Home শীর্ষ কাহিনি বেঁচে থাক আগামীর স্বপ্ন

বেঁচে থাক আগামীর স্বপ্ন

SHARE

অনেকেই বলছেন আশা ভঙ্গ হয়েছে। বিশ্বকাপ ক্রিকেটে ভারতের সাথে লড়াই করে টিকতে পারেনি বাংলাদেশ। পরাজয় বরণ করায় বিশ্বকাপের সেরা ৪টি দলের একটি হতে পারেনি। এবারের বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের পারফরমেন্স এতটাই ভালো ছিল যে শুধু বাংলাদেশের দর্শকই নয় গোটা ক্রিকেট দুনিয়ায় বাংলাদেশ সমীহ জাগানিয়া একটি দলে পরিনত হয়। বাংলাদেশ তার ৮ম খেলায় ভারতকে পরাস্থ করতে পারলেই সেরা চারটি দলে জায়গা করে নেয়ার পথ অনেকটাই খুলে যেতো। এই নিয়ে কত জল্পনা কল্পনাই না শুরু হয়েছিল। শেষ পর্যন্ত এবার পারেনি বাংলাদেশ। তাই আগামীর স্বপ্ন নিয়েই আপাতত সন্তুষ্ট থাকতে হচ্ছে বাংলাদেশের ক্রিকেট প্রেমী কোটি কোটি ক্রিকেট প্রেমী মানুষকে। এবার হয়নি আগামীতে নিশ্চয়ই হবে।
ইংল্যান্ডের মাটিতে যখন বাংলাদেশের সাথে ভারতের ক্রিকেট লড়াই চলছিল তখনই একটি লেখা লেখেন জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক আনিসুল হক। প্রথম আলোর সৌজন্যে লেখাটি আনন্দ আলোর পাঠকদের জন্য প্রকাশ করা হলো।
একটা টাইম মেশিন থাকলে ভালো হতো। আমি যখন এ লেখাটা লিখছি, তখন ভারত-বাংলাদেশ খেলায় কেবল টস হয়েছে, ভারত টসে জিতেছে। আর আপনারা যখন এ লেখা পড়ছেন, তখন আপনারা খেলার ফল ভালো করেই জানেন। ‘ক্রিকেট নিষ্ঠুর, কিন্তু খোদা নিষ্ঠুর নন।’
ক্রিকেটে টস খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আর আমাদের ভাগ্য এ রকম, বৃষ্টি হলো শ্রীলঙ্কার দিনে, বৃষ্টি তো ইংল্যান্ডের দিনও হতে পারত! খেলিছ এ বিশ্ব লয়ে বিরাট শিশু আনমনে। যাক ফরচুন ফেভারস দ্য ব্রেভ। একটা টাইম মেশিন থাকলে অবশ্য ভালো হতো। ভবিষ্যতে গিয়ে আমি বলে দিতে পারতাম খেলার ফল কী হয়েছে। সপ্তাহ দুই সামনে গিয়ে বলা যেত, এবারের বিশ্বকাপ ক্রিকেটে চ্যাম্পিয়ন কে হয়েছে। ক্রিকেট সম্পর্কে একটা প্রবাদ বলি। ‘ক্রিকেট হলো সেই খেলা যেখানে ২২ জন খেলে, আর খেলা শেষে জয়ী হয় অস্ট্রেলিয়া।’ তবে আমাদের বন্ধু সাংবাদিক পিনাকি রায় একটা নতুন কথা বলেছেন, ‘ইংল্যান্ড সেমিফাইনালে যেতে পারে, নিউজিল্যান্ড যেতে পারে, পাকিস্তান যেতে পারে, শ্রীলঙ্কা যেতে পারে, বাংলাদেশ যেতে পারে। কিন্তু আর্জেন্টিনা কিছুতেই চ্যাম্পিয়ন হবে না।’ কোপা আমেরিকায় ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা খেলায় কী হলো, তাও আপনারা ইতিমধ্যে জেনে গেছেন।
তাহলে আমরা কথা বলব কী নিয়ে।
ক্রিকেটে যে আমরা সবাই মিলে অংশ নিই, প্রার্থনা করি, দোয়া-দরুদ পড়ি, আগের ম্যাচে যে কাপড় পরে জিতেছিলাম সেই কাপড় পরে থাকি, গ্যালারিতে থাকলে চিৎকার করি, মনে হয় সেই কারণেই টিম জিতেছে। তবে একটা সুবিধাও আছে। দল জিতলে গৌরব আমার, দল হারলে দোষ কোনো একজন খেলোয়াড়ের। কিংবা ক্যাপ্টেনের, তিনি কেন টসে জিতে অমুক করলেন না। ভারত বনাম বাংলাদেশের খেলায় অবশ্য মাশরাফি বলতে পারবেন, আমি তো আর টসে জিতি নাই। হায়, বাংলাদেশ কেন টস জেতে না?
খেলার ফল কী হয়েছে, আমি জানি না। আমি শুধু জানি, হারি-জিতি বাংলাদেশ। লড়ো বাংলাদেশ, লড়ে যাও। এগিয়ে যাও। আমাদের হারানোর কিছু নেই। জয় করার জন্য আছে সমস্ত পৃথিবী। এবং রয়েছে বিশ্বকাপ। কবে তা জানার জন্য টাইম মেশিন দরকার। আর তা জানেন ক্রিকেটের ভাগ্যবিধাতা, যিনি খেলছেন এ বিশ্ব লয়ে।