SHARE
sabina-yasmin

সাবিনা ইয়াসমিনের হৃদয়ে লালন সাঁই

এবার ঈদে ইমপ্রেস অডিও ভিশনের ব্যানারে প্রকাশিত হয়েছে লালনের গান নিয়ে অ্যালবাম ‘হৃদয়ে লালন সাঁই’। অ্যালবামে গান রয়েছে মোট নয়টি। গানগুলো হলো- কবে সাধুর চরণধূলি, খাঁচার ভেতর অচিন পাখি, আমার এই ঘরখানায় কে বিরাজ করে, দয়াল নিতাই কারো ফেলে যাবে না, ক্ষমো অপরাধ, জাত গেল জাত গেল বলে, রাত পোহালে পাখি বলে, পারে কে যাবি নবীর নৌকাতে আয় এবং তিন পাগলের হলো মেলা। সঙ্গীতায়োজন করেছেন কলকাতার রকেট মণ্ডল। সার্বিক তত্ত্বাবধানে জাহাঙ্গীর সাঈদ। সাবিনা ইয়াসমিন বলেন, যখন হাতে খড়ি তখন থেকেই লালন সাঁইয়ের গান গুণ গুণ করে গাইতাম। খুব ইচ্ছা ছিল তার গান নিয়ে একটি অ্যালবাম করবো। করতে পেরে খুব ভালো লাগছে। মনের ভেতর শানিৱ কাজ করছে। এর আগে ছবিতে এবং মিক্সড অ্যালবামে লালনের তিন চারটি গানে কণ্ঠ দিয়েছিলেন সাবিনা।

ঈশিতার সঙ্গীত ভুবনে ফেরা

ishetaটিভি পর্দায় অভিনেতা হিসেবে বেশ সুখ্যাতির পাশাপাশি গানেও রয়েছে তার দারুণ দক্ষতা। ২০০২ সালে তার প্রথম একক অ্যালবাম ‘রাত নিঝুম’ প্রকাশ হয়েছিল। এরপর আর নতুন কোনো অ্যালবাম নিয়ে আসেননি তিনি। বলা হচ্ছে জনপ্রিয় অভিনেত্রী গায়িকা রুমানা রশীদ ঈশিতার কথা। ১৪ বছর কোনো অ্যালবাম প্রকাশ না করলেও সঙ্গীত চর্চা থেকে দূরে সরে যাননি তিনি। এখনো উচ্চাঙ্গ সঙ্গীত চর্চা করছেন। সে সঙ্গে তালিম নিচ্ছেন রবীন্দ্র ও নজরুল সঙ্গীতের ওপর। এতদিন ব্যক্তিগত ব্যস্ততার কারণে গানে নিয়মিত থাকতে পারেননি ঈশিতা। তবে এবার নতুন একটি অ্যালবাম নিয়ে হাজির হচ্ছেন তিনি। গানে ফেরা প্রসঙ্গে ঈশিতা বলেন, আমি গানেরই শিল্পী। মিডিয়াতে গান দিয়েই যাত্রা  নতুন অ্যালবামের কাজ শুরু করবো শিগগিরই। বলতে পারেন সঙ্গীতের প্রতি ভালোবাসা থেকেই গানে ফিরছি। সেজন্য নিজেকে প্রস্তুত করছি। আশা করছি শ্রোতাদের জন্য ভালো কিছু উপহার দিতে পারবো।

ফেরদৌস ওয়াহিদের ও সখিনা

ferdous-wahidদীর্ঘ সময় ধরে একক অ্যালবাম নেই কিংবদনিৱ শিল্পী ফেরদৌস ওয়াহিদের। তবে এবার অনেকদিন পর একক অ্যালবামের কাজ করেছেন তিনি। অ্যালবামটির নাম ‘ও সখিনা’। তিনটি গান নিয়ে এ অ্যালবামটি ঈদে প্রকাশিত হয়েছে। এ অ্যালবামের তিনটি গানের কথা ও সুর করেছেন এস আই শহীদ। আর সঙ্গীতায়োজন করেছেন রাব্বি আরবি। অ্যালবামটি প্রকাশ করেছে ডিএম এমএল মিউজিক। অ্যালবামটি প্রসঙ্গে ফেরদৌস ওয়াহিদ বলেন, অনেক দিন পর নতুন অ্যালবামের কাজ করলাম। গানগুলোর কথা ও সুর করেছেন এস আই শাহিন। তরুণ প্রজন্মের এ গীতিকার ও সুরকার বেশ ভালো কাজ করেছেন। সব মিলিয়ে যে তিনটি গান করেছি তার মাধ্যমে শ্রোতারা ভিন্নধর্মী কিছু পাবেন। শহিদ বলেন, ফেরদৌস ওয়াহিদ আঙ্কেলের অ্যালবামের কাজ করেছি। ভালো লেগেছে। সব সময়ের মতো অসাধারণ গেয়েছেন তিনি। এটি আমার স্বপ্নের একটি অ্যালবাম। নিজের শতভাগ দিয়েই করার চেষ্টা করেছি। আমার বিশ্বাস গানগুলো সবার ভালো লাগবে।

