SHARE

ছোটপর্দার প্রিয় অভিনেত্রী তারিন জাহান। মডেলিং, নাচ ও গানেও রয়েছে তার পারদর্শিতা। ছোটবেলা থেকেই শোবিজকে আপন করে পথ চলছেন। কখনো থেমে থাকতে দেখা যায়নি তাকে। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে তারিন হয়ে উঠেছেন আরও পরিপক্ব। অভিনয়, গল্প ও চরিত্র নির্বাচন থেকে শুরু করে ব্যক্তিজীবন- সব জায়গাতেই তিনি আগের চেয়ে অনেক বেশি সাবধানী। তাই তো এখনো তারিনের কাজের প্রতি দর্শকের আলাদা আগ্রহ রয়েছে।
দীর্ঘ অভিনয় ক্যারিয়ারে মাত্র একটি সিনেমা মুক্তি পেয়েছে তারিনের। এখন দ্বিতীয় সিনেমা মুক্তির অপেক্ষায় এই গুণী তারকা। লকডাউন শুরুর আগেই কলকাতায় তার ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় সিনেমা ‘এটা আমাদের গল্প’-এর কাজ শেষ করে এসেছেন। মানসী সিনহা পরিচালিত এই ছবিতে প্রায় দেড় সপ্তাহ টানা কাজ করেছেন তারিন। তার অংশের দৃশ্য ধারণের কাজ শেষ। গত মার্চেই ডাবিং করার কথা ছিল। তার আগেই সব ওলট-পালট হয়ে গেল। দেশে ফিরেই লকডাউনের কারণে আর কোনো কাজ করতে পারেননি। তারিন বলেন, ‘এটি আমার ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ছবি। আমার চরিত্রটি এত সুন্দর যে আমি নিজেই অভিভূত। ছবির জন্য এক ধরনের অপেক্ষায় আছি। এর গল্পেও আমি বাংলাদেশের মেয়ে হিসেবেই অভিনয় করেছি।’
টানা তিন মাস ঘরবন্দি থাকলেও বেশকিছু কাজ দর্শকদের উপহার দেন তারিন। শিল্পীর দায়িত্ববোধ থেকে নানা ধরনের সচেতনতামূলক ভিডিওতে অংশ নিয়েছেন। নাচের ভিডিওতে অংশ নিয়েছেন। এমনকি বিটিভির জন্য ঈদ আনন্দমেলার উপস্থাপনাও করেছেন ঘরে বসেই। তবে গত সোমবার থেকে আবারও শ্যুটিংয়ে ফিরেছেন তারিন। অনেকদিন পর জুটি হয়ে অভিনয় করেছেন জাহিদ হাসানের সঙ্গে। নাটকের নাম ‘বনে ভোজন’। আরেক জনপ্রিয় অভিনেতা সাজু খাদেমের গল্পে এর নাট্যরূপ দিয়েছেন লিটু শাখাওয়াত। পরিচালনা করেছেন গোলাম সোহরাব দোদুল। পরিচালক জানান, গাজীপুরের একটি রিসোর্টে এর শ্যুটিং চলছে। গতকাল কাজ শেষ হয়েছে। নাটকের গল্প বাবা-ছেলেকে নিয়ে। যেখানে জাহিদ হাসান তিনটি চরিত্রে অভিনয় করছেন। আর তারিনকে দেখা যাবে জয়তুন নামের ষাটের দশকের এক নারী চরিত্রে। জাহিদ-তারিন জুটি ছাড়াও এ নাটকে আরও অভিনয় করছেন আরফান আহমেদ, আইরিন তানি, শাহেদ আলী সুজন, পায়েল, রিমু রেজা প্রমুখ। আসছে ঈদে একটি বেসরকারি চ্যানেলে নাটকটি প্রচার হবে। অনেকদিন পর জাহিদ হাসানের সঙ্গে অভিনয় নিয়ে তারিন বলেন, ‘জাহিদ ভাইয়ের সঙ্গে সর্বশেষ যুবরাজ খানের ‘খুব জানতে ইচ্ছা করে’ নাটকে অভিনয় করেছি। এরপর কেটে গেছে অনেকদিন। একসঙ্গে আর কাজ করা হয়ে ওঠেনি। পরিচালক দোদুল জানিয়েছেন, দর্শক আমাদের বিভিন্ন সময় জুটি হিসেবে দেখতে চেয়েছে। আর সেটা মাথায় রেখেই আমাদের নিয়ে এই নাটক নির্মাণ করছেন। প্রায় তিন মাস পর এ নাটকের মাধ্যমে অভিনয়ে ফিরেছি। গল্পটিও ভালো লিখেছেন সাজু।’ করোনার আগে ও পরে কাজের মধ্যে কোনো পার্থক্য অনুভব করলেন কি না জানতে চাইলে তারিন বলেন, ‘এখন তো বাসা থেকে বেরোতে গেলেই নানা ধরনের প্রস্তুতি নিতে হয়। মাস্ক, গ্লাভস পরে বেরুতে হয়। আর শ্যুটিং তো একটি বড় আয়োজনের কাজ। তাই আরও সতর্ক থাকতে হয়েছে। মাস্ক, গ্লাভস, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, স্প্রে সব সঙ্গে নিয়েই শ্যুটিং সেটে গিয়েছি। শটের বাইরে একা একটি রুমে থেকেছি। নিজের মেকাপ নিজেই করেছি। অন্য কলাকুশলীরাও সামাজিক দূরত্ব বজার রাখাসহ বারবার হাত ধোয়া, মাস্ক-গ্লাভস পরা এসব মেনে চলেছে। যতটা পারা যায় সতর্কতার সঙ্গেই কাজ করেছি।’

করোনাভাইরাসের দিনেও ঘরে বসেই অল্পবিস্তর কাজ করে যাচ্ছেন অভিনেত্রী তারিন জাহান। এ সময়ে করোনা সচেতনতার ভিডিও তৈরি ছাড়া আরও কিছু কাজ করেছেন তিনি।