SHARE
MITHLA

বিজ্ঞাপন দিয়ে মিডিয়া জগতে যাত্রা শুরু করলেও অভিনয়ের মাধ্যমে জনপ্রিয়তা অর্জন করেন রাফিয়াত রশিদ মিথিলা। এখন টেলিভিশনের চেয়ে ওয়েবেই কাজ করেন বেশি। অফিসিয়াল কাজে ক’দিন আগে দক্ষিণ আফ্রিকা গিয়েছিলেন তিনি। ফিরে আসার পর বর্তমান ব্যস্ততা ও সমসাময়িক প্রসঙ্গ নিয়ে কথা বলেছেন তিনি-
আনন্দ আলো: বর্তমান ব্যস্ততা কী নিয়ে?
মিথিলা: অফিসিয়াল কাজে দক্ষিণ আফ্রিকায় গিয়েছিলাম। অনেকদিন থাকতে হয়েছে। ফিরে আসার পর হাতে এখন তেমন কোনো কাজ নেই। তবে কিছু নাটক ও বিজ্ঞাপনের কাজ নিয়ে কথা হচ্ছে।
আনন্দ আলো: আগের চেয়ে অভিনয়ে কম দেখা যায় আপনাকে। কারণ কী?
মিথিলা: অভিনয়ে কম দেখা যায় বিষয়টি ভুল। আগেও আমি অনেক কাজ করতাম না। আমি চাকরি করি। সময় পেলে এবং গল্প ভালো লাগলে নাটকে কাজ করতাম। এখনও তাই করি। বিশেষ দিনগুলোতেও কাজ করা হয় বেশি।
আনন্দ আলো: আপনাকে এখন টেলিভিশনের চেয়ে ওয়েব নাটকে বেশি দেখা যায়?
মিথিলা: প্রচারের অনেক মাধ্যম রয়েছে এখন। টেলিভিশনের চেয়ে ওয়েবে ঝুঁকেছি বিষয়টি এমন নয়। তবে হ্যাঁ, এখন ওয়েব নাটকে নির্মাতারা মনোযোগী হয়েছেন। গল্পও ভালো লাগে, তাই কাজ করি।
আনন্দ আলো: চলচ্চিত্রে অভিনয়ের ইচ্ছা আছে?
মিথিলা: আমি অবশ্যই চলচ্চিত্রে কাজ করতে চাই। তবে আমার সাথে যায় এমন চরিত্রে কাজ করবো। কিছু চলচ্চিত্রে কাজ নিয়ে কথাবার্তা চলছে। সময় হলে জানাবো।
আনন্দ আলো: আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী?
মিথিলা: আমি পরিকল্পনা করে কাজ করি না। চাকরির পাশাপাশি সময় পেলে অভিনয় করি। অভিনয়ের মাধ্যমে এমনভাবে কাজ করতে চাই- যেনো দর্শক তা অনেকদিন মনে রাখে।

ফের জুটি মীর সাব্বির-শশী

ফের নাটকে জুটিবদ্ধ হয়েছেন অভিনেতা মীর সাব্বির ও শারমীন জোহা শশী। এবার ভিন্নধর্মী একটি টেলিফিল্মে তারা দুজন একসঙ্গে অভিনয় করেছেন। টেলিফিল্মের নাম ‘কালের যাত্রা’। এটি নির্মাণ করেছেন মেহেদী হাসান ইশা। এরই মধ্যে রাজধানীর ‘তিনশ ফুট’ এলাকায় টেলিফিল্মটির দৃশ্য ধারণের কাজ শেষ হয়েছে। টেলিফিল্মটিতে অভিনয় প্রসঙ্গে মীর সাব্বির বলেন, ‘শশী এবং আমার কাজের রসায়নটা শুরু থেকেই অনেক ভালো। শশী নিঃসন্দেহে একজন ভালো অভিনেত্রী। আমি জানি যে যারা এই সময়ে চ্যালেঞ্জিং চরিত্রে কোনো অভিনেত্রীকে নিয়ে কাজ করতে চায়, তারা শশীর কথা ভাবেন এবং তাকে নিয়ে কাজ করার চেষ্টা করেন। কালের যাত্রা’য় শশী অসাধারণ অভিনয় করেছে। আমরা দুজন গল্পটিতে যথাযথভাবে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি।’ শশী বলেন, ‘সাব্বির ভাই গুণী একজন অভিনেতা। সহশিল্পী হিসেবে তার সঙ্গে অনেক নাটকেই কাজ করেছি। আবার তার নির্দেশনাতেও কাজ করেছি। অভিনেতা হিসেবে সাব্বির ভাই সফল, পাশাপাশি নির্মাতা হিসেবেও তিনি একজন দক্ষ নির্মাতা। কালের যাত্রা’য় টেলিফিল্মে আমরা দুজন নিজেদের অভিনয়ে একটু ভ্যারিয়েশন আনার চেষ্টা করেছি। আশা করছি ভালো লাগবে দর্শকের।’ নির্মাতা জানান, শিগগিরই টেলিফিল্মটি একটি স্যাটেলাইট চ্যানেলে প্রচার হবে।