SHARE

জাকীর হাসান: অসাধারন এক মুহ‚র্ত। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের হল অব ফেমের নিচে ওপরে প্রতিটি আসন কানায় কানায় পূর্ণ। সবার দৃষ্টি আলোক উজ্জ্বল মঞ্চের দিকে। ডিজিটাল মঞ্চের চারপাশ থেকে তখন নানারঙের আলো বিচ্ছুরিত হচ্ছিল। এমনি এক  আনন্দমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠানের উপস্থাপিকা সিজিল মির্জা মাইক্রোফোন হাতে ঘোষনা করলেন, উপমহাদেশের এক শ্রেষ্ঠশিল্পী আমাদের সংগীত জগতের জীবন্ত কিংবদন্তি রুনা লায়লা আসছেন মঞ্চে।  মহান এই শিল্পী তাঁর সঙ্গীত জীবনের পাঁচ দশক পূর্ন করেছেন। এজন্য চ্যানেল আই পরিবার তাঁকে সম্মান জানানোর উদ্যোগ নিয়েছে। বুষ্টার এনার্জি বিস্কুট চ্যানেল আই ক্ষুদেগান রাজ গ্র্যান্ড ফিনালের মঞ্চে রুনা লায়লাকে এই সম্মান জানান হবে। ঘোষনার পর রুনা লায়লা উঠে আসেন মঞ্চে। তাঁকে মঞ্চে এগিয়ে নিয়ে আসেন চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, চ্যানেল আইয়ের পরিচালক ও বার্তা প্রধান শাইখ সিরাজ। একই সাথে মঞ্চে এসে উপস্থিত হন ক্ষুদে গানরাজের দুই বিচারক বিশিষ্ট সঙ্গীত তারকা ফেরদৌস আরা, ব্যান্ড তারকা এস আই টুটুল। রুনা লায়লার হাতে ক্রেস্ট তুলে দেন ফরিদুর রেজা সাগর ও শাইখ সিরাজ। উত্তরীয় পরিয়ে দেন দুই বিচারক সংগীত তারকা ফেরদৌস আরা, এস আই টুটুল। এসময় হল অব ফেমে উপস্থিত অতিথিরা দাঁড়িয়ে রুনা লায়লাকে শ্রদ্ধা জানান। 03_2পরে কিংবদন্তি এই কণ্ঠ তারকা চ্যানেল আই ও তার অগনিত ভক্ত শ্রোতাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ভালোবাসা জানিয়ে বক্তব্য রাখেন।  গত ১১ সেপ্টেম্বর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের হল অব ফেমে আয়োজন করা হয়েছিল বুষ্টার চ্যানেল আই ক্ষুদেগানরাজ মহাউৎসব ২০১৫ এর গ্রান্ড ফিনালে। এটি ছিল ক্ষুদে গানরাজের ৫ম আসর। ৭টা ৩০ মিনিটে শুরু হয় গ্র্যান্ড ফিনালে। বাংলাদেশসহ বিশ্বের ৫টি মহাদেশে অনুষ্ঠানটি এক যোগে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়। অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট আইনজ্ঞ ব্যারিষ্টার রফিকুল হক, চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, গ্লোব ফার্মাসিটিক্যাল গ্র“প অব কোম্পানীজ-এর চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো: হারুনুর রশিদ, চ্যানেল আইয়ের পরিচালক ও বার্তা প্রধান শাইখ সিরাজ, চ্যানেল আইয়ের পরিচালক আব্দুর রশিদ মজুমদার, জহির উদ্দিন মাহমুদ মামুন, আব্দুল মুকিত মজুমদার বাবু সহ নগরীর গণমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