অভিনয়ে শুভ্রদেব-ডলি সায়ন্তনি

dolishuvraদীর্ঘদিন ধরে গান করে শ্রোতা মাতাচ্ছেন শুভ্রদেব ও ডলি সায়ন্তনি। ধারাবাহিকভাবে অনেক শ্রোতাপ্রিয় গান তারা উপহার দিয়েছেন। এবার একসঙ্গে অভিনয় করলেন এ দুই সঙ্গীত তারকা। ‘শ্রাবণ এসেছিল গান নিয়ে’ নামের ঈদের একটি টেলিফিল্মে দেখা গেছে তাদেরকে। এ বিষয়ে ডলি সায়ন্তনি বলেন, আসলে আমি ভাবিনি অভিনয় করবো। কালিয়া অ্যালবামের পরই চলচ্চিত্রে অভিনয়ের প্রস্তাব পেয়েছিলাম। এরপর নাটক ও মডেলিংয়ের প্রস্তাব অনেক ছিল। কিন্তু সেগুলো সম্মানের সঙ্গে ফিরিয়ে দিয়েছি। কিছুদিন আগে এনটিভির ঈদের সঙ্গীতানুষ্ঠানে অংশ নেই শুভ্রদার সঙ্গে। পরেরদিন তিনি আমাকে ফোন করে টেলিফিল্মটিতে অভিনয়ের প্রস্তাব দেন। ডলি আরো বলেন, বেশ ভালোই লেগেছে শুটিং করতে। টেলিফিল্মে আমার ও শুভ্রদার কয়েকটি প্রেমের দৃশ্য ছিল। এ টেলিফিল্মের কাহিনি ত্রিভুজ প্রেমের। ডলি সায়ন্তনির প্রেমিক শুভ্রদেব। তার চরিত্রটি একজন সঙ্গীতশিল্পী। কিন্তু পারিবারিক জটিলতায় তার বিয়ে হয় বন্ধুর সঙ্গে। ডলির আগের ভালোবাসার কথা জানার পরও স্বামী তাকে ভালোবাসেন। কিন্তু ডলি ভালোবাসেন শুভ্রকে। শুভ্রদেব বলেন, এটি নতুন অভিজ্ঞতা। তবে ভালোই লেগেছে কাজ করতে। টেলিফিল্মে আরো অভিনয় করেছেন সিঁথি সাহা, মেহরাব ও পড়শী। ফারিয়া হোসেনের রচনায় এটি নির্মাণ করেছেন আরিফ খান।

বাপ্পার সুরে সাহিনার ‘রোদরেলিং’

ইমপ্রেস অডিও ভিশনের ব্যানারে প্রকাশিত হলো- জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী ও কম্পোজার বাপ্পা মজুমদারের সুর সঙ্গীতে কণ্ঠশিল্পী সাহিনার একক অ্যালবাম রোদরেলিং। এ উপলক্ষে চ্যানেল  আই কার্যালয়ে সম্প্রতি এক প্রকাশনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে অ্যালবামটির মোড়ক উন্মোচন করেন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পী ইন্দ্রমোহন রাজবংশী, ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিনী, জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী ফেরদৌস আরা, চিত্রনায়ক ফেরদৌস, বাপ্পা মজুমদার প্রমুখ। অ্যালবামটি প্রসঙ্গে সাহিনা বলেন, নানাবিধ অস্থিরতার মাঝেও বেশ ধীরগতিতেই কাজ করেছি পুরো অ্যালবামটির। খুব যত্ন নিয়ে গানগুলো গেয়েছি। বাপ্পা মজুমদার বলেন, সাহিনার সুন্দর সাবলীল গায়কী আমার করা সুরগুলোকে তৈরি করেছে এক নতুন মাত্রা। রোদরেলিং অ্যালবামের গানগুলোর মধ্যে রয়েছে এলোমেলো ব্যস্ত টারমিনাস, ঘোর প্রহরে চুপকথারা, ক্রেজি হার্ট, রোদরেলিং, হাত বাড়ালেই তুমি এবং পাখির ডানায় রোদের ঝিলিক। সিডি ছাড়াও জিপি মিউজিকে পাওয়া যাচ্ছে অ্যালবাম। অনুষ্ঠানে এলোমেলো ব্যস্ত টারমিনাস গানের ভিডিও চিত্র উপস্থিত অতিথিদের জন্য প্রদর্শন করা হয়।

