SHARE

সময়টাই হচ্ছে এখন বাসায় থাকার। আপনি যতোটা বাসায় থাকবেন ততোটাই নিজে এবং আপনার পরিবার সুরক্ষিত থাকবে। তাই বাসায় থাকা বোরিং সময় কাটানোর জন্য এই সময়ে দেখে নিতে পারেন কিছু জনপ্রিয় বাংলা সিনেমা। হয়তো অনেকবার দেখতে গিয়েও সময়ের জন্য দেখা হয়ে ওঠেনি ছবিগুলো।
বাংলা চলচ্চিত্রের একটি কালজয়ী সিনেমা ‘তিতাস একটি নদীর নাম’। ১৯৭৩ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত এই ছবিটি অদ্বৈত মল্লবর্মণের উপন্যাস থেকে ছবিটি নির্মাণ করেছেন ঋত্বিক ঘটক। এতে অভিনয় করেছেন গোলাম মুস্তাফা, কবরী বেগম, রোজী সামাদ, প্রবীর মিত্র প্রমুখ। ছবিটি ইউটিউবে সার্চ দিলেই পেয়ে যাবেন। শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের উপন্যাস অবলম্বনে কালজয়ী চলচ্চিত্র ‘দেবদাস’। ভারতীয় উপমহাদেশে এই ছবিটি অনেকবার অনেকভাবে অনেক নির্মাতাই নির্মাণ করেছেন। তবে ১৯৮২ সালে চাষী নজরুল ইসলাম ছবিটি নির্মাণ করে বেশ আলোচিত হোন। তখন ছবিটিতে অভিনয় করেছিলেন বুলবুল আহমেদ, কবরী, আনোয়ারা, রহমান, আনোয়ার হোসেন, গোলাম মুস্তাফা প্রমুখ। চাষী নজরুল ইসলামের পরিচালনায় দ্বিতীয় সংস্করণে এই ছবিতে অভিনয় করেছেন শাকিব খান, মৌসুমী, অপু বিশ্বাস, শহিদুজ্জামান সেলিমসহ আরও অনেকে। এই ছবিটির দুটি সংস্করণ ইউটিউবে সার্চ দিলেই পাওয়া যাচ্ছে। আরেক আলোচিত ছবি ‘সারেং বউ’। শহিদুল্লাহ কায়সারের গল্প অবলম্বনে এটি ১৯৭৮ সালে নির্মাণ করেন আব্দুল্লাহ আল মামুন। অভিনয় করেছেন ফারুক, কবরী, আরিফুল হক, জহিরুল হক, বিলকিস, বুলবুল ইসলাম, ডলি চৌধুরী প্রমুখ। ছবিটি লেজার ভিশনের ইউটিউব চ্যানেলে দেখা যাচ্ছে।
আমজাদ হোসেন পরিচালিত ১৯৭৬ সালের আলোচিত ছবি ‘নয়নমনি’। এতে অভিনয় করেছেন ফারুক, ববিতা প্রমুখ। এটি ইউটিউবের বাংলা নাটক চ্যানেলে দেখা যাচ্ছে। আমজাদ হোসেনের আরেক আলোচিত ছবি ‘গোলাপি এখন ট্রেনে’। ১৯৭৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ছবিতে অভিনয় করেছেন ববিতা, ফারুক, আনোয়ার হোসেন, রোজী সামাদ, আনোয়ারা, রওশন জামিল, এটিএম শামসুজ্জামান প্রমুখ। ঈগল মুভিজ এর ইউটিউব চ্যানেলে ছবিটি দেখা যাচ্ছে। ১৯৯৩ সালের আলোচিত ছবি ‘পদ্মা নদীর মাঝি’। মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপন্যাস অবলম্বনে এটি নির্মাণ করেন গৌতম ঘোষ। এতে অভিনয় করেন রাইসুল ইসলাম আসাদ, চম্পা, রূপা ব্যানার্জী, উৎপল দত্ত প্রমুখ। এটি জিসিরিজের ইউটিউব চ্যানেলে দেখতে পাবেন। ২০০৪ সালে মুক্তি পায় তৌকির আহমেদের পরিচালনায় ছবি ‘জয়যাত্রা’। অভিনয় করেছেন বিপাশা হায়াত, আজিজুল হাকিম , মাহফুজ আহমেদ, হুমায়ূন ফরীদি, তারিক আনাম খান, আবুল হয়াত, মেহবুবা মাহনূর চাঁদনী প্রমুখ। ‘জয়যাত্রা’ জিসিরিজের ইউটিউব চ্যানেলে দেখা যাচ্ছে। হুমায়ূন আহমেদের পরিচালনায় বহুল আলোচিত ছবি ‘আগুনের পরশমনি’। ১৯৯৪ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত এই ছবিতে অভিনয় করেছেন বিপাশা হায়াত, আসাদুজ্জামান নূর, আবুল হায়াত, ডলি জহুর প্রমুখ। ছবিটি লেজার ভিশনের ইউটিউ চ্যানেলে দেখা যাচ্ছে। নন্দিত নির্মাতা হুমায়ূন আহমেদের আরেক আলোচিত ছবি ‘শ্রাবণ মেঘের দিন’। ১৯৯৯ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ছবিটিতে অভিনয় করেছেন জাহিদ হাসান, শাওন, মাহফুজ আহমেদ, আনোয়ারা, মুক্তি, গোলাম মুস্তফা, সালেহ আহমেদ ও ডাঃ এজাজ প্রমুখ। ছবিটি দেখতে হলেও লেজার ভিশনের ইউটিব চ্যানেলে যেতে হবে। এই নির্মাতার আরো কিছু ছবি দেখতে পারেন যেমন-