চমক দিয়ে শুরু

5

বুষ্টার এনার্জি বিস্কুট চ্যানেল আই ক্ষুদে গানরাজ গ্র্যান্ড ফিনালে অনুষ্ঠানটি শুরু হওয়ার কথা স্বভাবতই গান দিয়ে তা না হয়ে শুরু হলো বিশেষ এক চমক দিয়ে। আর সেই চমকের ক্ষণটি শুরু হল মন মাতানো তবলা ও ভায়োলীন বাদনের মাধ্যমে। এরপর আবহমান বাংলার ঐতিহত্যবাহী ঢোল নৃত্য, সেরা নাচিয়ে তারকাদের নৃত্যসহ চলতে থাকে চ
মকের পর চমক। আর তাই অনুষ্ঠানে আগত অতিথিরা শুরুতেই আনন্দ সাগরে ভেসে ওঠেন। চমকের মাঝেই বক্তব্য রাখেন চ্যানেল আই-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, গ্লোব ফার্মাসিটিক্যাল গ্র“প অব কোম্পানীজ-এর চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো: হারুনুর রশিদ। তাঁদের বক্তব্যের পর এবারের আসরের প্রতিটি পর্ব ইতিপূর্বে যা চ্যানেল আইতে প্রচার হয়েছে তার একটি ভিডিও চিত্র পর্দায় দেখানো হয়। যেখানে দেশের নামী দামী তারকারা ক্ষুদে গানরাজের প্রতিটি পর্বে উপস্থিত হয়ে তাদের গান মনোযোগ দিয়ে শুনেছেন এবং নানা পরামর্শ দিয়েছেন। শুধু তাই নয় ক্ষুদে এই কণ্ঠ তারকাদের স্মৃতিময় অনেক ঘটনাও স্থান পেয়েছে এই ভিডিও চিত্রে।  এবারের আসরে অর্থাৎ ক্ষুদে গানরাজ সিজন ৫-এ সারাদেশ থেকে প্রায় ৬৫ হাজার প্রতিযোগী রেজিস্ট্রেশন করেছিল। তাদের মধ্যে থেকে পর্যায়ক্রমে মেধার ভিত্তিতে গ্র্যান্ড ফিনালেতে উঠে আসে ৭ জন। তারা হল মাহিন, রাফতি, বিজলী, অর্পিতা, পুস্পিতা, মহারাজা ও পায়েল।

মনোমুগ্ধকর একাধিক পরিবেশনা

10বুষ্টার এনার্জি বিস্কুট চ্যানেল আই ক্ষুদে গানরাজ ২০১৫ গ্র্যান্ড ফিনালেতে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত দারুন সব গান ও নাচের পরিবেশনা ছিল। অনুষ্ঠানে স্থান পেয়েছে দেশের সাহিত্য সংস্কৃতি, ইতিহাস, ঐতিহ্য আর কালজয়ী সব গল্পগাঁথা। আগের সিজন থেকে ক্ষুদে গানারাজ তারকাদের পাঁচজন দু’টি গান পরিবেশন করে একসঙ্গে। চমৎকার এই পরিবেশনা অতিথিদের মোহিত করে। এবারের ৭ ফাইনালিস্ট একসঙ্গে পরিবেশন করে চলনা ঘুরে আসি অজানাতে এই গানটি। সেরা নাচিয়ে চ্যাম্পিয়ন ইভানা ও তার দল পরিবেশন করে রুপকথার গল্প জুলেখা বাদশার মেয়ে জনপ্রিয় লোক কাহিনী ভিত্তিক নৃত্য। সেরা নাচিয়ে মন্দিরা ও তার দল সাত ভাই চস্পা লোক কাহিনী ভিত্তিক গীতিনাট্য পরিবেশন করেন।  বিশ্বখ্যাত রুপকথা সিনড্রেলা অবলম্বনে গীতিনাট্য পরিবেশন করেন লাক্সতারকা মেহজাবিন ও চলচ্চিত্র নায়ক বাপ্পী চৌধুরী। এই গীতিনাট্যে মেহজাবিনকে দেখে মনে হচ্ছিল সত্যিকারেরই রুপকথার সিনড্রেলা যেন।  গত কয়েক মাসে বাংলাদেশ সহ সারাবিশ্বে শিশু নির্যাতনের ভয়াবহ চিত্র প্রত্যক্ষ করেছে বিশ্বের মানুষ। তারই কিছু চিত্র দেখানো হয় ছোট একটি তথ্যচিত্রে। এর পরই উপমহাদেশের বিশিষ্ট রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা সাত ফাইনালিস্টকে নিয়ে একটি গান পরিবেশন করেন।   ফাইনালিস্টদের অনবদ্য পরিবেশনা প্রতিযোগিরা গান পরিবেশন করবে সেই গান শুনে শ্রোতারা এসএমএস করবেন এবং বিচারকরা গান শুনে নম্বর দিবেন এটাইতো নিয়ম এতে আবার চমক কী? তবুও চমক ছিল। ৭ ফাইনালিষ্টের মধ্য থেকে এক এক করে মঞ্চে গান গাইতে আহবান জানাবেন উপস্থাপিকা কথা ছিল এমনই। কিন্তু এবার এই আহবান জানিয়েছেন ছড়া ও প্যারোডি গানের অপ্রতিদ্ব›িদ্ব শিল্পী নকুল কুমার বিশ্বাস। দুইজন ঢুলিকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিটি প্রতিযোগীর নাম ঠিকানা, পিতা, মাতার নাম ছড়ায় ছড়ায় বলে প্রতিযোগিদের মঞ্চে আহবান জানান তিনি। গান শেষে আবার ছড়ায় ছড়ায় তাদের অভিনন্দনও জানান। বিষয়টি দারুন উপভোগ করেছেন ক্ষুদে শিল্পী থেকে শুরু করে উপস্থিত অতিথিরা। এই পর্বে একে একে গান পরিবেশন করে মাহিন, রাফতি,  অর্পিতা পুস্পিতা, মহারাজা ও পায়েল।

