Home টি-২০ আড্ডা না ভাই মঙ্গলে যাওয়ার ইচ্ছা নাই -মাজনুন মিজান

না ভাই মঙ্গলে যাওয়ার ইচ্ছা নাই -মাজনুন মিজান

SHARE

মোহাম্মদ তারেক:

আনন্দ আলো: মাজনুন মিজান নামের অর্থ কী? এই নাম নিয়ে কী আপনি সন্তুষ্ট?

মাজনুন মিজান: মাজনুন নামের অর্থ পাগল আর মিজান নামের অর্থ দাড়িপাল্লা। হ্যাঁ এই নাম নিয়ে আমি খুবই সন্তুষ্ট।

আনন্দ আলো: এতকাজ থাকতে অভিনয়ে এলেন কেন?

মাজনুন মিজান: অভিনয় করার জন্য জন্মগ্রহণ করেছি। তাই অভিনয় করছি।

আনন্দ আলো: জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয় যে কাজ?

মাজনুন মিজান: এইডস-এর ব্যাপারে সচেতনতা মূলক বিজ্ঞাপন যদি লাইগ্যা যায় আমার অভিনয় জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয়।

আনন্দ আলো: দেশের টিভি চ্যানেল দেখেন? দেখলে কেন দেখেন? না দেখলে কেন দেখেন না?

মাজনুন মিজান: দেশের টিভি চ্যানেলের অনুষ্ঠান অবশ্যই দেখি। বিশেষ করে আমাদের নাটক বেশি দেখি। ভালো নাটক হলে ভালো লাগে।

আনন্দ আলো: একদিন সকালে ঘুম থেকে জেগেই দেখলেন নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ আপনার বাসার ড্রয়িংরুমে দাঁড়িয়ে আছেন। এই সময় কী করবেন?

মাজনুন মিজান: প্রথমে তাঁর পায়ে হাত দিয়ে সালাম করবো। তারপর আসলে পরিস্থিতি কী দাঁড়াবে বলতে পারছিনা…

আনন্দ আলো: সবাই বলে সকালে উঠিয়া আমি মনে মনে বলি সারাদিন আমি যেন ভালো হয়ে চলি। আপনি কী বলেন?

মাজনুন মিজান: সকালে উঠিয়া আমি মনে মনে বলি সারাদিন আমি যেন ভালো অভিনয় করি।

আনন্দ আলো: অভিনয় ছাড়া আর যা ভালো করতে পারেন?

মাজনুন মিজান: ফুটবল আর ক্রিকেট ভালো খেলতে পারি।

আনন্দ আলো: ধরা যাক কোনো গ্রামে আপনি শুটিং  করতে গেলেন। ক্যামেরা, লাইট, অ্যাকশন বলার সাথে সাথে আপনার সামনে একটি বাঘ হাজির হয়ে গেল। তখন আপনি কী করবেন?

মাজনুন মিজান: আগে নিজেকে রক্ষা করবো। নিজে বাঁচলে বাপের নাম…

আনন্দ আলো: গোপন কোন কথাটি স্ত্রীর কাছে বলেন না।

মাজনুন মিজান: না ভাই, স্ত্রীর কাছে কোনো কথা গোপন রাখি না। সব বলে দেই।

আনন্দ আলো: আপনার পাঁচটি ভালো গুণের কথা বলুন?

মাজনুন মিজান: আমার পাঁচটি ভালো গুণ হচ্ছে- আমি ভালো মানুষ। অল্পতেই মানুষকে বিশ্বাস করি। স্ত্রী সনত্মানকে প্রচণ্ড ভালোবাসি। আমি অভিনয়কে ভালোবাসি। আমার দেশকে ভালোবাসি।

আনন্দ আলো: আপনার পাঁচটি খারাপ গুণের কথা বলুন?

মাজনুন মিজান: আমার পাঁচটি খারাপ গুণ হচ্ছে- আমি ভালো ইংরেজি বলতে পারি না। মানুষের সাথে খারাপ ব্যবহার করতে পারি না। অভিনয়কে পেশা হিসেবে নিয়েছি এটা আসলে আমার মতো মধ্যবিত্ত পরিবারের ছেলেদের কাজ না; এটা অনেক ধর্ণাঢ্য ব্যক্তিদের পেশা। আমাদের চারদিকে সবাই আমি আমি ভাবছে, আর আমি ‘আমরা’ ভাবি। আমার দেশের ভালো চাই, দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হতে চাই।

আনন্দ আলো: আপনাকে একদিনের জন্য মঙ্গল গ্রহে পাঠানো হলো। কাকে সাথে নিতে চাইবেন?

মাজনুন মিজান: না ভাই মঙ্গল গ্রহে যাওয়ার কোনো ইচ্ছা নাই।

আনন্দ আলো: আপনার কাছে প্রেম কী?

মাজনুন মিজান: আমার কাছে প্রেম হচ্ছে বিশ্বাস।

আনন্দ আলো: যদি মেয়ে হয়ে জন্ম নিতেন?

মাজনুন মিজান: আমি কখনোই মেয়ে হয়ে জন্ম নিতে চাইনা।

আনন্দ আলো: কখন নিজের ওপর রাগ হয়?

মাজনুন মিজান: যখন দেখি চারদিকে প্রচুর অনিয়ম তখন নিজের ওপর রাগ হয়।

আনন্দ আলো: যে চরিত্র এখনো করা হয়নি?

মাজনুন মিজান: চলচ্চিত্রে মুক্তিযোদ্ধার চরিত্র।

আনন্দ আলো: ক্রিকেট খেলার সুযোগ পেলে আপনি ব্যাটসম্যান না বোলার হবেন?

মাজনুন মিজান: অলরাউন্ডার হবো।

আনন্দ আলো: আপনার প্রথম প্রেমের কথা দুলাইনে বলুন?

মাজনুন মিজান: আমার প্রেম একটাই। যার সাথে প্রেম করেছি তাকেই বিয়ে করেছি। স্ত্রীর নাম অনিতা বিশ্বাস মিলা। ও থাকতো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামসুন্নাহার হলে, আর আমি থাকতাম জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে। আমাদের প্রেম ছিল বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রিক।

আনন্দ আলো: যে প্রশ্ন শুনতে শুনতে ক্লানত্ম?

মাজনুন মিজান: পরিচিতিজনরা সবাই বলে ভাই অভিনয় করতে চাই।

আনন্দ আলো: লটারিতে যদি লাইগা যায় ১ কোটি টাকা। সেই টাকা দিয়ে কী করবেন?

মাজনুন মিজান: অর্ধেক টাকা আমার পরিবারকে দেব। আর অর্ধেক টাকা খরচ করবো শীতার্ত মানুষদের জন্য।