তিনজনের একই স্বপ্ন

সঙ্গীতের দুই তারকা বোন সামিনা চৌধুরী ও ফাহমিদা নবী। ব্যক্তি জীবনে দুজনার মধ্যে মধুর সম্পর্ক থাকলেও সচরাচর এক অ্যালবামে গান খুব কম করেছেন তারা। একটি ডুয়েট অ্যালবামে গান করেছেন তারা। যেটি প্রকাশ খুব শিগগিরই। আর ঈদে নতুন একটি অ্যালবামেও একসঙ্গে গেয়েছেন তারা। তাদের সঙ্গে এ অ্যালবামে আরো গেয়েছেন শারমিন রমা। এ তিনজনের তিন গান নিয়ে সাজানো হয়েছে অ্যালবামটি। অ্যালবামের নাম একই স্বপ্ন। গান তিনটি হলো- একই স্বপ্ন, পিপীলিকা এবং আমি প্রশ্ন হয়ে যাই। গান লিখেছেন রবিউল ইসলাম জীবন ও নিহার আমেদ। সবগুলো গানের সুর করেছেন বেলাল খান। সিএমভির ব্যানারে অ্যালবামটি প্রকাশ পেতে যাচ্ছে। অ্যালবামটি প্রসঙ্গে ফাহমিদা নবী বলেন, অনেক সুন্দর একটি গান গেয়েছি এ অ্যালবামে। আমার বিশ্বাস শ্রোতাদেরও অবশ্যই ভালো লাগবে।

তুমুল আড্ডা হচ্ছে -পুজা

pujaআনন্দ আলো: বর্তমানে আপনার ব্যস্ততা কি নিয়ে

বাঁধন সরকার পূজা: ব্যস্ততা শুধু গান নিয়ে। বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে সঙ্গীত বিষয় অনুষ্ঠানে লাইভ শো করছি। অডিও অ্যালবামের কাজ করছি। প্লেব্যাক করছি। এছাড়া স্টেজশো করে যাচ্ছি নিয়মিত।

আনন্দ আলো: গানের বাইরে এবারই প্রথম আরজে হিসেবে নিজেকে আত্মপ্রকাশ করলেন। কেমন লাগলো?

বাঁধন সরকার পূজা: আমি আসলে গানের মানুষ। গান নিয়ে থাকতেই ভালো লাগে। এর আগে আমি বিভিন্ন রেডিও স্টেশনে অনেক শো করেছি। সেখানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে গেয়েছি, আড্ডা দিয়েছি। তবে এবার আরজে হিসেবে প্রথমবারের মতো বাংলা রেডিও স্টেশনে শো করেছি। এটা একেবারেই শখের বশে। অনুষ্ঠানে সেলিব্রেটিরাও থাকছেন অতিথি হিসেবে। তাদের সঙ্গে চুটিয়ে আড্ডা হচ্ছে। তাদের কাজ নিয়ে কথা হয়। সব মিলিয়ে আরজেগিরিটা বেশ উপভোগ করছি। আমার বিশ্বাস শ্রোতাদেরও ভালো লাগবে।

আনন্দ আলো: আপনার নতুন গানের কী খবর?

বাঁধন সরকার পূজা: গেল রোজার ঈদে সিডি চয়েসের ব্যানারে প্রকাশিত হয়েছিল আমার একক অ্যালবাম ‘অবুঝ পাখি’। এ অ্যালবামের সুর ও সঙ্গীতায়োজন করেন ইমরান, সাজিদ সরকার ও বেলাল খান। সম্প্রতি টাইটেল গানটির মিউজিক ভিডিও প্রকাশ হয়েছে। ‘অবুঝ পাখি’ গানটির  টিং করেছি সুন্দরবনের মনোরম লোকেশনে। বেশ ভিন্নধর্মী কাজ হয়েছে। এটি নির্মাণ করেছে প্রেক্ষাগৃহ। আর এ অ্যালবামের বাকি গানগুলোর ভিডিও করার পরিকল্পনা রয়েছে। ঈদে খুব বেছে বেছে নতুন গানের কাজ করেছি। আমার বিশ্বাস গানগুলো সবার ভালো লাগবে।