Home আরোও বিভাগ ক্রীড়া বিনোদন ক্রিকেট তারকাদের নিয়ে সিনেমা

ক্রিকেট তারকাদের নিয়ে সিনেমা

SHARE

খেলার মাঠের তারকা ক্রিকেটাররা রূপালী পর্দার নায়ক। নিশ্চয় চমকে উঠলেন। চমকে উঠার মতোই ঘটনা। যদি ক্রিকেট বিশ্বের মহাতারকা শচীন টেন্ডুলকার, ধোনী কিংবা বিরাট কোহলীর জীবনভিত্তিক ছবি নির্মিত হয় তাহলে সিনেমা প্রেমী দর্শকের জন্য তা হবে মহা আগ্রহের বিষয়। ইতিমধ্যে ভারতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক আজহার উদ্দিনের জীবনভিত্তিক চলচ্চিত্র ‘আজহার’ মুক্তি পাওয়ার পর আলোচনার ঝড় উঠেছে। মুক্তি পেতে যাচ্ছে শচীন টেন্ডলকার কে নিয়ে নির্মিত শচীন: আ বিলিয়ন ড্রিমস, মাহেন্দ্র সিং ধোনীকে নিয়ে নির্মিত ছবি ‘দি আনটোল্ড স্টোরী’ এবং বিরাট কোহলীকে নিয়ে ছবি ‘ঢিশুম’। শুধু তাই নয় ১৯৮৩ সালে প্রথম বারের মতো বিশ্বকাপ জয়ী ভারতীয় দলের ক্রিকেটারদের নিয়েও একটি ছবি নির্মানের পরিকল্পনা করা হচ্ছে।

বাংলাদেশেও ক্রিকেটকে উপজীব্য করে একটি ছবি নির্মাণ করেছেন খ্যাতিমান পরিচালক ছটকু আহমেদ। ছবির নাম ‘তোমাকে খুজঁছে বাংলাদেশ’। ছবিতে বেশ ক’জন ক্রিকেট তারকা অভিনয় করেছেন।

আজহারকে নিয়ে যতকথা

বড় কোনো ক্রিকেট তারকার জীবনী নির্ভর সিনেমা বানাতে গেলে ফ্রেমে কেবল সেই তারকাই থাকেন না, থাকেন তার সমসাময়িক অন্য তারকারাও। আর সেই ক্রিকেটার যদি আজহার উদ্দিন হন তাহলে তো রসদের অভাবই নেই! আজহারের নিজের জীবনেই আছে অসংখ্য বাক ও বির্তকের গল্প। সেসবের সঙ্গে জড়িয়ে আছে তার সমসামায়িক তারকাদেরও নামও। সেই আজহারকে নিয়ে সিনেমা নির্মিত হলে সেখানে অন্য তারকাদের চরিত্র থাকবে সেটাই স্বাভাবিক। তেমনি এক চরিত্র রবি শাস্ত্রী। ‘আজহার’ সিনেমায় যার চরিত্রের চিত্রায়ন নিয়ে বিপাকে পড়েছেন ভারতীয় এই সাবেক তারকা ক্রিকেটার।

‘আজহার’ সিনেমায় নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন বলিউড তারকা ইমরান হাশমি। সিনেমাটিতে রবি শাস্ত্রীকে নিয়েও ছোট একটি চরিত্র আছে। তাতে অবশ্য সমস্যার কিছু নেই। কিন্তু সেই চরিত্রটিকে দেখানো হয়েছে প্লে-বয় ইমেজে। এই নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন শাস্ত্রী। বিষয়টি নাকি তার পরিবারেও ঝড় তুলেছে!

