Home আরোও বিভাগ সম্পাদকের লেখা অনেক অভিনন্দন অনেক শুভেচ্ছা…

অনেক অভিনন্দন অনেক শুভেচ্ছা…

SHARE
CMA

খেলাতো খেলাই। কেউ হারে কেউ জিতে। এটাই খেলার নিয়ম। কিন্তু কোনো খেলায় পাকিস্তান বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ হয়ে দাঁড়ালেই অস্থির হয়ে ওঠেন সোবহান সাহেব। বাংলাদেশের জয়ের জন্য আকুল প্রার্থনা করতে থাকেন সৃষ্টিকর্তার কাছে। এই যেমন আবুধাবীতে এশিয়া কাপের অঘোষিত সেমিফাইনালে বাংলাদেশের সাথে পাকিস্তানের লড়াই হবে। যে দল জিতবে সে দলই খেলবে ফাইনালে ভারতের সাথে। বিকেলে খেলা শুরু হওয়ার আগেই টেলিভিশনের সামনে বসে গেলেন সোবহান সাহেব। বাড়ির কেয়ার টেকার সাদেকুল খাটি সরিষার তেল দিয়ে চানাচুরের সাথে মুড়ি মেখেছে। মুড়ির সাথে চায়ের আয়োজনও চলছে। আজ বাংলাদেশ যদি পাকিস্তানের সাথে জিতে যায় তাহলে ফাইনাল খেলবে ভারতের সাথে। সেদিন বাসায় পোলাও মাংসের ব্যাপক আয়োজন হবে। এমনটাই সিদ্ধান্ত নিয়ে রেখেছেন সোবহান সাহেব। টচে বাংলাদেশ জিতেছে। সাদেকুল চিৎকার দিয়ে বলল, আব্বা আইজ আমরা জিতব ইনশাআল্লাহ। কেন যেন সোবহান সাহেবেরও মনে হচ্ছে আজ বাংলাদেশ জিতবে। সাদেকুলকে কাছে ডেকে নিলেন তিনি। খেলা শুরু হওয়ার আগে ঘটনাটা ক্লিয়ার হওয়া দরকার। হঠাৎ ছেলে-মেয়েরা সোবহান সাহেবের জন্মদিন পালনের জন্য কেন এতো ব্যস্ত হয়ে উঠেছে সেটা জানা দরকার। কিন্তু সাদেকুল কি আসল ঘটনা বলতে পারবে? সে তো এই বাড়ির কেয়ার টেকার কাম চাকর। তার পক্ষে এত কিছু জানা কি সম্ভব? সাদেকুল চানাচুর ও মুড়িমাখা এক সঙ্গে একটা বাটিতে করে এনে সোবহান সাহেবের হাতে দিয়ে বলল, আব্বা আপনি কি দুধ চা নাকি রং চা খাবেন?
সোবহান সাহেব চায়ের ব্যাপারে তেমন কোনো আগ্রহ না দেখিয়ে সাদেকুলকে প্রশ্ন করলেন- অ্যাই আসল ঘটনা কি বলতো আমাকে?
সাদেকুল বুঝতে না পেরে পাল্টা প্রশ্ন করলÑ কি…? বুঝায়া বলেন…
সোবহান সাহেব বললেন, হঠাৎ সবাই আমার জন্মদিন পালনের জন্য অস্থির হয়ে উঠেছে কেন? তুই কি কিছু জানিস?
সাদেকুল অবাক ভঙ্গি প্রকাশ করে বলল, নাতো জানিনা।
তুই কিছই জানিস না?
না। আমারে তো কেউ কিছু বলেনা। আমি তো এই বাড়ির চাকর… চাকরকে কি কেউ গোপন কথা বলে?
সাদেকুলের কথায় যুক্তি আছে। এই বাড়িটা যখন বানানো হয় তখন থেকেই সোবহান সাহেবের ফ্যামিলির সাথে জড়িয়ে আছে সাদেকুল। সে তার বাবা-মায়ের খবর জানেনা। সোবহান সাহেব এবং তার স্ত্রী খোদেজা বেগমকেই বাবা-মা হিসেবে শ্রদ্ধা করে। এক সময় কথা উঠেছিল পাঁচ তলা বাড়ির একটা ফ্লোর সাদেকুলের নামে লিখে দেওয়া হবে। কিন্তু পারিবারিক জটিলতায় তা এখনও সম্ভব হয়নি।
টিভিতে বাংলাদেশ বনাম পাকিস্তানের ক্রিকেট খেলা শুরু হয়ে গেছে। খেলা দেখার জন্য সোফার উপর নড়ে চড়ে বসলেন সোবহান সাহেব। মনে মনে ভাবলেন আজ-কালের মধ্যেই সাদেকুলের ব্যাপারে একটা সিদ্ধান্ত নিতে হবে। বাড়ির পাঁচতলার একটা অংশ সাদেকুলের নামে লিখে দিবেন। ছেলেটার বয়স হয়েছে। বিয়েশাদী করে সংসার পাতুক সাদেকুল…
পর-পর বাংলাদেশের তিনজন ব্যাটসম্যান আউট হয়ে গেল। তার মানে পাকিস্তানের কাছে হেরে যাবে বাংলাদেশ! অস্থির হয়ে উঠলেন সোবহান সাহেব। আব্বা আমি এই খেলা দেখব না। বলেই ড্রয়িংরুম থেকে বেড়িয়ে গেল সাদেকুল। সোবহান সাহেব একা বসে আছেন টিভি রুমে। তার খুব অস্থির লাগছে।