14 15 16

এলো সেই সেই মাহেন্দ্রক্ষণ

Alamgirবুষ্টার এনার্জি বিস্কুট চ্যানেল আই ক্ষুদে গানরাজ সিজন-৫ এ সারা দেশ থেকে ৬৫ হাজার প্রতিযোগী রেজিস্টেশন করেছিল। এর মধ্যে থেকে যাচাই বাছাই করে গ্র্যান্ড ফিনালেতে ৭ জন উঠে আসে। গত ৪ সিজনে ক্ষুদে গানরাজের ব্যানারে উঠে আসে প্রায় অর্ধ শতাধিক ক্ষুদে তারকা যাদের প্রায় সবাই দেশের গানের জগৎ আলোকিত করে আছে। প্লেব্যাক থেকে শুরু করে বিভিন্ন অনুষ্টানে সদর্পে কাজ করে যাচ্ছে।  এবারে ক্ষুদে গানরাজ প্রতিযোগীদের মধ্যে যারা ২৫-এ ছিল তারাও বিচারকদের নজর কাড়তে সক্ষম হয়। যখন টপ টেন ছিল তখন সেরা ৭ নির্বাচন করতে বিচারকদের গলদঘর্ম হতে হয়। সেরা ৭ কে নিয়ে গ্র্যান্ড ফিনালেতে প্রথম দ্বিতীয় ও তৃতীয় নির্বাচন করতে যেন আরো বেগ পেতে হয়। প্রতিযাগিদের প্রত্যেকের গান শোনার পর মনে হয়েছে তারা প্রত্যেকেই চ্যাম্পিয়ন হওয়ার যোগ্যতা রাখে। অনুষ্ঠানের বিভিন্ন ধাপ পেরিয়ে আসে সেই মাহেন্দ্রক্ষন। উপস্থপিকা সিজিল মির্জা বললেন, এবার ঘোষনার পালা কে হতে যাচ্ছে বুষ্টার এনার্জি বিস্কুট চ্যানেল আই ক্ষুদে গানরাজ। চারদিক থেকে এসময় বিভিন্ন নাম শোনা যেতে থাকে। পরে উপস্থাপিকা চিৎকার করে বললেন বুষ্টার এনার্জি বিস্কুট চ্যানেল আই ক্ষুদে গান রাজ ২০১৫ এর দ্বিতীয় রানার আপ মাহিন। মাহিনকে করতালি দিয়ে অভিনন্দন জানান অতিথিরা। তার হাতে ২ লাখ টাকার চেক তুলে দেন চ্যানেল আই’র পরিচালক জহির উদ্দিন মাহমুদ মামুন। স্যাশ পরিয়ে দেন বিচারক ফেরদৌস আরা।  এরই মধ্যে উপস্থাপিকা আনন্দের সাথে ঘোষণা করেন এবারে দ্বিতীয় রানার আপ হয়েছেন রাফতি। সবাই দাঁড়িয়ে করতালি দিয়ে অভিনন্দন জানান রাফতিকে। তার হাতে ৩ লাখ টাকার চেক তুলে দেন চ্যানেল আই এর পরিচালক আব্দুর রশিদ মজুমদার, উপহার তুলে দেন আব্দুল মুকিত মজুমদার বাবু, স্যাশ পরিয়ে দেন বিচারক এস  আই টুটুল।  সবশেষে চ্যাম্পিয়ন ঘোষনার পালা। তখন সবাই টেনশনে বিশেষ করে প্রতিযোগিরা প্রতীক্ষার প্রহর গুনছিলো। চারপাশ নিরব নিস্তব্দ। এমন সময় নিরবতা ভাঙ্গলেন উপস্থাপিকা। আনন্দে চিৎকার দিয়ে ঘোষনা করলেন এবারের বুষ্টার এনার্জি বিস্কুট ক্ষুদে গানরাজ সিজন-৫ এর চ্যাম্পিয়ন পুষ্পিতা। এ ঘোষনার পর পুষ্পিতা আনন্দে কেঁদে ফেলেন। আগত অতিথিরা অভিনন্দন জানান পুস্পিতাকে। তার হাতে পাঁচ লাখ টাকার চেক তুলে দেন ফরিদুর রেজা সাগর ও মো: হারুনুর রশিদ। স্যাশ পরিয়ে দেন শাইখ সিরাজ। ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ডের সৌজন্যে ডায়মন্ডের মুকুট পরিয়ে দেন রুনা লায়লা।

