Home আরোও বিভাগ ‘রূপা ভাবী’ তারিন

‘রূপা ভাবী’ তারিন

SHARE

দীর্ঘদিন পর অভিনেত্রী তারিন ‘রূপা ভাবী’ হয়ে পর্দায় ফিরেছেন। এর সঙ্গে জুটি বেঁধেছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী। স¤প্রতি উত্তরার বেশ কিছু লোকেশনে ‘রূপা ভাবী’ নামের এ নাটকটির দৃশ্যায়ন সম্পন্ন হয়েছে। এটি নির্মাণ করেছেন আবু হায়াত মাহমুদ। আর চিত্রনাট্য লিখেছেন মেজবাহ উদ্দিন সুমন। আগামী ঈদে একটি বেসরকারী টেলিভিশন চ্যানেলের জন্য নির্মিত হয়েছে এ নাটকটি। তারিন, চঞ্চল চৌধুরী ছাড়াও এ নাটকে অভিনয় করেছেন ড.ইনামুল হক ও শিরীন আলমসহ অনেকে। এ বিষয়ে তারিন বলেন, ‘রূপা ভাবী নাটকটির গল্প প্রত্যেকটি মানুষের বিবাহিত জীবনের একটি অংশ। সবাই এ গল্পের সঙ্গে নিজেদের দাম্পত্য জীবনের মিল খুঁজে পাবেন। পুরো কাজ ভীষণ উপভোগ করেছি। তবে এতটুকু বলতেই হবে ‘রূপা ভাবী’ গতানুগতিক কোন গল্পের নাটক নয়। বাস্তবধর্মী গল্প নিয়ে এ নাটকটি নির্মাণ করা হয়েছে। চঞ্চল চৌধুরী বলেন,’ ‘একজন রূপা আমাদের বাঙ্গালী নারীর চিরায়ত চরিত্র। নাটকে সেই নারীর গল্পই দেখানো হবে। সে কোন কিছু না পাওয়ার আশায়ই সংসারকে আগলে রাখেন। তারিন রূপা ভাবীর চরিত্রকে অসাধারণ ভাবে ফুটিয়ে তুলেছে।’

বেদে শিশুদের পাশে ফারিয়া

faria

শোবিজ অঙ্গনের তারকাদের অভিনয়ের পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডে যুক্ত হওয়ার ঘটনা নতুন নয়। এবার সেই তালিকায় নাম লেখালেন ছোট পর্দার অভিনেত্রী শবনব ফারিয়া। স¤প্রতি মুন্সিগঞ্জ জেলার ধলেশ্বরী নদীতে ভাসমান ‘বেদে পল্লী’র সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্য তৈরি করা হয়েছে একটি স্কুল। ‘আলোকিত শিশু’ নামে সেই স্কুলটির আনুষ্ঠানিকভাবে একটি স্থাপনা তৈরি হয়েছে। এটি উদ্বোধন করতেই হাজির হয়েছিলেন অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া। স¤প্রতি এ তারকা অভিনেত্রী সেখানে উপস্থিত হয়ে বেদে পল্লীর শিশুদের সঙ্গেও সময় কাটিয়েছেন। তাদের সঙ্গে করেছেন গল্প, খোঁজ-খবর নিয়েছেন লেখাপড়া ও সুবিধা-অসুবিধার বিষয়ে। এ বিষয়ে ফারিয়া বলেন, ‘২০১৫ সালের অক্টোবর থেকে আমি ‘আলোকিত শিশু’র সঙ্গে জড়িত। সেই থেকে দুজন বাচ্চার লেখাপড়ার দায়িত্ব নিয়েছিলাম। সামনের দিনগুলোতেও এদের সঙ্গে থাকব।’ বেদে পল্লীর আলোকিত স্কুল উদ্বোধনে অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন আইডিএলসি ফিন্যান্স লিমিটেডের পরিচালক আরিফ খান, আলোকিত শিশুর প্রতিষ্ঠাতা মিথুন দাস কাব্যসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তি, শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকবৃন্দ।