Home টি-২০ আড্ডা দিল্লীর লাড্ডু খেয়ে পস্তানোই ভালো!-সমাপ্তি

দিল্লীর লাড্ডু খেয়ে পস্তানোই ভালো!-সমাপ্তি

SHARE
Somapti

মোহাম্মদ তারেক
আনন্দ আলো: আপনি কোথাকার সমাপ্তি?
সমাপ্তি: আমি আমার পরিবারের সমাপ্তি।
আনন্দ আলো: সমাপ্তি নামের অর্থ কি?
সমাপ্তি: সমাপ্তি নামের অর্থ শেষ।
আনন্দ আলো: এত কাজ থাকতে অভিনয় এলেন কেন?
সমাপ্তি: ছোটবেলা থেকে অভিনয়টা দেখে বড় হয়েছিতো। এটা ছাড়া অন্য কোনো কাজ শেখা হয়নি। যার কারনে অভিনয়ে আসা।
আনন্দ আলো: অভিনয় জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয় যে নাটকটি…
সমাপ্তি: ২০১৫ সালে মাসুদ সেজানের ‘লংমার্চ’ নাটকটি আমার জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয়।
আনন্দ আলো: প্রতিদিন ঘুম থেকে উঠে মনে মনে কী বলেন?
সমাপ্তি: মনে মনে বলি দিনটা যেন আমার ভালো যায়। যানজটে যেন না পড়ি।
আনন্দ আলো: আপনার অভিনীত প্রথম নাটক…
সমাপ্তি: আমি তখন ক্লাস সিক্সে পড়তাম। ওই সময় বিটিভিতে আমি প্রথম নাটকে অভিনয় করেছিলাম। নাটকের নাম ‘শঙ্কিত পদযাত্রা’। এটি প্রযোজনা করেছিলেন খ ম হারুন। নাটকটিতে অভিনয় করেছিলেন জাহিদ হাসান, বিপাশা হায়াত। প্রথম নাটকে অভিনয়ের সময় খুব ভয় পেয়েছিলাম। তবে খ ম হারুন ভাই ও জাহিদ ভাই আমাকে সাহস যুগিয়েছিলেন এজন্য নাটকে আমার চরিত্রটি বোধকরি সুন্দর ভাবে ফুটিয়ে তুলতে পেরেছিলাম। সাত পর্বের ধারাবাহিক নাটকে অভিনয়ের জন্য আমি ৪৯০০ টাকা পারিশ্রমিক পেয়েছিলাম।
আনন্দ আলো: একদিন সকালে ঘুম থেকে জেগে দেখলেন আপনার বিছানায় এক কোটি টাকা পড়ে আছে। সে টাকা দিয়ে কী করবেন?
সমাপ্তি: আগে যাচাই বাচাই করব টাকাগুলো কী আসল না নকল।
আনন্দ আলো: পত্রিকার যে অংশটি আগে পড়া হয়?
সমাপ্তি: প্রথমেই বিনোদনের খবর পড়ি। এরপর দেখি পত্রিকার হেড লাইন ও খেলার খবর।
আনন্দ আলো: কোনো গ্রামে আপনি শুটিং করতে গেলেন। ক্যামেরা, লাইট, অ্যাকশন বলার সঙ্গে সঙ্গে আপনার সামনে একটা রয়েল বেঙ্গল টাইগার এসে পড়ল। তখন কী করবেন?
সমাপ্তি: এদিক ওদিক তাকিয়ে দৌড় দিব উল্টা দিকে। রয়েল বেঙ্গল টাইগার বলে কথা।
আনন্দ আলো: আপনাকে একদিনের জন্য মঙ্গলগ্রহে পাঠানো হলো। কাকে সঙ্গে নিতে চাইবেন?
সমাপ্তি: মঙ্গলগ্রহে যাওয়ার সময় মোবাইল সঙ্গে নিয়ে যাব কারণ সেলফি তোলাটা মিস করা যাবে না।

আনন্দ আলো: যে সিনেমা দেখে প্রচন্ড কেঁদেছেন…
সমাপ্তি: অনেক সিনেমা দেখে আমি কেঁদেছি। তবে ইমপ্রেস টেলিফিল্ম প্রযোজিত তৌকীর আহমেদ পরিচালিত ‘অজ্ঞাতনামা’ সিনেমাটি দেখে আমি প্রচন্ড কেঁদেছি।
আনন্দ আলো: আপনার অভিনীত নাটকের কোন সংলাপটি এখনো হৃদয়ে গেঁথে আছে?
সমাপ্তি: অনিমেষ আইচের ‘ভয়ংকর সুন্দর’ সিনোমায় আমি একজনকে বলি, সকালে দেখলাম একটা মাইয়ারে লইয়া হাইট্টা যাইতাছোস। মাইয়াডা কেরে? পরে আমাকে অনেক কথা শুনতে হয়েছে ‘মাইয়াডা কেরে’?
আনন্দ আলো: জীবনের যে সময়টা ফ্রেমে বন্দী করে রাখার মতো…
সমাপ্তি: আমার ছেলে যখন পৃথিবীতে এলো। সন্তানকে প্রথম কোলে নেওয়ার মুহূর্তের সময়টা ফ্রেমে বন্দী রাখার মতো।
আনন্দ আলো: মিডিয়ার যে ব্যাপারটা ভালো লাগে না?
সমাপ্তি: এখানে কমিটমেন্টের অভাব। এটাই ভালো লাগে না।
আনন্দ আলো: খুব রেগে যান যখন….
সমাপ্তি: কেউ বিশ্বাস নষ্ট করলে বা মিথ্যা কথা বললে আমি প্রচন্ড রেগে যাই।
আনন্দ আলো: কিসের সীমাবদ্ধতা থাকা দরকার?
সমাপ্তি: প্রেমের ক্ষেত্রে সীমাবদ্ধতা থাকা দরকার। কারণ কখন যে আমরা প্রেমে পড়ে যাই বলতে পারি না।
আনন্দ আলো: সংসারে কে বেশি সেক্রিফাইস করে আপনি না স্ত্রী?
সমাপ্তি: অবশ্যই আমার স্ত্রী। আমরা তো সংসারে সময় দিতে পারিনা। সকালে বের হই গভীর রাতে বাসায় আসি। আমাদের অফ ডে বলে কিছু নেই। প্রতিদিন শুটিং নিয়ে ব্যস্ত থাকতে হয়। সেক্রিফাইহ করছে আমার স্ত্রী, আমার বাবা-মা করছে। আমরা পরিবারকে তেমন একটা সময় দিতে পারিনা। তারপরেও আমাদেরকে ভালোবাসে, নীরবে সাপোর্ট দিয়ে যাচ্ছে।
আনন্দ আলো: শোনা কথা আপনি নাকি স্ত্রীকে ভয় পান। ঘটনা কী?
সমাপ্তি: ভাইরে কি আর কমু, অসম্ভব ভয় পাই। তবে আপনি জানলেন কেমনে? হা…হা…হা…
আনন্দ আলো: বিয়েকে কেউ কেউ আদর করে বলেন, দিল্লিকা লাড্ডু… যে খায় সেও পস্তায়, যে খায় না সেও পস্তায়। মন্তব্য কী?
সমাপ্তি: খেয়ে পস্তানোই ভালো। কমপক্ষে দিল্লিকা লাড্ডু খাওয়া তো হবে।
আনন্দ আলো: সমাপ্তির সবচেয়ে বাজে অভ্যাস…
সমাপ্তি: ভাইরে আমার প্রচন্ড রাগ। এটা আমার সবচেয়ে বাজে একটা অভ্যাস।