Home বইমেলা প্রতিদিন ‘লেখক বলছি’ বইমেলার নবতর সংযোজন!

‘লেখক বলছি’ বইমেলার নবতর সংযোজন!

SHARE
Writer

একুশে বইমেলায় ‘লেখক বলছি’ নামে একটি নিয়মিত অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে কর্তৃপক্ষ। মেলার সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অংশে এজন্য একটি দৃষ্টিনন্দন মঞ্চও সাজানো হয়েছে। মঞ্চে নির্ধারিত কবি অথবা লেখক বসবেন। তার নতুন বই নিয়ে প্রশ্ন করবেন উপস্থাপক। একজন কবি, লেখক এজন্য সময় পাবেন ২০ মিনিট। গতকাল বইমেলায় দ্বিতীয় দিনের মতো ‘আমি লেখক বলছি’ অনুষ্ঠানটি সম্পন্ন হয়েছে। নতুন আঙ্গিকের এই অনুষ্ঠানটি এবার বইমেলায় বিশেষভাবে আলো ছড়াতে পারে বলে অনেকে মন্তব্য করেছেন। এটি মূলত লেখক কুঞ্জ’ এর নবতর সংস্করণ। এর আগে মেলা কর্তৃপক্ষ লেখককুঞ্জ সাজিয়ে দেয়ার পর মূলত আর কোনো দায়িত্ব পালন করতেন না। ফলে লেখককুঞ্জ অনেকটা ফাঁকাই পড়ে থাকতো। এবার কবি লেখকদেরকে বিশেষ ভাবে উপস্থাপনের জন্য ‘লেখক বলছি’ শীর্ষক এই বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। বইমেলার সোহরাওয়ার্দী উদ্যাণ অংশে বিশেষ ভাবে সাজানো মঞ্চে প্রতিদিন বিভিন্ন কবি, লেখক পাঠকের সাথে আলাপচারিতায় মুখোমুখি হবেন। গতকাল মেলার তৃতীয় দিনে ‘লেখক বলছি’ অনুষ্ঠানে কবি শামীম রেজা তার নতুন বই ‘কবিতা সংগ্রহ’ দিলদার হোসেন ‘জাপানে বঙ্গবন্ধু ও রবীন্দ্রনাথ’ আবুল কাসেমের ‘মোর্য’ এবং কোস্তব শ্রী তার নতুন বই ‘মহাপ্রয়ান সড়ক’ নিয়ে পৃথক ভাবে পাঠকের মুখোমুখি হন। বিপুল সংখ্যক ক্রেতা-দর্শক অনুষ্ঠানটি উপভোগ করে।
গতকাল মেলায় ঢাকার ইসলামপুর থেকে আসা নাজমা বেগম অনুষ্ঠানটির ভ‚য়শী প্রশংসা করে বলেন, কবি, লেখকরাই মূলত বইমেলার প্রাণ। অথচ তাদের জন্য বিশেষ কোনো আয়োজন থাকে না বললেই চলে। ‘লেখক বলছি’ অনুষ্ঠানে নবীণদের পাশাপাশি জনপ্রিয় কবি, লেখকদের উপস্থিতি থাকলে ভালো হয় বলে তিনি মন্তব্য করেন। বইমেলার সদস্য সচিব জালাল আহমেদ বলেন ‘লেখক বলছি’ অনুষ্ঠানটি নিয়ে আমরা অনেক আশাবাদী। এক্ষেত্রে সবার আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করছি।