Home টি-২০ আড্ডা আমি প্রেমে বিশ্বাস করি না!-হিমি

আমি প্রেমে বিশ্বাস করি না!-হিমি

SHARE
himi-(10)

মোহাম্মদ তারেক
আনন্দ আলো: আপনি কি হিমি?
হিমি: আমি জান্নাতুল সুমাইয়া হিমি।
আনন্দ আলো: হিমি নামের অর্থ কী?
হিমি: হিমি নামের অর্থ অনেক ঠান্ডা।
আনন্দ আলো: আপনি তাহলে অনেক ঠান্ডা।
হিমি: আমি অনেক ঠান্ডা হতে যাবো কেন। আমি শান্ত স্বভাবের একটি মেয়ে।
আনন্দ আলো: এত কাজ থাকতে অভিনয়ে এলেন কেন?
হিমি: ছোটবেলা থেকেই নাচ গান আবৃত্তি শিখেছি। আর অভিনয়ের প্রতি দূর্বরতা ছিল বলেই অভিনয়ে আসা।
আনন্দ আলো: জীবনের মোড় ঘুমিয়ে দেয় যে কাজটি…
হিমি: ২০১৪ সালে রঙ আর টিভি টোয়ান্টি টোয়ান্টি কালার প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন এবং ২০১৭ সালে মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতা এই দুটি কাজই আমার জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয় বলতে পারেন।
আনন্দ আলো: ক্যামেরার সামনে প্রথম দিন…
হিমি: ছোটবেলায় বিটিভিতে ম্যাগাজিন অনুষ্ঠানে ‘অংকুর’ নামে একটি নাটকে অভিনয় করেছিলাম। সেদিন ক্যামেরার সামনে প্রথম দাঁড়াই।
আনন্দ আলো: আপনার অভিনীত প্রথম নাটক…
হিমি: আমার অভিনীত প্রথম নাটক ‘মুখোশ’। এটি পরিচালনা করেছিলেন শ্রাবনী ফেরদৌস ও শুভ্র খান। আমার বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন ইউসুফ রাসেল। প্রথম নাটকে অভিনয়ের সময় খুব ভয় পেয়েছিলাম। তবে শ্রাবণী আপা ও শুভ্র ভাই আমাকে অনেক সহযোগিতা করেছিলেন। এজন্য নাটকে আমার চরিত্রটি সুন্দর ভাবে ফুটিয়ে তুলতে পেরেছিলাম।
আনন্দ আলো: আপনাকে একদিনের জন্য মঙ্গলগ্রহে পাঠানো হলে কাকে সঙ্গে নিতে চাইবেন?
হিমি: আমার ভাইকে সঙ্গে নিতে চাইব। কারণ ও অনেক অ্যাডভেঞ্চারাস। মঙ্গলগ্রহে গিয়ে কী করতে হবে ও ভালো বুঝবে।
আনন্দ আলো: ফেসবুকের ইনবক্সে কী ধরনের প্রস্তাব বেশি পান?
হিমি: হাই আপি, কেমন আছেন, কি করছেন, এ ধরনের প্রস্তাব বেশি পাই।
আনন্দ আলো: যে চরিত্রে ভেতরে ঢুকে পড়েছিলাম।
হিমি: চ্যানেল আইয়ের ‘মোহর আলী’ ধারাবাহিক নাটকটির গুলবদন চরিত্রের ভেতর যেন সত্যি সত্যিই ঢুকে পড়েছিলাম।
আনন্দ আলো: অভিনয় ছাড়া আর যা ভালো করতে পারেন?
হিমি: গান গাইতে পারি। নাচতে পারি। ছবি আঁকতে পারি। মানুষকে ভালোবাসতে পারি।
আনন্দ আলো: যাকে অথবা যাদের দেখে এখনো অভিনয় শিখি…
হিমি: আমি সিনিয়র অভিনেত্রীদের কাছ থেকে কিছু না কিছু নেয়ার চেষ্টা করি। জয়া আহসান, তিশা আপুদের অভিনয় দেখে এখনো অভিনয় শিখি।
আনন্দ আলো: যে নাটক দেখে প্রচন্ড হেঁসেছেন…
হিমি: অনেক নাটক দেখে হেঁসেছি। তবে হুমায়ূন আহমেদ স্যারের ‘এই বরষা’ নাটকটি দেখে আমি প্রচন্ড হেঁসেছি।

আনন্দ আলো: জীবনের যে সময়টা ফ্রেমে বন্দী করে রাখার মতো…
হিমি: ছোটবেলায় আমি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে তিনবার পুরস্কার নিয়েছিলাম। ওই সময়টা ফ্রেমে বন্দী রাখার মতো।
আনন্দ আলো: তোমার জন্য জীবন দিতে পারি কিন্তু…
হিমি: জীবন দিতে পারি কিন্তু দেব না। কারণ জীবন দিতে গেলে যদি মরে যাই।
আনন্দ আলো: বন্ধুরা আমাকে যা বলে খ্যাপায়…
হিমি: আমি খুবই অলস। তাই বন্ধুরা আমাকে সব সময় লেজী বলে খ্যাপায়।
আনন্দ আলো: এখনো যার প্রেমে মশগুল…
হিমি: আমি প্রেমে পড়ি নাই। আমার ওরকম কেউ নেই যে যার প্রেমে মশগুল। তবে অভিনয়ের প্রেমে আমি মশগুল।
আনন্দ আলো: হিমির সবচেয়ে বাজে অভ্যাস…
হিমি: হিমির সবচেয়ে বাজে অভ্যাস ভুলে যাওয়া।
আনন্দ আলো: প্রথম দর্শনে প্রেম বিশ্বাস করেন…
হিমি: প্রথম দর্শনেই আমি প্রেম বিশ্বাস করি না। কারণ আমার কাছে মনে হয় যে একটা মানুষের চেহারা বা দর্শনের থেকে বেশি ইমপ্রোটেন্ট তার পার্সোনালিটি। তাকে না জানা পর্যন্ত আমার মনে হয় না প্রেম হওয়া উচিত।
আনন্দ আলো: কার কথা সব সময় মনে হয়?
হিমি: আমার বাবার কথা সব সময় মনে হয়। কারণ আব্বু একটু দূরে থেকেও সব সময় আমাকে সাপোর্ট দেয়। যখন আমি চুপচাপ থাকি তখন বেশি আব্বুর কথা মনে হয়।