Home সাক্ষাৎকার একাত্তরে ফিরে যাবো এবার… অর্চিতা স্পর্শিয়া

একাত্তরে ফিরে যাবো এবার… অর্চিতা স্পর্শিয়া

SHARE

সম্প্রতি মুক্তি পায় অর্চিতা ¯পর্শিয়া অভিনীত ‘নবাব এলএলবি’। সিনেমায় তার সঙ্গে আরো অভিনয় করেন শাকিব খান ও মাহিয়া মাহি সহ অনেকে। এছাড়া তিনি ‘ছক’ নামক একটি সিনেমার কাজ শেষ করেছেন। সিনেমায় তার বিপরীতে রয়েছেন তাহসান খান। তবে নতুন খবর হচ্ছে ফিরে দেখা নামক একটি সিনেমায় যুক্ত হয়েছেন এ অভিনেত্রী। আগামী মার্চ মাসের শুরুতেই সিনেমটির শুটিং শুরু হবে। নতুন এ সিনেমার প্রসঙ্গ ধরে নানা বিষয় নিয়ে তার সঙ্গে আড্ডা হয় ‘আনন্দ আলো’র।আনন্দ আলো: ‘ফিরে দেখা’ নামের একটি নতুন সিনেমায় যুক্ত হলেন। সিনেমা প্রসঙ্গে জানতে চাই…
স্পর্শিয়া: সিনেমাটি একাত্তরের প্রেক্ষাপট নিয়ে নির্মিত হবে। সিনেমার নির্মাতা রোজিনা আপা, তার নিজের দেখা একটি ঘটনাকে সিনেমায় ফুটিয়ে তোলা হবে। তাই আমি কাজটি নিয়ে বেশ উচ্ছ্বসিত। এই ধরনের কাজে সম্পৃক্ত হওয়া সত্যি ভাগ্যের ব্যাপার। ইতোমধ্যে আমাদের সিনেমাটি নিয়ে বেশ কয়েকবার মিটিং হয়েছে। নির্মাতা আমার চরিত্র বেশ ভালোভাবেই বুঝিয়েছেন।
আনন্দ আলো: সিনেমায় আপনাকে কী ধরণের চরিত্রে অভিনয় করতে হবে?
স্পর্শিয়া: কেমন চরিত্রে অভিনয় করতে হবে তা এখনই না বলি। কারণ এখনই যদি চরিত্রের কথা জানিয়ে দেই তাহলে দর্শক জেনে যাবে, সিনেমা হলে গিয়ে চরিত্রটির প্রতি তেমন আগ্রহ পাবে না। তবে হ্যাঁ, সিনেমাটি যেহেতু একাত্তরের সময়কার সেহেতু আমাকে সে সময়ের একটি চরিত্রে দেখা যাবে। ২০২১ সালের ¯পর্শিয়া ফিরে যাবে একাত্তরে। আমি এক্সপেরিমেন্টাল কাজ করতে পছন্দ করি। আবার বসন্ত, কাঠবিড়ালী, নবাব এলএলবি এবং এ সিনেমা প্রতিটিতে আলাদা আলাদা অভিনেতাদের সঙ্গে কাজ করছি। এতে নতুন সহ-অভিনেতাদের কাজের নতুন অভিজ্ঞতা পাওয়া যায়। যা আমাকে অভিনয়ে সমৃদ্ধ করতে সাহায্য করে। ফলে এ সিনেমায় নিরব না সালমান খান রয়েছে তা না ভেবে আমি ভাবি তিনি আমার সহশিল্পী। এখন তিনি কতটা সহায়ক হবেন তা কাজ করার সময় বুঝা যাবে। মার্চের প্রথম থেকেই শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। পরিবেশ, পরিস্থিতি, আবহাওয়ার উপর বাকিটা নির্ভর করছে। ফেব্রুয়ারি মাস থেকে পুরোদমে নিজেকে তৈরী করতে শুরু করবো। তবে এখনই টুকটাক কিছু কাজ করছি। যেহেতু একাত্তরকালীন একটি গল্প, সে সময়ের চরিত্র সে হিসেবে প্রস্তুতিটাও ভালো মত হওয়া প্রয়োজন।