খ.
প্রিয় পাঠক, সোবহান সাহেবের মতো আপনারাও নিশ্চয়ই সেদিন দুবাইয়ে বাংলাদেশ বনাম পাকিস্তানের ক্রিকেটের অঘোষিত সেমিফাইনাল খেলার শুরুটা দেখে হতাশ হয়ে পড়েছিলেন? সোবহান শুধু হতাশ নন এক পর্যায়ে কান্নাকাটিও করেছেন বাংলাদেশ বনাম পাকিস্তানের খেলা দেখে। সে প্রসঙ্গে পরে আসছি। এবার আনন্দ আলো সম্পর্কে কিছু বলি। অনেকদিন পর সম্পাদকের লেখা শুরু হওয়ায় অনেকেই অভিনন্দন জানিয়েছেন। চট্টগ্রাম থেকে সাদাকাত হোসেন লিখেছেন অনেকদিন পর সোবহান সাহেবের দেখা পেলাম। তার আশি বছর পালন উপলক্ষে কেমন অনুষ্ঠান হবে তা জানার অপেক্ষায় রইলাম। ঢাকার মাদারটেক থেকে হাসনা হেনা লিখেছেন, আনন্দ আলোর সম্পাদকের লেখা শুরু হয়েছে দেখে খুব ভালো লাগল। এর আগেও লেখাটা শুরু হয়েছিল। কিন্তু কোনো ঘোষনা ছাড়াই লেখাটি বন্ধ হয়েছে। এবারও কি সেরকমই হবে? সোবহান সাহেবের জন্মদিন আসলে কবে?
প্রিয় পাঠক, প্রথমেই ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি ইতিপূর্বে ঘোষনা দিয়েও সম্পাদকের রেখা অব্যাহত রাখতে না পারার জন্য। তবে কথা দিচ্ছি এবার থেকে আনন্দ আলোয় সম্পাদকের লেখা থাকবেই…

গ.
বাংলা ভাষার প্রথম ডিজিটাল স্যাটেলাইট টিভি মাধ্যম চ্যানেল আই-এর ২০-এ পর্দার্পণ উপলক্ষে এবার আনন্দ আলোর শীর্ষ কাহিনী প্রকাশ করা হলো। দেশে আজকে এইযে টেলিভিশন মাধ্যমের এতো জয় জয়কার, এতো অগ্রগতি তার পেছনে চ্যানেল আই-এর ভ‚মিকাই অগ্রগণ্য। চ্যানেল আই-এর জন্মদিন উপলক্ষে অনেক শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা রইল।

ঘ.
আমাদের বাংলা গান যে কতটা সমৃদ্ধ আবারও তার প্রমাণ পাওয়া গেল চ্যানেল আই মিউজিক অ্যাওয়ার্ডস প্রদান অনুষ্ঠানে। এবার সিলেটের হবিগঞ্জের প্রতিজুরি ইউনিয়নে অবস্থিত দ্য প্যালেস’এর আঙিনায় বসেছিল চ্যানেল আই মিউজিক অ্যাওয়ার্ডস প্রদান উপলক্ষে দেশের নবীণ-প্রবীণ সঙ্গীত র্শিপীদের মিলন মেলা। অনুষ্ঠানে দেশ বরেণ্য কণ্ঠশিল্পী সুবীর নন্দীকে এবার আজীবন সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে। মঞ্চে মাথা ছুঁয়ে সৃষ্টিকর্তার উদ্দেশে কৃতজ্ঞতা জানিয়ে সুবীর নন্দী বলেছেন, আমি যেন আজীবন গাইতে পারি…। গুণী শিল্পী সুবীর নন্দীর প্রতি রইল অফুরান শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা।

ঙ.
জনপ্রিয় নায়ক ফেরদৌস, চিত্রনায়িকা পপিকে নিয়ে এবার আনন্দ আলোয় দুটি এক্সক্লুসিভ প্রতিবেদন প্রকাশ করা হলো। প্রতিবেদন দুটিতে পাঠক নতুন করে ফেরদৌস ও পপিকে খুঁজে পাবেন বলে আমাদের বিশ্বাস।

