডোরেই হয়েছে। প্রতিটি দিন খুব সাবধানে থেকে কাজ করছি। প্রতিদিন শ্যুটিং হাউজগুলো ব্লিচিং পাউডার দিয়ে ধোয়া হচ্ছে। শ্যুটিং ইউনিট অযথা যাতে না বাড়ে সেদিকে নজর রাখা হচ্ছে। প্রতিটি সদস্যকে তাপমাত্রা মেপে সেটে ঢোকানো হচ্ছে। আর সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা হচ্ছে। শুধু অভিনয় অংশে আমরা যারা অংশ নিচ্ছি তাদের একটু কাছাকাছি আসতে হচ্ছে। কিন্তু এতে আমি একটুও বিচলিত নই। কারণ, আমার সহকর্মীদের আমি পরিবারের অংশ হিসেবেই দেখি। একটি পরিবারে যদি একাধিক মানুষ স্বাভাবিকভাবে বাঁচতে পারে তাহলে আমিও আমার সহকর্মীদের সঙ্গে কাছাকাছি বসে বা দাঁড়িয়ে অভিনয় করতেই পারি। কিন্তু আমাদের গল্পে নায়ক-নায়িকার ঘনিষ্ঠ দৃশ্যগুলো বাদ দেওয়া হয়েছে।