আমাদের জন্য দোয়া করবেন

RUNA-LAILAরুনা লায়লা, অতিথি বিচারক

গানে গানে ৫০ বছর  পার হয়ে গেল। কিন্তু আমার বয়স তো ৫০ বছর হয়নি। এখনো ত্রিশে আটকে আছি। আর আপনাদের দোয়া আশীর্বাদ যদি থাকে তাহলে চিরকাল ত্রিশেই থাকব। আর বাড়াবো না।  চ্যানেল আইকে আমি অনেক অনেক ধন্যবাদ জানাচ্ছি এরকম একটা আয়োজন করে আমাকে সম্মানিত করার জন্য। এজন্য আমি আন্তরিক ভাবে কৃতজ্ঞ। আসলে শিল্পীর জীবনে এটাই একটা বড় পাওয়া। শিল্পীরা ভালোবাসা, শ্রদ্ধা ও দোয়া আর্শিবাদ নিয়েই বেঁচে থাকে। দর্শকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আমরা গান শোনাই, আমরা গান লিখি, গান সুর করি, আমরা অভিনয় করি, আমরা নাচি শুধু আপনাদেরকে আনন্দ দেবার জন্য। আপনাদের কাছে আমার একটা আবেদন, আমরা শিল্পীরা যখন কোনো বিপদে পড়ি তখন আমাদের দু:খে আপনারাও আমাদের সঙ্গে থাকবেন।  আজকে আমাদের অনেক শিল্পী অসুস্থ। তাদের চিকিৎসার ব্যাপারে শিল্পীরা মিলে যতটুকু সম্ভব করছি। আপনারা সবাই মিলে যদি এগিয়ে আসেন তাহলে আমরা খুব কৃতজ্ঞ থাকব আপনাদের কাছে। এটাই আমাদের আশা। আপনারা আমাদের সবার জন্য দোয়া কররেন। সঙ্গীত জীবনে ৫০ বছর পার করে এসেছি, শুধুমাত্র আপনাদের এই ভালোবাসা, এই দোয়া, এই আর্শীবাদের জোরেই। এই ভালোবাসা শ্রদ্ধাটাই আমার সবচেয়ে বড় পাওয়া। এইভাবে ভালোবেসে যাবেন আমাদের সবাইকে।