শাস্ত্রীর অভিযোগ, তার চরিত্রকে সিনেমার একটি দৃশ্যে খুবই বাজে ভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। যেখানে দেখানো হয়েছে, হোটেলের একটি কক্ষে শাস্ত্রী যখন অন্য একজন নারীর সঙ্গে বিশেষ মুহূর্তে ব্যসৱ, ঠিক তখনই একই হোটেলের অন্য আরেকটি কক্ষে তার পথ চেয়ে বসে আছেন তারই সহধর্মিনী। দৃশ্যটি নিয়ে শাস্ত্রীর পরিবারের সদস্যরা বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছেন। তারা ভীষণ আঘাত পেয়েছেন। ভারতের ক্রিকেট ইতিহাসে সবচেয়ে সফল অধিনায়কদের তালিকায় রয়েছেন মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন। তিনিই একমাত্র ক্রিকেটার যিনি ১৯৯২ বিশ্বকাপ থেকে টানা তিন বিশ্বকাপে ভারতীয় দলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। তবে, ক্যারিয়ারের শেষ দিকে এসে ম্যাচ ফিক্সিং কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে ক্রিকেট থেকে আজীবন নিষিদ্ধ হন তিনি।

আজহারের এই সিনেমায় ক্রিকেটের বড় বড় ম্যাচ ফিক্সিংয়ের নেপথ্যে থাকা ঘটনাগুলো এবং আজহারের জীবনী ও তার ক্রিকেট ক্যারিয়ারের বিভিন্ন দিকসহ ব্যক্তিগত জীবন তুলে ধরা হয়েছে।

ছবিতে আজহারউদ্দিনের ভূমিকায় অভিনয় করছেন বলিউডের অতিপরিচিত মুখ ইমরান হাশমি। তার স্ত্রীর চরিত্রে অভিনয় করছেন প্রাচী দেশাই। পরিচালনা করছেন টনি ডি’সুজা।

Shacinশচীন: আ বিলিয়ন ড্রিমস

‘ধোনি’, ‘আজহার’ ভারতের দুই তারকা ক্রিকেটারের পর ভারতের ‘ক্রিকেট-ঈশ্বর’ শচীন টেন্ডুলকারকে নিয়ে নির্মিত হয়েছে সিনেমা শচীন: আ বিলিয়ন ড্রিমস। এরই মধ্যে মুক্তি পেয়েছে ছবিটির অফিশিয়াল টিজার। এক মিনিটের এই টিজারের খবর জানিয়েছেন শচীন স্বয়ং। ছবির টিজার মুক্তির পর পরই ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে।

টিজারে কণ্ঠ দিয়েছেন শচীন নিজেই! আর দশটি সাধারণ শিশু থেকে কীভাবে ভারতীয় ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় তারকা হয়ে উঠলেন শচীন টেন্ডুলকার, তারই আভাস মেলে এই টিজারে।

ছবির টিজার মুক্তির পর পরই শচীনকে অভিনন্দন জানিয়ে চলছেন বলিউড তারকা থেকে শুরু করে ভারতীয় ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়রা। এর মধ্যে রয়েছেন রণবীর সিং, বিরাট কোহলি, অভিষেক বচ্চন, সুরেশ রায়না, যুবরাজ সিং, আয়ুস্মান খুরানা, বীরেন্দ্র শেওয়াগের মতো তারকারা।

কার্নিভাল মোশন পিকচার্সের ব্যানারে নির্মিতব্য ‘শচীন : আ বিলিয়ন ড্রিমস’ ছবিটি পরিচালনা করছেন জেমস আরস্কিন। সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন এ আর রহমান। ছবির অন্যান্য কলাকুশলী হিসেবে কারা রয়েছেন, তা অবশ্য এখনো জানা যায়নি। মূলশচীন চরিত্রে অভিনয় করেছেন টেন্ডুলকার নিজেই। কিশোর শচীনের চরিত্রে অরুন টেন্ডুলকার এবং নীতিন টেন্ডুলকার-এর চরিত্রে অভিনয় করেছেন মাইয়োষ।

