SHARE

শামীম ওসমান, সংসদ সদস্য, নারায়ণগঞ্জ-৪

সহজ কথা যায় না বলা সহজে। আবার কম সময়েও প্রয়োজনীয় কথা বলা সহজ হয় না। এসো আড্ডা দেই, পাঁচ মিনিট… এ ধরনের কথা শুনলে প্রথমেই অনেকে না-না করে উঠবেন। বলবেন, আরে ভাই মাত্র পাঁচ মিনিটের আড্ডায় কি বলব? শুরু করতে করতেই তো শেষ হয়ে যাবে। এতো গেল ব্যক্তিগত পর্যায়ের আড্ডা। কিন্তু আড্ডাটা যদি হয় কোনো টেলিভিশন অনুষ্ঠানের জন্য। সময় মাত্র পাঁচ মিনিট অর্থাৎ ৩০০ সেকেন্ড। উপস্থাপক প্রশ্ন করবেন। অতিথি উত্তর দিবেন। বাস্তবেও তাই হয়েছে। চ্যানেল আইতে শাহরিয়ার নাজিম জয়-এর উপস্থাপনায় ৩০০ সেকেন্ড নামের একটি ব্যতিক্রমধর্মী অনুষ্ঠান বেশ জমে উঠেছে। এই অনুষ্ঠানেরই বাছাই করা ১০০জন বিশিষ্ট ব্যক্তির ৩০০ সেকেন্ড অর্থাৎ  পাঁচ মিনিটের সাক্ষাৎকার নিয়ে আনন্দ আলোর ঈদ সংখ্যার একটি বিশেষ আয়োজন এখন বাজারে। আজ থেকে অনলাইনে শুরু হলো এই সংখ্যার অন্তর্ভুক্ত একশজন বিশিষ্ট ব্যক্তির সাক্ষাৎকার…


জয়: শামীম ভাই আপনাকে লোকে ভয় পায় এমনটা কেন?
শামীম: আমার মনে হয়না আমাকে জনগন ভয় পায়। ভয় পেলেতো তিন পুরুষ ধরে এমপি হতাম না। এবং একই ঘরের তিন ভাইই আমরা এমপি। ভয় পায় হয়তোবা যারা রাজাকার, আলবদর, আলশামস এবং দেশের বিরুদ্ধে কাজ করে তারা।
জয়: লোকে বলে আপনার বাবা রাজনীতির একটি পরিচিত মুখ ছিলেন এবং বঙ্গবন্ধুর সাথে অনেক ভালো সম্পর্ক ছিল এবং সে কারণ আপনি অনেক এ্যাডভান্টেজ নিয়েছেন এটা কী সত্যি?
শামীম: মোটেই সত্যি না। আমার বাবা না আমার দাদার সময় থেকে রাজনীতি চলছে আমাদের পরিবারে এবং আমাদের বাসাতেই এই আওয়ামী লীগের জন্ম। কিন্তু আমার বাবা যিনি আমার গুরু কিন্তু কোনসময় আমাকে অন্যদের থেকে আলাদা করে দেখেননি। কলেজ থেকে আমার রাজনীতির শুরুর ও দেড় বছর পর মানুষ জানতে পারে আমি কোন বংশের। এটা ছিল আমার বাবার শর্ত। আমার পরিচয় যদি জানতে পারতো কেউ কলেজে, তাহলে আমার বাবা আমাকে সেখানে পড়াবেন না এমন বলা ছিল। কারণ তিনি চাইতেন ক্লাসের সবচেয়ে নীরিহ ছেলেও যেন আমাকে বন্ধু বানাতে পারে। এবং এটাই ছিল রাজনীতিতে আমার ফার্স্ট লেসন।
জয়: শুদ্ধির কাজ চলছে আপনি কী ভয় পাচ্ছেন?
শামীম: না আমার ভয় পাওয়ার মতো কিছুই নেই এ বিষয়ে।এই অভিযানের এক বছর আগেই আমি আমার দলীয় নেত্রীকে সুশাসন প্রতিষ্ঠার পদক্ষেপ নিতে অনুরোধ করেছি।
জয়: সম্রাট ধরা পড়লো, খালেদ ধরা পড়লো লোকে ভেবেছিলো আপনি সবার আগে ধরা পরবেন কিন্তু কী হলো সেটার? কোথায় লুকিয়ে ফেললেন ক্যাসিনো?
শামীম: মানুষ যদি ভাবে অনেক চালাকি করে হরিণের মতো জঙ্গলে মাথা গুজে পার পেয়ে যাবো তাহলে তা ভুল। আমি তো রাজনীতিতে আসার পর অহরহ পার্লামেন্টে বলেছি, টক শোতে বলেছি আমার বিরুদ্ধে কেউ একটা চার্জ প্রমান করতে পারলে রাজনীতি ছেড়ে দিবো। ওপেন চ্যালেঞ্জ দিয়েছি কিন্তু কেউ নেয়নি কিন্তু যা করেছে তার বদলে সেটা হলো একটি ভুল পারসেপশন বিল্ড আপ করা। সেটা কেন আমি জানিনা।
জয়: লোকে বলে আপনি স্বাভাবিক নামাজ বাদেও আরো অনেক নামাজ পড়েন কথা কী সত্য?
শামীম: জী আমি নামাজ পড়ি আমার সৃষ্টিকর্তাকে সন্তুষ্ট করতে।
জয়: আপনি নাকি ৬০ বছর হলে রাজনীতি থেকে অবসর নিবেন?
শামীম: না। এমন একটি চিন্তা মাথায় আছে। যদি সে সময়ে দেখি আমাদের দেশে শুশাসন থাকে এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সন্তুষ্ট দেশের পরিস্থিতি নিয়ে তাহলেই ভাবতে পারি। কারণ আমি অনেক ছোট ক্ষমতার মানুষ কিন্তু কিছু দায়বদ্ধতা আছে যেগুলোকে ফেলে যেতে পারিনা।
জয়: আপনি এক কথায় শামীম ওসমানকে কিভাবে উপস্থাপন করবেন?
শামীম: আই এম নট আ সাকসেসফুল পার্সন বাট আই এম শাইন টু বি আ সাকসেসফুল পার্সন।
প্রচার: ১৫ নভেম্বর ২০১৯