Home এক্সক্লুসিভ বছরজুড়ে তারকাদের বিয়ে

বছরজুড়ে তারকাদের বিয়ে

SHARE

২০১৯ সালে অনেক তারকা বিয়ে করেছেন। ১০টি বিয়ে ছিল বেশ আলোচিত… বছরের সবচেয়ে আলোচিত

সাবিলা বিয়ে করলেন
‘মাংকি বিজনেস’, ‘কাঁদব না’, ‘অবুঝ প্রজাপতি’, ‘এভাবেও ফিরে আসা যায়’, ‘ভালোবাসার ভূত ও ভবিষ্যৎ’, ‘ছ্যাঁকা খেয়ে ব্যাকা’ বা ‘ফালতু’ নাটকের অভিনয়শিল্পী সাবিলা নূরের জন্য ২৫ অক্টোবর শুক্রবার দিনটি ছিল খুব গুরুত্বপূর্ণ। কারণ দীর্ঘদিনের প্রেমিক নেহাল সুনন্দ তাহেরের সঙ্গে সেদিন তাঁর বিয়ে হয়। নেহাল বেসরকারি টিভি চ্যানেল এসএ টিভির ব্রডকাস্ট প্রকৌশলী।

বিয়ে মিথিলা-সৃজিতের!
২০১৯ সালে বাংলাদেশের সবচেয়ে আলোচিত বিয়ের ঘটনাটি ঘটে ৬ ডিসেম্বর। এই বিয়ে রীতিমতো ‘টক অব দ্য কান্ট্রি’র জন্ম দেয়। কলকাতার জনপ্রিয় পরিচালক সৃজিত মুখার্জির সাথে ঢাকার মিথিলার বিয়ে হয়।

চার বছর পর সত্য স্বীকার!
ছোট ও বড় পর্দার জনপ্রিয় অভিনয়শিল্পী জাকিয়া বারী মমর সঙ্গে ‘ছুঁয়ে দিলে মন’ ছবির নির্মাতা শিহাব শাহীনের বিয়ের খবর অনেক দিন গুঞ্জন হিসেবে ছিল। কিন্তু যা রটে তার কিছু তো বটে তত্ত্ব সত্যি করল ২০ ডিসেম্বরের একটি ফেসবুক স্ট্যাটাস। ছবিতে দেখা যায়, কেক কাটছেন শিহাব ও মম দম্পতি। আর শিহাব শাহীন ছবিটির ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘চতুর্থ বিবাহবার্ষিকীর শুভেচ্ছা জাকিয়া বারী মম’। ২০১৫ সালের ২০ নভেম্বর পারিবারিকভাবেই বিয়ে করেছেন করেছিলেন মম ও শিহাব শাহীন। অথচ এতদিন বিয়ের কথা অস্বীকার করে আসছিলেন! এটি দুজনেরই দ্বিতীয় বিয়ে।

অপুকেই বিয়ে করলেন ফারিয়া
‘দেবী’ ছবির অভিনয়শিল্পী শবনম ফারিয়া আর হারুনুর রশীদ অপুর প্রেমের গল্পটা মিলে যাবে দেশের অনেক তরুণ-তরুণীর প্রেমের সঙ্গে। ২০১৫ সালে ফেসবুকে অপুর সঙ্গে পরিচয় হয় শবনম ফারিয়ার। দুজনের বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে। বিয়েটা হওয়ার কথা ছিল ২০১৭ সালের শুরুতে। ওই সময় অপুর বাবা মারা যাওয়ার কারণে পিছিয়ে যায় বিয়ে। এর এক বছরের মাথায় শবনম ফারিয়ার বাবা মারা যান। এসব কারণে বিয়ে পিছিয়ে যায় ২ বছর। অবশেষে চলতি বছরের ১ ফেব্রুয়ারি সম্পন্ন হয় বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা।

ঈশানার বিয়ে
লাক্স তারকা ঈশানা খান দুই বছর প্রেম করছেন সারিফ চৌধুরীর সঙ্গে। সেই প্রেম পরিণতি পায় ১০ জুলাই বুধবার রাতে, রাজধানীর বনানী ক্লাবে। বিয়ের দুই দিন পরই স্বামীর সঙ্গে অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে পাড়ি জমান ঈশানা। আপাতত অভিনয় থেকে তিনি দূরে আছেন। সব মনোযোগ সংসারে। অভিনয়ে ফিরবেন কি না, এমন প্রশ্নের জবাব দিতে পারেননি ছোট পর্দার এই অভিনয়শিল্পী।

