Home প্রতিবেদন গানে গানে দর্শক মাতালো এলআরবি

গানে গানে দর্শক মাতালো এলআরবি

SHARE
LRB

মোহাম্মদ তারেক

‘২৫ বছর দীর্ঘ সময়। এতটা পথ পাড়ি দেয়া সম্ভব হয়েছে কেবল শ্রোতাদের ভালোবাসার কারণে। গান পাগল মানুষ, যারা এলআরবিকে ভালোবাসেন, তাদের কথা ভেবে অনেক ত্যাগ স্বীকার করতে হয়েছে। ২৫ বছর পর সেই সব ভক্ত-শ্রোতার কথা ভেবেই এ কনসার্টের আয়োজন। ভক্ত- শ্রোতারা আমাদের হৃদয়ের স্পন্দন। তাদের সমর্থন না পেলে ২৫ বছর গান বাজনা করে যাওয়া সম্ভব হতো না। এলআরবির আজকের এই অবস্থানের পেছনে আমাদের বন্ধু-বান্ধব, আমাদের গান পাগল ভক্তরা, আমাদের গানের গীতিকার এবং আমাদের প্রত্যেকের পরিবারের সদস্যদের অবদান আছে অবশ্যই। কারণ সবার অকৃত্রিম সহযোগিতায় গড়ে উঠেছে আজকের এলআরবি। সবাই ভালোবাসা দিয়ে আমাদের দায়িত্ববোধের জায়গাটা আরও বাড়িয়ে দিয়েছেন। আমাদের ২৫ বছর রজত জয়নৱীর কনসার্টটি স্মরণীয় হয়ে থাকবে। আমাদের পাশে থাকার জন্য ভক্তদের অনেক ধন্যবাদ। আমরা সবাইকে ভালোবাসি।

কথাগুলো বলেছেন দেশের শীর্ষ ব্যান্ড এলআরবির দলনেতা আইয়ুব বাচ্চু। পঁচিশ বছর পূর্ণ করল এলআরবি। ১৯৯১ সালের ৫ এপ্রিল রকস্টার আইয়ুব বাচ্চুর নেতৃত্বে গড়ে ওঠে জনপ্রিয় এই ব্যান্ডটি। এরই মধ্যে পেরিয়ে গেছে ২৫টি বছর। এলআরবির জন্য এই ২৫ বছর অনেক অহংকারের, অনেক গৌরবের। এ সময় অসংখ্য জনপ্রিয় গান উপহার দিয়ে ব্যান্ডটি বাংলাদেশ-ভারত-ইউরোপ-অস্ট্রেলিয়া-কানাডা যেখানেই বাংলাভাষী রয়েছেন এমন লাখো-কোটি শ্রোতার হৃদয়ে স্থায়ী আসন গাড়তে সক্ষম হয়েছে। গত বছর ব্যান্ডটি ২৫ বছর পার করেছে। এ উপলক্ষে এলআরবি মহাসমারোহে রজত জয়নৱী উদযাপন করেছে দেশে-বিদেশে। অস্ট্রেলিয়া ও কানাডা মাতিয়ে এসেছে ব্যান্ড দলটি। এবার মাতাল নিজ জন্মভূমি বাংলাদেশকে।

২০ ডিসেম্বর, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজধানীর বসুন্ধরা ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টারের নবরাত্রি মিলনায়তনে দেশের শীর্ষ ব্যান্ড এলআরবির ২৫ বছর রজত জয়নৱী কনসার্ট অনুষ্ঠিত হয়। জাঁকজমকপূর্ণ আয়োজনের এ কনসার্টটি অনুষ্ঠিত হয় মুঠোফোন কোম্পানি রবির পরিবেশনায়। আয়োজনে ছিল উইজার্ড শোবিজ।