আনন্দ আলো: সম্প্রতি ‘ছক’ নামক একটি সিনেমায় অভিনয় করেছেন। সে বিষয়ে জানতে চাই…
স্পর্শিয়া: সিনেমাটি খুব টাইট শিডিউলের মধ্যে করা হয়েছে। একদিকে প্যান্ডামিক, অন্যদিকে সিনেমাটি শুরুর আগে আমার পা ভাঙে। তবে পুরো টিমের নিরলস পরিশ্রমের ফলে ভালো একটা কাজ শেষ করেছি। কম্প্রোমাইজ করে করতে হয়েছে। যেখানে দৌড়ের দৃশ্য রয়েছে সেটাকে কোনোভাবে করতে হয়েছে। একজন শিল্পী তার সর্বোচ্চটুকু দিতে চেষ্টা করে। সেখানে কম্প্রোমাইজ করে কাজ করার ফলে গিল্টি ফিল হচ্ছে। তবে ওই যে বললাম, পুরো টিমের সহায়তায়, নিরলস পরিশ্রমের কারণে ভালো একটি কাজ শেষ করতে পেরেছি।
আনন্দ আলো: ‘নবাব এলএলবি’ সিনেমা নিয়ে চারদিকে সমালোচনা শোনা যাচ্ছে। তবে তা ভিন্ন বিষয় নিয়ে। সে সব বাদ দিয়ে সিনেমার প্রসঙ্গে আপনার নিজস্ব মতামত কী?
স্পর্শিয়া: দেখুন সমালোচনা থাকবেই। সেটা ভিন্ন বিষয় হোক আর অন্য বিষয়। তবে আমার জায়গা থেকে এ ধরণের সিনেমা আমাদের সমাজে প্রচুর নির্মাণ হওয়া উচিত। আমার তো মনে হয় এ বিষয়টি নিয়ে ‘নবাব এলএলবি’ সিনেমার আগে আর কোনো সিনেমা নির্মাণ হয়নি। কেনো হয়নি? তবে সে প্রশ্ন না করে এখন সামনে এগিয়ে যেতে হবে। সমাজের প্রতি শিল্পী হিসেবে আমাদের যেমন দায়িত্ব রয়েছে তেমনই প্রত্যেক নাগরিকের দায়িত্বও রয়েছে। ফলে সমাজের নানা সমস্যা নিয়ে কথা আমাদের বলতে হবে। আমরা নাটক, সিনেমার মাধ্যমে বলি অন্যন্যরা ভিন্ন কোনো মাধ্যমে বলবে। তবে হ্যাঁ সেই সত্যটা তুলে ধরতে গিয়ে যেনো কোনোভাবেই আমরা কোনো প্রফেশনকে হেয় করা ঠিক না। এমনকি কাউকে বড় করতে গিয়ে কিংবা কোনো ঘটনাকে বড় করে তুলতে গিয়ে যেনো কোনো দায়িত্বশীল প্রশাসনকে ছোট না করা হয় সেই দিকে খেয়াল রাখা উচিত।
আনন্দ আলো: আপনার একটি প্রোডাকশন হাউজ রয়েছে ‘কচ্ছপ’ নামে। সেটা স¤পর্কে কিছু বলুন…
স্পর্শিয়া: ২০২০ সালে প্ল্যান ছিল কাজ শুরু করবো। কিন্তু করোনার কারণে সব বন্ধ হয়ে গেছে। আপাতত নতুন করে সব কিছু শুরু করতে হচ্ছে, একেবারে শূন্য থেকে। তবে আশা করছি শিগগিরই গুছিয়ে নিতে পারবো।
আনন্দ আলো: এবার পেশাগত প্রশ্নের বাইরের কথা বলি। ঘোরাঘুরি পছন্দ?
স্পর্শিয়া: ভীষণ পছন্দ। কাজের ফাঁকে সময় পেলেই ঘুরতে চলে যাই। নির্দিষ্ট কোনো পছন্দের জায়গা নেই। যেখানে ইচ্ছে হয় চলে যাই। যাওয়ার পরে পছন্দ হলে হয় না হলেও হয়। পাহাড়, সমুদ্র, নদী, খাল-বিল সবই পছন্দ। তবে পাহাড় একটু বেশি টানে। আর হ্যাঁ, বেড়াতে গেলে বই পড়া হয়।
আনন্দ আলো: উপন্যাস পছন্দ নাকি কবিতা?
স্পর্শিয়া: উপন্যাস, কবিতা দুটোই পছন্দ। সমরেশ মজুদারের উপন্যাস ভীষণ পছন্দ। ছোটবেলায় যখন প্রেম বুঝতাম না তখন তার উপন্যাস পড়ে ভীষণ প্রেমে পড়েছিলাম লোকটার। আর কবিতার ক্ষেত্রে শক্তি চট্টোপাধ্যায়, জীবনানন্দ দাশ সহ অনেকের কবিতাই ভালো লাগে।
আনন্দ আলো: ‘ফিরে দেখা’ সিনেমা ছাড়া আর কোনো সিনেমার নিয়ে কথা চলছে?
স্পর্শিয়া: হ্যাঁ, চলছে। তবে তা এখন জানাতে চাই না। আগে ঠিক হোক তারপর জানান দিবো।