SHARE
Sabila-Noor

এখন ঘরবন্দি সময় পার করছেন ছোটপর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী সাবিলা নূর । সময় কীভাবে কাটছে জানতে চাইলে বললেন, ‘এখন তো রোজার সময়। সাহরি খেয়ে ফজর নামাজ পড়ে ঘুমাতে ঘুমাতে দেরি হয়ে যায়। ঘুম থেকে উঠে দুপুরে নামাজ-কালাম পড়ে ইফতারের আগের সময়টা কিছুক্ষণ বিশ্রামে থাকি। নয়তো বই পড়া নয়তো টিভি দেখা হয়। ইফতারের পর মুভি দেখা হয়, সিরিজ দেখা হয়। এভাবেই সময় কেটে যাচ্ছে।’

গত বছর বিয়ে করেছেন সাবিলা নূর। নতুন সংসারের শুরুতেই দীর্ঘ বিরতি পাওয়া আনন্দের হলেও সুযোগটা তেমন কাজে লাগাতে পারছেন না। বলছিলেন, ‘দীর্ঘ বিরতি পেয়েছি। এটা ভালো। সবাই ভাবছে নতুন সংসারে আমরা সময়টা খুব উপভোগ করছি। আসলে কিন্তু মোটেই তা নয়। আমি ফ্রি থাকলেও আমার বর কিন্তু ব্যস্ত। ও তো ব্রডকাস্ট ইঞ্জিনিয়ার, এ কারণে তাকে নিয়মিত অফিস করতে হয়। ফলে ওর শিডিউল আগের মতোই। তবে আমি বাসায় থাকায় ও যতক্ষণ থাকছে ততক্ষণ সময় কাটানো যাচ্ছে। ভালোই লাগছে। আর নিজেদের কাছে পেতে আসলে কোয়ারেন্টাইন লাগে না। ইচ্ছে থাকলে স্বাভাবিক সময়েও নিজেদের মতো করে সময় কাটানো যায়।’ সাধারণ ছুটির কারণে আটকে গেছে বেশকিছু নাটকের কাজ। অসমাপ্ত কাজগুলো নিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি তো মার্চের ১৮ তারিখ থেকে কোয়ারেন্টাইনে। ঈদের আগের দিন পর্যন্ত আমার সব শিডিউল দেওয়া হয়ে গিয়েছিল। সে হিসাবে সব কাজই তো অসমাপ্তই থেকে গেল। কিছুটা শু¨টিং করেছি এমন একটি কাজেরও আরও এক দিন সময় লাগত। কিন্তু সেটাও করা সম্ভব হয়নি। এরকম অনেক অনেক কাজই অসমাপ্ত রয়ে গেছে।’

করোনা নিয়ে বেশ চিন্তিত সাবিলা, সবাইকে সবার পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানালেন তিনি, ‘এই মুহূর্তে সব ধরনের কাজ বন্ধ। ফলে সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছেন প্রডাকশন, মেকআপের লোকজনসহ স্বল্প আয়ের কলাকুশলীরা। তারা এখন বেকার। তাদের সহায়তা করা এখন আমাদের জন্য সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। যারা দিন আনে দিন খায় তাদের জন্য খুব স্ট্রাগলিং সময় যাচ্ছে। আর বেসিক্যালি আমরা তো কেউ আসলে প্রস্তুত ছিলাম না যে এরকম একটা অবস্থা তৈরি হবে। যারা সচ্ছল তারা যেন অপেক্ষাকৃত কম অসচ্ছলদের সহায়তা করে। আমরা যতটুকু পারি সবাই সবাইকে যদি সহায়তা করতে পারি সেটাই হবে গুরুত্বপূর্ণ কাজ।’ তিনি নিজেও অসচ্ছল মানুষদের সহায়তা করেছেন। সাবিলা বলেন, ‘আমি নিজেও ইন্ডাস্ট্রির বাইরে অনেককে সহায়তা করেছি। এটা করেছি মার্চের শেষের দিক থেকে এপ্রিলের শুরুর দিক পর্যন্ত। তবে সহায়তার ব্যাপারটা ফলাও করে বলতে চাই না। আর শুধু আমি নই, অনেক শিল্পী অনেক পরিচালকও যার যার সাধ্যমতো সহায়তা করে যাচ্ছেন। অনেকে আবার সম্মিলিতভাবেও কাজ করছেন। এখন তো সহায়তা করা অনেক সহজ। বিকাশের মাধ্যমেই আর্থিক সহায়তা প্রদান করা যায়। তাই সচ্ছল মানুষদের প্রতি অনুরোধ করব, আপনারা সবাই সবার পাশে দাঁড়ান।’