চ্যানেল আই সব সময় তাদের পাশে থাকবে

SAGOR-SIR-ফরিদুর রেজা সাগর  ব্যবস্থাপনা পরিচালক, চ্যানেল আই

গত চার বছরে চ্যানেল আই ক্ষুদে গানরাজ প্রতিযোগিতা থেকে যারা বেরিয়েছে তারা আমাদের সঙ্গীতাঙ্গনে অত্যন্ত সাফল্য এবং দাপটের সঙ্গে গান করছে। আমি অভিনন্দন জানাই এবারের দুই বিচারককে। সেই সঙ্গে অভিনন্দন বুষ্টার এনার্জি বিস্কুট ও গ্লোব ফার্মাসিটিক্যাল গ্র“প অব কোম্পানিকে। এবার যারা সেরা সাত হয়েছে তারা সাফল্যের রাজপথে প্রবেশ করছে। কঠোর অনুশীলন ও মেধা-মননদিয়ে তারা একদিন সাফল্যের সিংহদারে প্রবেশ করবে। নতুনদের এই সিংহদ্বার খুলে দেয়ার জন্য চ্যানেল আই সদা প্রস্তুত। আজ যে সাতজন চূড়ান্ত প্রতিযোগিতাঁয় অংশ নিল তারা সবাই এখন চ্যানেল আই পরিবারের সদস্য এবং তাদের পাশে চ্যানেল আই সব সময় সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেবে। আমরা চাই শ্রোতা-দর্শক আপনারাও এই নতুনদের পাশে থাকবেন। সবাইকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।   গান নিয়ে আমার স্বপ্ন অনেক বড় Ðপুস্পিতা, চ্যাম্পিয়ন আমার অনুভ‚তি ঠিক গুছিয়ে বলতে পারবনা। মঞ্চে যখন ঘোষণা করা হলো বুষ্টার এনার্জি বিস্কুট চ্যানেল আই ক্ষুদে গানরাজ সিজন-৫ এর আমি চ্যাম্পিয়ন হয়েছি ওই মুহ‚র্তে বিশ্বাস করতে পারছিলাম না। যখন বুঝতে পারলাম চ্যাম্পিয়ন হিসেবে আমার নাম বলা হয়েছে তখন আনন্দে কান্না পাচ্ছিল। তবে আমার ভেতরে আত্মবিশ্বাস ছিল এই সিজনে একটা স্থান করে নিতে পারব। গান নিয়ে আমার স্বপ্ন অনেক বড়। আমার স্বপ্ন প্রথমে একজন ভালো মানুষ হওয়া, পাশাপাশি ভালো একজন শিল্পী হওয়ার ইচ্ছে আছে। পুষ্পিতার পুরো নাম নুজহাত সাবিহা পুষ্পিতা। উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুল এন্ড কলেজে ৭ম শ্রেণীতে পড়ছে। তার বাবার নাম আহমেদ কবিরুল ইসলাম। মায়ের নাম নুসরাত জাহান। গ্রামের বাড়ি গাইবান্ধা।   গানে প্রতিষ্ঠিত হতে চাই Ðরাফতি, প্রথম রানারআপ আমার আত্মবিশ্বাস ছিল আমি বুষ্টার এনার্জি বিস্কুট চ্যানেল আই ক্ষুদে গানরাজ সিজন-৫ তে একটা স্থান করে নিতে পারব। প্রথম রানারআপ হতে পেরে আমি ভীষন খুশি হয়েছি। তবে আশা করেছিলাম চ্যাম্পয়ন হব। কিন্তু হতে পারলাম না বলে আমার কোনো আফসোস নেই। আমি লেখাপড়ার পাশাপাশি গানে প্রতিষ্ঠিত হতে চাই। আমার স্বপ্ন একজন ভালো সঙ্গীত শিল্পী হওয়া। রাফতির পুরো নাম রায়া শারমীলা ইসলাম রাফতি। দেশের বাড়ি বগুড়া। রাফতি বগুড়ার ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের চতুর্থ শ্রেনিতে পড়াশোনা করছে। তার বাবার নাম ডা: শফিকুল ইসলাম এবং মায়ের নাম সুমনা ইসলাম। তার গ্রামের বাড়ি বগুড়া।   ভালো শিল্পী হওয়ার স্বপ্ন দেখি Ðমাহিন, দ্বিতীয় রানারআপ সবার মতো আমারও স্বপ্ন ছিল চ্যাম্পিয়ন হওয়ার। তব্রুও দ্বিতীয় রানার আপ হতে পেরে খুবই ভালো লাগছে। এখন আমার একমাত্র স্বপ্ন ভালো একজন শিল্পী হওয়া। মাহিনের পুরোনাম মাহফুজ আহমেদ মাহিন। ময়মনসিংহ জেলা পরিষদ উচ্চ বিদ্যালয়ে সপ্তম শ্রেনিতে পড়ছে। তার বাবার নাম ফুলমিয়া, মায়ের নাম শেফালি আক্তার তার। গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহ সদরে।