তোমাকে খুঁজছে বাংলাদেশ

খেলা নিয়ে ইতোপূর্বে বেশ কয়েকটি ছবি নির্মিত হয়েছে। এই ধারাবাহিকতার সর্বশেষ সংযোজন ছটকু আহমেদ পরিচালিত ‘তোমাকে খুঁজছে বাংলাদেশ। সিনেমাটি ক্রিকেটকে কেন্দ্র করে নির্মিত হচ্ছে। সিনেমার শুটিং, ডাবিং প্রায় শেষ পর্যায়ে। খুব শিগগিরই তা সেন্সরে জমা পড়বে। সিনেমাটি প্রযোজনা করেছেন ঊষা শরীফ। সম্প্রতি ক্রিকেটের ওপর ১টি গানের দৃশ্যায়নের মাধ্যমে শুটিং শেষ হয়। গানের দৃশ্যে লিপসং-এ অংশ নেন জাতীয় ক্রিকেট দলের ১৪ জন খোলোয়াড়। যে সব খেলোয়াড় এ গানে অংশ নেন তারা হলেন মাশরাফি, নাসির হোসেন, আরাফাত সানী, নাজিমুদ্দিন, তুষার ইমরান, আলাউদ্দিন আলী, ইমরুল কায়েস, সৌম্য সরকার, এনামুল হক বিজয়, তাসকিন, তাইজুল প্রমুখ। এ ছাড়া ওই ছবিতে দুটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন সাবেক ক্রিকেটার ফারুক আহমেদ ও হাবিবুল বাশার সুমন। ছবির নায়ক রিগানের বাবার চরিত্রে অভিনয় করেন সাবেক জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক রকিবুল হাসান। ছবির প্রধান নায়ক-নায়িকা হলেন রিগ্যান ও প্রিয়াঙ্কা।

ধোনি- দ্য আনটোল্ড স্টোরি

মিলখা সিং, মেরি কমের পর এবার বড় পর্দায় আসছেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। বলিউড আর খেলোয়াড়দের জীবনী নিয়ে ছবি হর হামেশা হচ্ছে। মিলখার ভূমিকায় ফারহান আখতার, মেরি কমের ভূমিকায় প্রিয়াঙ্কা চোপড়া প্রশংসা কুড়িয়েছেন। এবার সুশানৱ সিং রাজপুতের দিকেই সবার নজর। কারন ভারতীয় ক্রিকেটের সফল অধিনায়ক এম এস ধোনি- দ্য আনটোল্ড স্টোরি ছবিতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করছেন সুশানৱই। এরই মধ্যে মুক্তি পেয়েছে ধোনির জীবন অবলম্বনে তৈরি ছবির ফার্স্ট লুক পোস্টার। পোস্টারে দেখা যাচ্ছে ধোনির জার্সি পরা নায়ক ব্যাট হাতে ক্যামেরার পিছন দিকে দাঁড়িয়ে আছে। জার্সিতে লেখা ৭ নম্বর। ৭ সংখ্যাটি ধোনির জীবনে অত্যনৱ গুরুত্বপূর্ণ। সপ্তম মাসের (জুলাই) সপ্তম দিনে (৭/৭/১৯৮১) জন্মেছিলেন তিনি। ছবিটি পরিচালনা করেছেন নীরজ পান্ডে। টুইটারে ধোনির স্ত্রী স্বাক্ষীই এই ছবির ফার্স্ট লুক পোস্টারটি টুইট করেছেন। যদিও ছবি নিয়ে কোনও কথা বলেননি ধোনি পত্নী। এই সিনেমাটি যে ধোনি প্রেমী তথা ক্রিকেট প্রেমীদের জন্যে একটা বড় পাওয়া হবে তা বলাই বাহুল্য।

ক্রিকেট নিয়ে বলিউডের ৭ ছবি

ক্রিকেট খেলার নানা গল্পের ছায়া অবলম্বনে বলিউডে অনেক ছবি নির্মিত হলেও শুধু মাত্র ক্রিকেট খেলার বাসৱব ঘটনা নিয়ে ছবি নির্মিত হয়েছে ৭টি। নিচে তারই সংক্ষিপ্ত পরিচয়।

