Home টি-২০ আড্ডা যারা বলে তারাই আবার ঘুরায়া ফিরায়া দ্যাহে-মীর সাব্বির

যারা বলে তারাই আবার ঘুরায়া ফিরায়া দ্যাহে-মীর সাব্বির

SHARE
Mir-Sabbir

মোহাম্মদ তারেক

আনন্দ আলো: মীর সাব্বির নামের অর্থ কী?

মীর সাব্বির: সাব্বির নামের অর্থ প্রশংসিত।

আনন্দ আলো: এত কাজ থাকতে অভিনয়ে এলেন কেন?

মীর সাব্বির: ব্যাপারটা অটোমেটিকভাবে হয়ে গেছে। তবে অভিনয়ে আসা যায় না। অভিনয় হয়ে যায়।

আনন্দ আলো: জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয় যে কাজ অর্থাৎ নাটকটি।

মীর সাব্বির: ‘বিষকাটা’ নাটকটি আমার অভিনয় জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয়।

আনন্দ আলো: দেশের টিভি দেখেন?

মীর সাব্বির: অবশ্যই দেশের টিভি দেখি। বিদেশি টিভি দেখি না।

আনন্দ আলো: অনেকেই বলে থাকেন আমাদের টিভির দর্শক নাকি কমে যাচ্ছে। আপনি কি মনে করেন?

মীর সাব্বির: যারা বলে তারাই আবার ঘুরায়া ফুরায়া দেখে।

আনন্দ আলো: অভিনয় ছাড়া আর যা ভালো করতে পারেন?

মীর সাব্বির: অভিনয় ছাড়া আমি বাঁশি বাজাতে পারি।

আনন্দ আলো: ধরা যাক কোনো গ্রামে আপনি শুটিং করতে গেলেন। ক্যামেরা, লাইট, অ্যাকশন বলার সঙ্গে সঙ্গে আপনার সামনে বনের রাজা সিংহ হাজির হয়ে গেল। তখন আপনি কী করবেন?

মীর সাব্বির: প্রথমে প্রচণ্ড ভয় পাব। তারপর বনের রাজার সঙ্গে অভিনয় শুরু করে দেব।

আনন্দ আলো: আপনাকে একদিনের জন্য প্রধানমন্ত্রী বানিয়ে দেয়া হলে প্রথমে কোন কাজটি করবেন?

মীর সাব্বির: প্রথমে যে কাজটি করব তা হচ্ছে মিডিয়ায় যত অপসংস্কৃতি আছে সেটা দূর করব। ডাবিং সিরিয়াল বন্ধ করব। যত খারাপ জিনিস আছে সেগুলো দূর করব।

আনন্দ আলো: আপনার স্ত্রী ফারজানা চুমকি একজন অভিনেত্রী। তাকে বাদে আর কতজন চুমকির সঙ্গে আপনার দেখা হয়েছে?

মীর সাব্বির: খুব বেশি চুমকির সঙ্গে দেখা হয়নি। দুই তিনজন হবে।

আনন্দ আলো: চুমকি চলেছে একা পথে এই গানটি সম্পর্কে কিছু বলুন?

মীর সাব্বির: চুমকি কখনোই একা পথে চলে নাই।

আনন্দ আলো: সংসারে কে বেশি সেক্রিফাইস করে আপনার স্ত্রী নাকি আপনি?

মীর সাব্বির: অবশ্যই স্ত্রী সবচেয়ে বেশি সেক্রিফাইস করে।

আনন্দ আলো: দুজনের মধ্যে মান-অভিমান হলে কে আগে রাগ ভাঙান?

মীর সাব্বির: আমাদের মধ্যে মান-অভিমান হলে সনৱান আগে রাগ ভাঙায়।

আনন্দ আলো:যে প্রশ্ন শুনতে শুনতে ক্লান্ত।

মীর সাব্বির: আপনি বরিশালের ভাষায় এত নাটকে অভিনয় করেন কেন?

আনন্দ আলো: নোয়াশাল নাটক শুরু হয়েছিল কীভাবে?

মীর সাব্বির: বরিশাল বনাম নোয়াখালি নামের এক ঘণ্টার একটি নাটকে তারিনের সঙ্গে অভিনয় করেছিলাম। তারপর তারিনের সঙ্গে গল্প করতে করতে নোয়াশাল ধারাবাহিক নাটকের আইডিয়া মাথায় আসে।

আনন্দ আলো: অভিনয় এবং পরিচালনা দুটোই করছেন। সমস্যা হয় না।

Mir-Sabbir-1মীর সাব্বির: সমস্যা হয় না। কারণ হচ্ছে দুটি আলাদা বিষয়। আমি দু’টি কাজই এক সঙ্গে উপভোগ করি।

আনন্দ আলো: হঠাৎ নোয়াশাল নাটকের শুটিং দেখতে বিদেশ থেকে মি. বিন এসেছেন। তাকে দেখে কী করবেন?

মীর সাব্বির: তাকে দেখে বলব, মুন মোগো বরিশালের ভাষায় একটু অভিনয় কর দেহি।

আনন্দ আলো: ধরা যাক আপনি একটা মারাত্মক অপরাধ করেছেন। শাসিৱ হিসেবে আপনাকে একটি কৌতুক বলতে বলা হলো। কোন কৌতুকটি বলবেন?

মীর সাব্বির: এক লোক তার উড়োজাহাজ রং করাবেন। তাই তিনি রংয়ের দোকানে গেলেন। দোকানদারকে বললেন, ভাই অনেকদিন হয়ে গেল আমার উড়োজাহাজে রং করা হয়নি। উড়োজাহাজে রং করব।

ঃস্যার আমি কইরা দিমু।

ঃঠিক আছে।

পরের দিন দোকানদার ছোট্ট একটি রংয়ের ডিব্বা নিয়ে হাজির।

ঃকী ব্যাপার? এত ছোট ডিব্বা কেন এনেছ?

ঃস্যার। উড়োজাহাজটা যখন আকাশে উড়ে তখন তো দেখতে ছোট দেখা যায়। এই জন্যই ছোট রংয়ের ডিব্বা এনেছি।

আনন্দ আলো: গোপন কোন কথাটি স্ত্রীর কাছেও বলেন না?

মীর সাব্বির: গোপন জিনিস গোপন থাকা ভালো। আপনার কাছে বলব কেন?

আনন্দ আলো: তারকা হওয়ার সুবিধা-অসুবিধা…

মীর সাব্বির: তারকা হওয়ার সুবিধা হচ্ছে মানুষের ভালোবাসা পাওয়া যায়। বিভিন্ন জায়গায় মানুষ যথেষ্ট রকমের সুযোগ সুবিধা দেয়। অসুবিধা তেমন একটা নেই বললে চলে। মাঝে মধ্যে হলেও সেটা বলতে চাই না।

আনন্দ আলো: প্রথম কোন মানবীর প্রেমে পড়েছিলেন। বুকে হাত দিয়ে বলবেন…

মীর সাব্বির: অবশ্যই মায়ের।

আনন্দ আলো: ভালোবাসা আপনার কাছে কী?

মীর সাব্বির: ভালোবাসা আমার কাছে হচ্ছে মায়া এবং সেক্রিফাইস।