রুনা লায়লাকে সম্মান জানিয়ে আমরা সম্মানিত হচ্ছি

shaikh-sirajশাইখ সিরাজ  পরিচালক ও বার্তা প্রধান, চ্যানেল আই

সেরাকণ্ঠের অতিথি বিচারক হিসেবে রুনা লায়লা আমাদেরকে তার মেধা মনন, দক্ষতা সব কিছু দিয়ে আন্তরিক সহযোগিতা করেছেন। গত ৫০ বছর দেশে এবং দেশের বাইরে বাংলাদেশ, বাংলাদেশের সঙ্গীত, সংস্কৃতিকে যেভাবে তিনি তুলে ধরেছেন তার ঋণ এই ছোট্ট অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে কখনো শোধ করা যাবে না। যে শিল্পী ১০ হাজারেরও বেশি গান গেয়েছেন সেই শিল্পীর অবস্থান, খ্যাতি আমাদের আন্দোলিত করে। তাঁকে সম্মান জানিয়ে আমরা সম্মানিত হচ্ছি। চ্যানেল আই রুনা লায়লার মতোই দীর্ঘ দিন ধরে চেষ্টা করে যাচ্ছে আমাদের দেশের বিভিন্ন অঙ্গনে শিল্পী তৈরি করতে। ইতিমধ্যে ক্ষুদে গানরাজ, সেরাকণ্ঠের মতো রিয়েলিটি শোর মধ্য দিয়ে অনেক শিল্পী তৈরি হয়েছে। একই ভাবে নাট্যাঙ্গন, মডেলিং জগত সহ সব জায়গায় সবার সহযোগিতায় আমরা শিল্পী তৈরি করতে পারছি এবং শোবিজকে বড় করছি। বুষ্টার এনার্জি বিস্কুট কর্তৃপক্ষ চ্যানেল আই ক্ষুদে গানরাজ এর সাথে থাকার জন্য অনেক ধন্যবাদ। চ্যানেল আই পরিবারের পক্ষ থেকে রুনা লায়লাকে অনেক অনেক শুভেচ্ছা, শ্রদ্ধা এবং ভালোবাসা।

চ্যানেল আইকে অনেক ধন্যবাদ

HARUN-UR-ROSHIDমো: হারুনুর রশিদ  চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক, গ্লোব ফার্মাসিটিক্যাল গ্রপ অব কোম্পানী

আমরা এই প্রথম চ্যানেল আইয়ের ক্ষুদে গানরাজের সাথে যুক্ত হয়েছি। আমরা এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আমাদের বুষ্টার এনার্জি বিস্কুটকে মানুষের মাঝে তুলে ধরতে পেরেছি। এই জন্য আমি বিশেষ ভাবে ধন্যবাদ জানাই এবং কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি চ্যানেল আইকে। তারা এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আমাদের দেশের প্রতিভাবান ছেলে মেয়েদেরকে একটা প্লাটফর্মে এনে প্রতিযোগিতার মাধ্যমে আমাদের সাংস্কৃতিক অঙ্গনকে আলোকিত করছে এবং সাংস্কৃতিক অঙ্গন সমৃদ্ধ হচ্ছে। শিশুদের জন্য চ্যানেল আইয়ের এই উদ্যোগকে আমি স্বাগত জানাই। এর আগে আমরা ফিজআপ নিয়ে সেরাকণ্ঠের সাথে ছিলাম। আশা করি আগামীতে সেরা নাচিয়ের সাথেও থাকব।