চ.
একটা শুভ উদ্যোগের কথা বলি। নাট্যকার সংঘের উদ্যোগে সম্প্রতি নাটক লেখার ওপর একটি কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। দেশের বিশিষ্ট নাট্যশিল্পী ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ এই কর্মশালায় প্রশিক্ষণ দান করেন। কর্মশালায় কৃতিত্ব অর্জনকারী ৫ জন নাট্যকারের নতুন নাটক নিয়ে দেশের বিশিষ্ট ৫ জন নির্মাতা টিভি নাটক নির্মাণ করবেন। নাটকগুলো চ্যানেল আইতে প্রচার হবে। এটি একটি শুভ উদ্যোগ। চ্যানেল আই-এর মতো অন্যান্য টিভি চ্যানেলও এব্যাপারে উদ্যোগী হলে ভালো নাটক নির্মাণের ধারা বেগবান হবে বলে আমাদের বিশ্বাস।

ছ.
আসছে বিবাহের মওসুম। প্রতি বছরের মতো আবারও আনন্দ আলোয় বিশেষ সংখ্যা প্রকাশের প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। প্রিয় পাঠক, আপনারাও যুক্ত হতে পারেন এই আয়োজনে। এবারের ব্রাইডল ক্যাটালগটিকে কেমন দেখতে চান এব্যাপারে পরামর্শ দিন। যারা মডেল হতে চান তারাও যোগাযোগ ধরতে পারেন।

জ.
Cricketপ্রিয় পাঠক, আপনিও হতে পারেন আনন্দ আলোর একজন কর্মী। দেশ-বিদেশে আপনার প্রিয় তারকার ওপর নতুন তথ্য সম্বলিত প্রতিবেদন পাঠাতে পারেন। তারকার সাথে শ্যুটিং দেখার অনুভ‚তি, দূর্লভ মুহূর্তের সেলফি পাঠাতে পারেন আমাদের ঠিকানায়। আনন্দ আলোয় গুরুত্বের সাথে প্রকাশ করা হবে।

ঝ.
এবার একটু ভিন্ন প্রসঙ্গে কথা বলতে চাই। পাশের দেশের একটি বাংলা টেলিভিশন চ্যানেলের গানের প্রতিযোগিতামূলক অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের এক ঝাক তরুণ সঙ্গীত শিল্পী বেশ আলো ছড়িয়েছেন। ওই অনুষ্ঠানটির উপস্থাপনাভঙ্গি এতোটাই আধুনিক যে বাংলাদেশের টিভি দর্শকও অনুষ্ঠানটির প্রতি আকৃষ্ট হচ্ছে। প্রশ্ন উঠেছে বাংলাদেশের টেলিভিশন চ্যানেলগুলো কেন এতো সুন্দর অনুষ্ঠান বানাতে পারছে না? এব্যাপারে আপনার কোনো মতামত থাকলে লিখতে পাবেন আনন্দ আলোয়। তা গুরুত্ব সহকারে প্রকাশ করা হবে।

ঞ.
ও হ্যা, নিশ্চয়ই সোবহান সাহেবের কি হলো জানতে ইচ্ছে করছে? চলুন তার কাছ থেকে ঘুরে আসি। সোবহান সাহেবের অবস্থা বেশ ভালো। গভীর রাত পর্যন্ত টিভিতে বাংলাদেশ বনাম পাকিস্তানের ক্রিকেট খেলা দেখেছেন। বাংলাদেশ জিতে যাওয়ায় খুব খুশি। আনন্দে কেঁদে ফেলেন তিনি। গভীর রাতে ডাইরীতে লিখলেন, খেলায় জয় পরাজয় থাকে। কিন্তু বাংলাদেশ আর পাকিস্তানের খেলা থাকলে আমি বাংলাদেশের জয় না পেলে কেন অস্থির হই? বিদেশের মাটিতে পাকিস্তানকে পরাভ‚ত করেছে দেশের লড়াকু ক্রিকেটাররা। বাবারা, তোমাদের জন্য অনেক অভিনন্দন। জয় হোক বাংলাদেশের ক্রিকেটের।
পুনশ্চ, আমার ৮০ তম জন্মদিনের তোড়জোড় চলছে। কিন্তু আমি চাই না ঘটা করে আমার জন্মদিন পালন করা হোক…
প্রিয় পাঠক, সোবহান সাহেব কেন চাচ্ছেন না ঘটা করে তাঁর ৮০ তম জন্মদিন পালন হোক? আগামী সংখ্যায় চোখ রাখুন…