লগন (২০০১)

আমির খানের প্রোডাকশন হাউস থেকে নির্মিত এই ছবি পরিচালনা করেছিলেন আশুতোষ গোয়ারিকর। এককথায়, এই ছবিটি আমির খানকে নিয়ে যায় অন্য উচ্চতায়। ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির প্রশিক্ষিত একদল সদস্যের বিরুদ্ধে এক গ্রামের সাধারণ কিছু মানুষের ক্রিকেট খেলার গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে এই ছবি, যার পটভূমি বিসৱৃত। অস্কারেও মনোনয়ন জুটে ছিল ছবিটির।

স্টাম্পড (২০০৩)

এই ছবির মাধ্যমে প্রযোজক হিসেবে অভিষেক ঘটে রাভিনা ট্যান্ডনের। কমেডি ঘরানার গল্পে এগিয়ে যাওয়া এই ছবিতে নামভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছিলেন স্বয়ং শচীন টেন্ডুলকার। এ ছাড়া একটি গানে দেখা যায় সালমান খানকে।

ইকবাল (২০০৫)

নাগেশ কুকুনুর পরিচালিত এই ছবির মাধ্যমে অভিষেক ঘটেছিল বলিউডের প্রশংসিত অভিনেতা শ্রেয়াস তালপাড়ের। ছবিতে নামভূমিকায় এক প্রতিবন্ধী কিশোরের চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি, যে পরবর্তী সময়ে হয়ে ওঠে দুর্দানৱ এক ফাস্ট বোলার। এই ছবিতে একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেন নাসিরুদ্দিন শাহ্‌।

হ্যাটট্রিক (২০০৭)

মিলান লুথারিয়ার এই কমেডি ঘরানার ছবিতে দেখানো হয়েছিল, ক্রিকেট নিয়ে ভারতীয়দের পাগলামি কোন পর্যায়ের হতে পারে! তিনটি সমানৱরাল অথচ ভিন্ন ভিন্ন ঘটনাকে কেন্দ্র করে এই ছবির গল্প এগিয়ে চলে। ছবিটি বেশ দর্শকপ্রিয়তা অর্জন করেছিল।

চ্যেন খুলি কি ম্যেন খুলি (২০০৭)

শিশুতোষ এই ছবির গল্প এমন, এক অনাথ কিশোর ভাগ্যক্রমে ১৯৮৩ সালের বিশ্বকাপে কপিল দেবের ব্যবহৃত ক্রিকেট ব্যাটটি পেয়ে যায়, যেটি দিয়ে সে ১৭৫ রানের এক স্মরণীয় ইনিংস খেলেছিল জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে! এই ব্যাটটিতে হঠাৎ করেই ভর করে জাদুকরি শক্তি, যার জোরে সেই ১৩ বছরের কিশোর অলৌকিক ব্যাটিং শুরু করে দেয়, এমনকি জাতীয় দলেও সুযোগ পেয়ে যায়। এই ছবিতে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় অভিনয় করেন রাহুল বোস।

জান্নাত (২০০৮)

ক্রিকেট খেলার এক ভয়াবহ দিক ম্যাচ পাতানো, বাজি, জুয়া। কুনাল দেশমুখের পরিচালনায় এই ছবির আদ্যোপানৱ কাহিনী ম্যাচ ফিক্সিং কে কেন্দ্র করে। ছবিতে ইমরান হাশমি দারুণ জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন এক বাজিকরের ভূমিকায় অভিনয় করে। ছবিটি ব্যবসাসফল হওয়ার পেছনে গানের ভূমিকাও ছিল ব্যাপক।

মীরাবাঈ নটআউট (২০০৮)