কনসার্ট শুরুর কয়েক ঘণ্টা আগে থেকেই ভিড় বাড়তে থাকে নবরাত্রি হলের সামনে। বিকাল ৫টার মধ্যে কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায় কনসার্ট স্থল। শ্রোতাদের বেশির ভাগই ছিল তরুণ। টিকেটের কনসার্ট হলেও ছাত্রদের এতে প্রবেশের অনুমতির বিষয়ে আয়োজক কর্তৃপক্ষকে আগেই অনুরোধ করেছিলেন ব্যান্ড লিজেল্ড আইয়ুব বাচ্চু। আর সে কারণে কনসার্ট স্থলে ভিড়ও ছিল অনেক বেশি। শত শত দর্শক-শ্রোতা অধীর অপেক্ষার প্রহর গুণেছে কখন আসবেন তাদের প্রিয় তারকা। শোনাবেন তাদের পছন্দের গানগুলো। সন্ধ্যা সোয়া ৬টায় স্বমহিমায় স্টেজে আসে- এলআরবি। বরাবরের মতো কালো রংয়ের টি-শার্ট পরে স্টেজে ব্যান্ডের সদস্যরা হাজির হন বর্ণিল আলোর ঝলকানিতে। এলআরবির দলনেতা আইয়ুব বাচ্চু হাত নাড়তেই দর্শকের করতালিতে মুখরিত হয়ে উঠে মিলনায়তনের চারপাশ। নানা চমকে পরিপূর্ণ ছিল এলআরবির ২৫ বছর রজত জয়নৱী এ কনসার্টটি।

আইয়ুব বাচ্চু একের পর এক গেয়ে শোনান মাধবী, সুখ, হাসতে দেখ গাইতে দেখ, তারা ভরা রাতে, ঘুমন্ত শহরে, চল বদলে যাই, মন চাইলে মন পাবে, এখন অনেক রাত, রূপালি গিটার, বাংলাদেশসহ নতুন-পুরাতন মিলিয়ে অসংখ্য গান। শুধু নিজেদের জনপ্রিয় গানই নয়, কনসার্টে আইয়ুব বাচ্চুর গিটারের সুরের মূর্ছনাও কনসার্টটিতে অন্যমাত্রা এনে দিয়েছিল। আয়োজনটি আরও বেশি বর্ণিল হয়ে উঠে যখন আইয়ুব বাচ্চুর সঙ্গে তার ছেলে আহনাফ তাজোয়ার আইয়ুবের গিটারের ঝংকার। বাপ- বেটার গিটার মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে উপভোগ করেছেন দর্শক। করতালিতে বারবার আইয়ুব বাচ্চু ও তার পুত্রকে অভিবাদন জানিয়েছেন তারা। হাজারো দর্শক এলআরবির গানের সঙ্গে গলা মিলিয়েছে। উম্মাদনায় ভেসেছে তারুণ্য। ৫ ঘণ্টা ব্যাপী এলআরবির গান ও দলনেতা আইয়ুব বাচ্চুর গিটারের জাদুতে অন্যরকম একটি সন্ধ্যা অতিবাহিত করেছেন শ্রোতা-দর্শক। অনেক শ্রোতাই বলেছেন- একেই বলে ব্যান্ড। একেই বলে গান। এদিকে আইয়ুব বাচ্চু গান গাওয়ার ফাঁকে ফাঁকে শুধু একটি কথাই শ্রোতাদের উদ্দেশে বলেছেন- ইউ আর মাই অক্সিজেন।

এলআরবিকে শুভেচ্ছা জানাতে এসেছিলেন চ্যানেল আই-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, বিশিষ্ট অভিনেতা ও নির্মাতা আফজাল হোসেন। এসেছিলেন ব্যান্ড দলটির পুরনো সদস্যরা। তারাও শুভাশিস জানিয়েছেন এলআরবিকে। ২৫ বছর হলেও ব্যান্ডটি একই উদ্যমে গান পরিবেশন করে চলেছে। যুগ থেকে যুগে, প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে এলআরবি তাদের যাত্রা অব্যাহত রাখুক- এমনটাই প্রত্যাশা ভক্তদের। এলআরবির বর্তমান লাইনআপ: আইয়ুব বাচ্চু (গিটার ও ভোকাল) স্বপন (বেজ) মাসুদ (লিড গিটার) রোমেল (ড্রামস) ও শামীম (ব্যবস্থাপক)।