‘চন্দ্রকথা’ (অভিনয়ে: ফেরদৌস আহমেদ, মেহের আফরোজ শাওন, আসাদুজ্জামান নূর, আহমদ রুবেল প্রমুখ), ‘শ্যামল ছায়া’ (অভিনয়ে: হুমায়ূন ফরীদি, রিয়াজ, মেহের আফরোজ শাওন, স্বাধীন খসরু, তানিয়া আহমেদ, আহমেদ রুবেল, এজাজুল ইসলাম, ফারুক আহমেদ, শামীমা নাজনীন, জেসমিন পারভেজ প্রমুখ), ‘আমার আছে জল’ (অভিনয়ে: ফেরদৌস, মীম, জাহিদ হাসান, মেহের আফরোজ শাওন, পিযুষ বন্দোপাধ্যায়, মুনমুন আহমেদ, সালেহ আহমেদ, জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায় ও ডাক্তার এজাজ আহমেদ) এই ছবিগুলো ইউটিউবে সার্চ দিলেই দেখে নিতে পারেন নানান চ্যানেলে। হুমায়ূন আহমেদের উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত ছবি ‘কৃষ্ণপক্ষ’। নির্মাণ করেছেন মেহের আফরোজ শাওন। ইমপ্রেস টেলিফিল্মের ব্যানারে নির্মিত ছবিটিতে অভিনয় করেছেন রিয়াজ, মাহিয়া মাহী, ফেরদৌস প্রমুখ। এটি চ্যানেল আইয়ের ইউটিউব চ্যানেলে দেখা যাচ্ছে। গৌতম ঘোষ পরিচালিত ভারত ও বাংলাদেশের ইমপ্রেস টেলিফিল্মের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত আলোচিত ছবি ‘মনের মানুষ’। এটি সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের ‘মনের মানুষ’ উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত হয়। লালন ফকিরের জীবনীর উপর নির্মিত এই ছবিতে অভিনয় করেছেন প্রসেনজিৎ, চঞ্চল চৌধুরী, রাইসুল ইসলাম আসাদ, পাওলি দাম প্রমুখ। ছবিটি চ্যানেল আইয়ের ইউটিউব চ্যানেলে দেখা যাচ্ছে। মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর পরিচালনায় বেশকিছু আলোচিত ছবি আছে যেগুলো দেখতে পারেন এই সময়ে। ইমপ্রেস টেলিফিল্ম প্রযোজিত ছবিগুলো বেশ আলোচিত হয়েছে। এগুলো দেখতে হলে চ্যানেল আইয়ের ইউটিউব চ্যানেলে যেতে হবে। ছবিগুলো হচ্ছে- ‘ব্যাচেলর’ (অভিনয়ে: হুমায়ূন ফরিদী, ফেরদৌস, অপি করিম, শাবনুর, আহমেদ রুবেল, আরমান পারভেজ মুরাদ, জয়া আহসান প্রমুখ), ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ (অভিনয়ে: তারিক আনাম খান, জাহিদ হাসান, ফজলুর রহমান বাবু, তানিয়া আহমেদ, রোজী সিদ্দিকী প্রমুখ) , ‘থার্ড পারসন সিঙ্গুলার নাম্বার’ (অভিনয়ে: নুসরাত ইমরোজ তিশা, মোশাররফ করিম, আবুল হায়াত, তপু প্রমুখ)। ইমপ্রেস টেলিফিল্মের আরো কিছু আলোচিত ছবির মধ্যে রয়েছে ‘মেঘের পরে মেঘ’, ‘শাস্তি’, ‘সুভা’, ‘মধুমতি’, ‘স্বপ্নডানায়’, ‘দারুচিনি দ্বীপ’, ‘অজ্ঞাতনামা’, ‘জালালের গল্প’, ‘গহীনে শব্দ’, ‘লালটিপ’, ‘ঘাসফুল’, ‘কমলা রকেট’, ‘রং নাম্বার’ ও ‘ইতি, তোমারই ঢাকা’ সহ আরো কিছু আলোচিত ছবি। এই ছবিগুলো ছাড়াও আপনি ইউটিউবে পুরনো বাংলা ছবির মধ্যে দেখতে পারেন ‘জীবন থেকে নেয়া’, ‘ঘুড্ডি’, ‘লালসালু’, ‘বসুন্ধরা’, ‘হাঙ্গর নদীর গ্রেনেড’, ‘পোকামকাড়ের ঘরবসতি’, ‘ছুটির ঘন্টা’, ‘আলোর মিছিল’, ‘অশিক্ষিত’ ও ‘দ্বীপু নাম্বার টু’সহ আরো কিছু ছবি। এছাড়াও ইউটিউবে দেখে নিতে পারেন ‘গেরিলা’ ও ‘আয়নাবাজি’র মতো ছবিগুলো। ঘরবন্দি এই সময়ে ছবিগুলো দেখলে হয়তো সময়টা মন্দ কাটবে না।