SHARE
shamima-najnin

মোহাম্মদ তারেক

আনন্দ আলো: এত কাজ থাকতে অভিনয়ে এলেন কেন?

শামীমা নাজনীন: বোধকরি অভিনয় করার জন্যই জন্মগ্রহণ করেছি। এছাড়া আর কোনো বিকল্প ছিল না।

আনন্দ আলো: জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয় যে কাজ অর্থাৎ নাটকটি?

শামীমা নাজনীন: হুমায়ূন স্যারের নাটকগুলোই আমার অভিনয় জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয়। স্যারের ‘অদেখা ভুবন বনুর গল্প’ নাটকটি আমার জীবনের একটা টানিং পয়েন্ট।

আনন্দ আলো: দেশের টিভি দেখেন?

শামীমা নাজনীন: এইডা কিতা কন। আমাগো দেশের টিভি দেখুম না ক্যারে?

আনন্দ আলো: একদিন সকালে ঘুম থেকে জেগে দেখলেন আপনার সামনে দাঁড়িয়ে আছেন নন্দিত কথা সাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ। তাকে দেখে আপনি কী করবেন?

শামীমা নাজনীন: প্রথমে তাকে দেখে অবাক হবো। তারপর বলব স্যার, আপনার জন্য আজ আমি অভিনেত্রী শামীমা নাজনীন। আমার অভিনয় জীবনে যাবতীয় যা কিছু অর্জন সব কিছুতেই আপনার অবদান। আপনাকে আমরা অনেক মিস করছি। আপনি আমাদের মাঝে আবার চলে আসেন।

আনন্দ আলো: অভিনয় ছাড়া আর যা ভালো করতে পারেন?

শামীমা নাজনীন: অভিনয় ছাড়া আবৃত্তি ভালো করতে পারি।

আনন্দ আলো: হঠাৎ ছিনতাইকারীর কবলে পড়লে কী করবেন?

শামীমা নাজনীন: ভাইরে, জীবনের মূল্য অনেক বড়।  যা কিছু আছে সব দিয়ে দেব।

আনন্দ আলো: কোনো গ্রামে আপনি শুটিং করতে গেলেন। ক্যামেরা, লাইট, অ্যাকশন বলার সঙ্গে সঙ্গে আপনার কণ্ঠে পুরুষালি কথা বের হতে লাগলো।  তখন আপনি কী করবেন?

শামীমা নাজনীন: সেটাকে আমি খুব সুন্দর ভাবে অ্যাকটিংয়ের একটা পার্ট হিসেবে কাজে লাগাবো।

আনন্দ আলো: বেশির ভাগ নাটকে আপনাকে ময়মনসিংহের ভাষায় কথা বলতে দেখা যায় কেন?

শামীমা নাজনীন: আমি এ ভাষার চরিত্রে অভিনয় করতে চাই না। কিন্তু ডিরেক্টররা মনে করেন এই ভাষায় কথা বললে দর্শক হয়তো অনেক পছন্দ করবেন। সে জন্য তারা আমাকে দিয়ে এটা করিয়ে নেন।

আনন্দ আলো: আপনার অভিনয় দেখে অনেকে আনন্দ পান। আপনার আনন্দ কিসে?

শামীমা নাজনীন:  আমার আনন্দ শুধু অভিনয় করা।

আনন্দ আলো: আবার যদি কিশোরী বয়স ফিরে পান তখন কী করবেন?

শামীমা নাজনীন: এতদিন বোধকরি অভিনয়টা মনোযোগ দিয়ে করেনি, আবার কিশোরী বয়স ফিরে পেলে অভিনয়টা মনোযোগ দিয়ে শুরু করবো।

আনন্দ আলো: যে প্রশ্ন শুনতে শুনতে ক্লান্ত

shamima-najnin-1শামীমা নাজনীন: আফা, আপনি এত ভালো অভিনয় করিন কেন?

আনন্দ আলো: প্রতিদিন নিশ্চয়ই ফেসবুকে ঢুঁ মারেন। প্রথমে কী খোঁজেন?

শামীমা নাজনীন: দুই একদিন পর পর ফেসবুকে বসি। প্রথমে খুঁজি বন্ধুদের। ওরা কে কেমন আছে সেটা জানার চেষ্টা করি।

আনন্দ আলো: সময় ও নদীর স্রোত কারো জন্য অপেক্ষা করে না ক্যামনে?

শামীমা নাজনীন: ওদের ব্রেক নেই বলে।

আনন্দ আলো: গুজবে কান দিলে কী হয়?

শামীমা নাজনীন: কানের অপব্যবহার হয় এবং সময় নষ্ট হয়।

আনন্দ আলো: যে নাটক দেখে কেঁদেছি…

শামীমা নাজনীন: আফজাল হোসেন ও সুবর্ণা মুস্তাফা অভিনীত ‘পারলে না রুমকী’ নাটকটি দেখে আমার মন ভীষণ খারাপ হয়েছিল। আমি কেঁদেছিলাম।

আনন্দ অলো: গ্রাম, কেজি, মন, ছটাকের মধ্যে পার্থক্য কী?

শামীমা নাজনীন: মানুষ গ্রামে বাস করে, কিন্তু কেজি, মন, ছটাকে বাস করে না।

আনন্দ আলো: ডুবো জাহাজ পানির নীচ দিয়ে চলাফেরা করে কেন?

শামীমা নাজনীন: ট্র্যাফিক জ্যামের ভয়ে।

আনন্দ আলো: খুব রেগে যাই, যখন…

শামীমা নাজনীন: যখন দেখি কেউ শিল্প ও শিল্পীর সঙ্গে প্রতারণা করে আর কেউ মিথ্যা কথা বলে।

আনন্দ আলো: জীবনের যে সময়টা ফ্রেমে বন্দী করে রাখার মতো…

শামীমা নাজনীন: আমার পুরো জীবনটা। তবে কিছু কিছু ভুল ছাড়া।

আনন্দ আলো: সূর্য কি কভু রাত দেখেছে?

শামীমা নাজনীন: এইডা কিতা কন সূর্যের কি চোউখ আছে যে দেখবে।