আগামীতে এরাই গানের ভুবন মাতাবে

AZAJ-KHAN-SHOPON-(13)ইজাজ খান স্বপ্ন  পরিচালক, বুষ্টার এনার্জি বিস্কুট চ্যানেল আই ক্ষুদে গানরাজ ২০১৫

এবারের বুষ্টার এনার্জি বিস্কুট চ্যানেল আই ক্ষুদে গান রাজ প্রতিযোগিতায় পুরো বাংলাদেশ থেকে ৬৫ হাজারের বেশি প্রতিযোগী রেজিস্টেশন করেছিল। বাছাই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে গ্র্যান্ড ফিনালেতে মাত্র সাতজন মেধার লড়াই করে শ্রেষ্ঠত্বের জন্য। আমি মনে করি এত গুলো প্রতিযোগী থেকে যে সাতজন টিকে ছিল তারা প্রত্যেকেই শ্রেষ্ঠ। হয়তো একজনের আরেক জনের চাইতে উনিশ-বিশ পাথক্য। বুষ্টার এনার্জি বিস্কুট চ্যানেল আই ক্ষুদে গান রাজ প্রতিযোগিতার পরিচালক হিসেবে বলছি না, একজন সাধারণ মানুষ হিসেবেও আমার অবজারভেশন হলো এবার অনেক প্রতিভাসম্পন্ন শিশু প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিল। যারা একটু আধুটু ঘাটতির জন্য বাদ পড়েছে। আমার বিশ্বাস তারা এখান থেকে যে প্রশিক্ষণ পেয়েছে সেটা পুঁজি করে তাদের মেধামনন দিয়ে আগামীতে গানের ভ‚বনে নিজেদের যোগ্যতা প্রমাণ করতে পারবে। যারা চ্যাম্পিয়ন, প্রথম রানার আপ, দ্বিতীয় রানার আপ হয়েছে তাদের এবং এই প্রতিযোগিতার  প্রতিটি প্রতিযোগীকে আমার আন্তরিক অভিনন্দন জানাই।

কে কি পুরস্কার পেল চ্যাম্পিয়ন পুষ্পিতা পেয়েছে নগদ পাঁচ লাখ টাকার চেক ও একটি গিফট হ্যাম্পার এবং ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ডের সৌজন্যে একটি ডায়মন্ডের মুকুট। প্রথম রানারআপ রাফতি পেয়েছে নগদ ৩ লাখ টাকার চেক ও একটি গিফট হ্যাম্পার, দ্বিতীয় রানারআপ মাহিন পেয়েছে নগদ ২ লাখ টাকার চেক ও একটি গিফট হ্যাম্পার। এই তিন সেরা ক্ষুদে গানরাজ আরো পাবে ইমপ্রেস অডিও ভিশনের অ্যালবামে গান গাওয়ার সুযোগ। আনন্দ আলো ও সাপ্তাহিকে নিউজ কাভারেজের সুযোগ। এছাড়া ইমপ্রেসের সিনেমা ও চ্যানেল আই-এর বিভিন্ন অনুষ্ঠানে গান গাওয়ার সুযোগ পাবে তারা।  বুষ্টার এনার্জি বিস্কুট চ্যানেল আই ক্ষুদে গানরাজ ২০১৫ এর মহাউৎসবে মেকআপ পার্টনার ছিল পারসোনা, হেলথ পার্টনার জাপান বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশীপ হাসপাতাল, রেডিও পার্টনার রেডিও ভ‚মি, ম্যাগাজিন পার্টনার আনন্দ আলো ও সাপ্তাহিক।