এই ছবি তেমন ব্যবসাসফল না হলেও মুক্তির আগে থেকেই বেশ আলোচনায় এসেছিল। সে সময়ের ‘টক অব দ্য টাউন’ মন্দিরা বেদির বড়পর্দায় আগমন এবং ক্রিকেটার অনিল কুম্বলের উপস্থিতিই ছিল এই আলোচনার মূল কারণ।

বিরাট কোহলির ঢিশুম

ভারতীয় ক্রিকেট টীমের টেস্ট দলপতি বিরাট কোহলি এবার যাত্রা করতে যাচ্ছেন মাঠ ছেড়ে রূপালী পর্দায়। ভাবছেন তিনি নিজে অভিনয় করবেন! না। এবার এই ক্রিকেট তারকার জীবনী নিয়ে বলিউডে নির্মাণ করা হচ্ছে সিনেমা।

বিরাট কোহলির আদলে এক ক্রিকেটারের চরিত্র সেলুলয়েডে তুলে আনতে চলেছেন পরিচালক রোহিত ধাওয়ান। ছবির নাম ‘ঢিশুম’। সেই ছবিতেই এক ক্রিকেটারের চরিত্রে ছায়া থাকবে বিরাট কোহলির জীবনের। আর এই সেলুলয়েডে বিরাট কোহলির ভূমিকায় অভিনয় করছেন বলিউডের অভিনেত্রী হুমা কোরেশীর ভাই সাকিব সেলিম। পরিচালকের মনে হয়েছে, বিরাটের মতো একজন অ্যাগ্রেসিভ ক্রিকেটারের চরিত্রে সাকিবকেই সব চেয়ে ভাল মানাবে। এক সময় সাকিবও অনুর্ধ্ব উনিশ ভারতীয় ক্রিকেট দলে খেলেছেন। সেই আগ্রহ থেকেই ছবিতে সায় দিয়েছেন সাকিব।

বিশ্বকাপজয়ী দল নিয়ে চলচ্চিত্র

ভারতের বিশ্বকাপজয়ী ক্রিকেট দল নিয়ে সিনেমা তৈরি হতে যাচ্ছে। দুইবার বিশ্বকাপজয়ী দলটির প্রথম বিশ্বকাপজয়কে তুলে ধরা হবে সিনেমাটিতে।

১৯৮৩ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে ওই বিশ্বকাপ জেতে কপিল দেবের নেতৃত্বাধীন ভারতীয় দল। সিনেমাটি পরিচালনা করবেন সঞ্জয় পুরন সিং চৌহান। এটি প্রযোজনা করবেন সেলিব্রিটি ক্রিকেট লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বিষ্ণু বর্ধন ইন্দুরি।

ইতিমধ্যে সিনেমাটির স্ক্রিপ্ট তৈরি শেষে প্রি-প্রডাকশনের কাজ শুরু হয়ে গেছে। বিশাল আয়োজনের এই সিনেমাটিতে খরচ করা হবে প্রায় ৫০ কোটি রুপি। একটি আনৱর্জাতিক এজেন্সিকেও সিনেমাটিতে কাজে লাগানো হবে বলে জানা গেছে।

১৯৮৩ বিশ্বকাপজয়ী দলের সদস্যদের সাথে যোগাযোগ শুরু করছেন সিনেমাটির নির্মাতা। ইংল্যান্ডের যেসব স্টেডিয়ামে ভারতীয় দল ওই সময় খেলেছিল, সেসব স্টেডিয়ামে শুটিং করা হবে। ওই সময় মাঠের বাইরে তারকাদের কর্মকান্ডও তুলে ধরা হবে প্রয়োজন মত। ফাইনাল খেলা ধারণ করা হবে লন্ডনের লর্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ডে। প্রযোজক জানিয়েছেন, ‘আনুষ্ঠানিকভাবে বোর্ডকে বিষয়টি জানান হবে। তাদেরকে আমরা সিনেমার প্রমোশনেও চাই। কপিল দেব, সুনীল গাভাস্কারদের চরিত্রে প্রথম সারির তারকাদের আমরা নেব।”