ফেসবুকে জানিয়ে দিল খবরটি
৯ অক্টোবর ছোট পর্দার পরিচিত মুখ আইরিন তানির ফেসবুকে রিলেশনশিপ স্ট্যাটাস বদলে গেল, ‘সিঙ্গেল’ থেকে হলো ‘গট ম্যারিড’। কবে, কখন, কীভাবে? ১০ অক্টোবর আইরিন জানান, তাঁদের বিয়ে হয়েছে ৩ অক্টোবর, পারিবারিকভাবে। বর চট্টগ্রামের ছেলে। আইরিনও চট্টগ্রামের হালিশহরের মেয়ে। বিয়েও সেখানেই হয়েছে। সাইফুল হক চৌধুরী ঢাকায় একটি বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানে চাকরি করছেন।

মা-বাবার পছন্দে
২০০৬ সালের ‘ক্লোজআপ ওয়ান তোমাকেই খুঁজছে বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতার অন্যতম প্রতিযোগী, এখন জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী, সুরকার ও সংগীত পরিচালক কিশোর বিয়ে করেছেন ১৪ নভেম্বর। রাজধানীর ইস্কাটনে লেডিস ক্লাবে বিয়ের পর অন্যান্য আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয় চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে। বউ স্নিগ্ধা দাস চট্টগ্রামের মেয়ে, অ্যাকাউন্টিংয়ে মাস্টার্স করেছেন।

হঠাৎ বিয়ে
বিয়ের জন্য নাকি মোটেও প্রস্তুত ছিলেন না চিত্রনায়িকা তমা মির্জা। দুই পরিবার নাকি জোর করে তাঁদের বিয়ে দিয়েছে। তমা মির্জার স্বামী হিশাম চিশতী কানাডার টরন্টোতে থাকেন। সেখানে তিনি আবাসন ব্যবসা ও রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত আছেন। জানা যায়, গত ৯ মার্চ সন্ধ্যায় হিশাম চিশতীর মা এসে তমার হাতে আংটি পরিয়ে যান। ৬ মে রাজধানীর গুলশান এলাকার একটি কনভেনশন সেন্টারে বিয়ের অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়।

পুতুলের বিয়ে
‘ক্লোজআপ ওয়ান তোমাকেই খুঁজছে বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতার অন্যতম তারকা পুতুলের বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয় ২০ মার্চ। পুতুলের বর ইসলাম নুরুল কানাডায় সরকারি চাকুরে। ওয়েডিং ফটোগ্রাফির একটি এজেন্সি আছে তাঁর। বিয়ের ৮ মাস আগে পুতুলের বাড়িতে পারিবারিকভাবে এই বিয়ের সম্বন্ধ আসে। বিয়ের মাত্র ৩ দিন আগে দেখা হয় হবু বর-কনের। বিষয়টি এগিয়েছে পারিবারিকভাবে।

নীরবে কনার বিয়ে
একেবারে ঘরোয়া পরিবেশে পারিবারিক সদস্যদের নিয়ে গত ২১ এপ্রিল বিয়ে করেছেন সংগীতশিল্পী দিলশাদ নাহার কনা। বর গোলাম মো. ইফতেখারের বেড়ে ওঠা আর পড়াশোনা ঢাকায়, পেশায় ব্যবসায়ী। বন্ধুমহলে তিনি ‘গহীন’ নামে পরিচিত। দীর্ঘ সাত বছরের প্রেম গহীন ও কনার। প্রেম আর বিয়ে নিয়ে দীর্ঘদিন গণমাধ্যমের সঙ্গে লুকোচুরি খেলেছেন কনা।

ঢাকার এশার কলকাতার সাকির
মঞ্চ অভিনেত্রী, চলচ্চিত্র নির্মাতা ও প্রযোজক এশা ইউসুফ বিয়ে করেছেন এ বছর। ১১ অক্টোবর সন্ধ্যায় ভারতের কলকাতার ম্যারিয়ট হোটেলে পারিবারিকভাবে তাঁদের বিয়ের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। বর এশার বন্ধু, কলকাতার জনপ্রিয় ব্যান্ড ক্যাকটাসের গায়ক সাকি ব্যানার্জি। এশা ইউসুফের বিয়েতে বাবা সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব নাসির উদ্দীন ইউসুফ, মা শিমূল ইউসুফ ছাড়াও স্বল্প পরিসরের সেই আয়োজনে ছিলেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার, নৃত্যশিল্পী মিনু হক, রবীন্দ্রসংগীতশিল্পী ফারহিন খান জয়িতা, মঞ্চের অভিনেতা মোস্তাফিজ শাহীনসহ দুই পরিবারের সদস্যরা।