Home টি-২০ আড্ডা তুই এতো লম্বু কেন রে!-তানভীর

তুই এতো লম্বু কেন রে!-তানভীর

SHARE

মোহাম্মদ তারেক
আনন্দ আলো: আপনি কি তানভীর?
তানভীর: হ্যা, আমি গোলাম কিবরিয়া তানভীর
আনন্দ আলো: এত কাজ থাকতে অভিনয়ে এলেন কেন?
তানভীর: ছোটবেলা থেকেই অভিনয়ের প্রতি আমার ভালোবাসা জন্মায়। সেই ভালোবাসা থেকেই অভিনয়ে আসা।
আনন্দ আলো: জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয় যে কাজটি…
তানভীর: সৈয়দ আওলাদের পরিচালনায় ‘গুলশান এভিনিউ’ ধারাবাহিক নাটকটি আমার জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয়।
আনন্দ আলো: ছোটবেলায় কী হতে চেয়েছিলেন?
তারভীন: ছোটবেলায় বিজনেস ম্যান হতে চেয়েছিলাম। কিন্তু হয়ে গেছি অভিনেতা।
আনন্দ আলো: কোনো গ্রামে আপনি শুটিং করতে গেলেন। ক্যামেরা, লাইট, অ্যাকশন বলার সঙ্গে সঙ্গে আপনার সামনে বনের রাজা সিংহ হাজির হয়ে গেল, তখন আপনি কী করবেন?
তানভীর: সিংহ তো শুধু বনের রাজা। আমার সামনে আসবে না। এই শীতে গ্রামে কী কাজ তার?
আনন্দ আলো: আপনার অভিনীত প্রথম নাটক…
তানভীর: আমার অভিনীত প্রথম নাটক ‘পাশাপাশি’। এটি ছিল একটি ধারাবাহিক। পরিচালনা করেছিলেন আবু সায়েদ। আর একক নাটক ছিল আরিফ খানের ‘দাদিমা ও কিছু শালিক’। ঈদের এই নাটকটি চ্যানেল আইতে প্রচার হয়েছিল।
আনন্দ আলো: বন্ধুরা যে কারণে খ্যাপায়…
তানভীর: তুই এতো লম্বা কেনরে? আমার উচ্চতা নিয়ে বন্ধুরা বেশি খ্যাপায়।
আনন্দ আলো: যে সিনেমা দেখে কেঁদেছেন…
তানভীর: অনেক সিনেমা দেখে আমি কেঁদেছি। তবে ‘ছুটির ঘণ্টা’ ছবিটি দেখে আমি প্রচণ্ড কেঁদেছি।
আনন্দ আলো: যে নাটক দেখে প্রচন্ড হেসেছেন…
তানভীর: হুমায়ূন আহমেদের নাটক গুলো আমাকে অনেক হাসিয়েছে। ‘বহুব্রাহি’ নাটকটি দেখে প্রচন্ড হেসেছি।

আনন্দ আলো: অভিনয় ছাড়া আর যা ভালো করতে পারেন?
তানভীর: আরজে আর উপস্থাপনা ভালো করতে পারি।
আনন্দ আলো: জীবনের যে সময়টা ফ্রেমে বন্দি করে রাখার মতো…
তানভীর: আমার মেয়ে জন্মের সময়টা। আমায়রাকে প্রথম যখন কোলে নেই ওই সময়টা ফ্রেমে বন্দি করে রাখার মতো।
আনন্দ আলো: এখনো যার প্রেমে মশগুল…
তানভীর: আমার পরিবার এবং কাজ। এই নিয়ে আমি এখনো মশগুল।
আনন্দ আলো: রেগে গেলে যা করি…
তানভীর: নিজেকে কন্ট্রোল করার চেষ্টা করি। তারপর কিছুক্ষণ একা থাকি।
আনন্দ আলো: মিডিয়ার যে ব্যাপারটা ভালো লাগে না?
তানভীর: মানুষের বদনাম নিয়ে আড়ালে কথা বলাÑ এই ব্যাপারটা ভালো লাগে না।
আনন্দ আলো: আপনার চোখে চমৎকার জুটি…
তানভীর: তৌকার আহমেদ বিপাশ হায়াত।
আনন্দ আলো: পৃথিবী থেকে ব্যাংক উঠে গেলে নিজের টাকা গুলো কোথায় রাখবেন?
তানভীর: ব্যাংক উঠে গেলে কী আর করা। টাকা গুলো বউ এর কাছে রাখবো।
আনন্দ আলো: হঠাৎ দেখে চমকে উঠা…
তানভীর: অনেক দিন পর পুরনো বন্ধুদের সঙ্গে দেখা হলে চমকে উঠি।
আনন্দ আলো: নিজের সবচেয়ে দূবর্ল দিক।
তানভীর: আমি অনেক বেশি ইমোশনাল।
আনন্দ আলো: শোনা কথা আপনি নাকি স্ত্রীকে ভয় পান?
তানভীর: শুধু আমি নারে ভাই সবাই স্ত্রীকে ভয় পায়।
আনন্দ আলো: গোপন কোন কথাটি স্ত্রীর কাছে বলেন না?
তানভীর: না ভাই, স্ত্রীর কাছে কোনো কথা গোপন রাখি না। সব বলে দেই।