Home ফিচার সবার দৃষ্টি এখন পরীমনির দিকে

সবার দৃষ্টি এখন পরীমনির দিকে

SHARE
Pori-moni

জাকীর হাসান: রানা প্লাজা ট্র্যাজেডির বিস্ময়কর গার্মেন্টস কর্মী রেশমীর কথা কী মনে আছে? যিনি রানা প্লাজার ধ্বংসাবশেষ থেকে দীর্ঘ ১৭দিন পর জীবিত উদ্ধার হয়েছিলেন। তখন রেশমী শুধু আমাদের দেশে নয় সারা বিশ্ব মিডিয়ায় তাকে নিয়ে তোলপাড় হয়েছে। অল্প কয়েকদিনের মধ্যে বিশাল পরিচিতি পেয়ে যান রেশমী।  সেই রানা প্লাজার হৃদয়বিদারক ঘটনা এবার চলচ্চিত্রের পর্দায়  ঠাঁই পেয়েছে। আর আলোচিত চরিত্র রেশমাকে নিয়ে গড়ে উঠেছে রানাপ্লাজা ছবির কাহিনী। রেশমী চরিত্রে অভিনয় করেছেন বর্তমান সময়ের আলোচিত নবাগত নায়িকা পরীমনি। পরীমনির চলচ্চিত্রে অভিষেক হয়েছে ২০১৪ সালে রানা প্লাজা ছবির মাধ্যমে। তবে তার প্রথম মুক্তি প্রাপ্ত ছবির নাম ‘সীমাহীন ভালোবাসা’। প্রথম ছবি মুক্তি পেতে পরীমনির অপেক্ষা করতে হয়েছে দীর্ঘ দুই বছর। তার প্রথম অভিনীতি ছবি রানাপ্লাজা মুক্তি পাচ্ছে ৪ সেপ্টেম্বর। এই ছবির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান এম এ মাল্টিমিডিয়া ছবিটির মুক্তি উপলক্ষে সম্প্রতি স্থানীয় একটি রেস্টুরেন্টে আয়োজন করে এক অনুষ্ঠানের। সেখানে ছবির কিছু অংশ ও গানের দৃশ্য দেখানো হয়। পরে ছবির পরিচালক নজরুল ইসলাম খান, নায়ক সায়মন ও নায়িকা পরীমনি সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন। অনুষ্ঠানে পরীমনিকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল প্রথম ছবিতে অভিনয়ের অভিজ্ঞতা কেমন? ছবির রেশমী চরিত্রে অভিনয় করতে কেমন লেগেছে আপনার? পরীমনি বলেন, প্রথম ছবি বলে কথা। অভিনয় জীবনের প্রথম ছবি স্মৃতিময় হয়ে থাকবে। এটাকে কখনো ভুলব না। ছবির রেশমী একটি বাস্তব চরিত্র। এমন একটি চরিত্রে অভিনয় করতে পেরে আমি আনন্দিত ও গর্বিত। একটা সময় মনে হয়েছে আমিই সেই রানা প্লাজা ট্র্যাজিডির রেশমী। এই চরিত্র ফুটিয়ে তুলতে আমার… এরপর আর পরীমনি কথা বলতে পারেননি। মাইক্রোফোন হাতে অঝোরে কাঁদতে থাকেন। কান্না সংবরণ করতে না পেরে চলে যান ফ্রেশ রুমে। যখন ফিরে আসেন তখন অনুষ্ঠানের প্রথম পর্ব শেষ।  গত আড়াই দশকে ঢাকার চলচ্চিত্রে অসংখ্য সুন্দরী নায়িকার আগমন ঘটেছে। তবে মূল স্রোতের নায়িকাদের মধ্যে শাবনাজ, মৌসুমী, পপি, শাবনূর, পূর্ণিমা, অপু বিশ্বাস ও মাহিয়া মাহি যে ভাবে দর্শকদের কাছে গ্রহন যোগ্যতা পেয়েছেন এবং প্রতিষ্টিত হয়েছেন তারই সর্বশেষ সংযোজন পরীমনি। মৌসুমী তার প্রথম ছবি কেয়ামত থেকে কেয়ামত মুক্তির সময় সাধারন দর্শকদের কাছে অতি পরিচিত হয়ে উঠেন সুন্দরী প্রিন্ট শাড়ির বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে। পরীমনিও অগ্রজ মৌসুমীর পথ ধরে স্যান্ডেলিনা সোপের বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে এদেশের মানুষের কাছে পরিচিত মুখ হয়ে উঠেছেন। যদিও এবছরের ফেব্র“য়ারিতে মুক্তি পায় পরীমনির প্রথম মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি সীমাহীন ভালোবাসা। একই মাসে মুক্তি পায় পাগলা দিওয়ানা নামে আরো একটি ছবি। ছবি দু’টি ব্যবসায়িক ভাবে সফল হতে পারেনি এবং মিডিয়াতেও আলোচিত হয়নি। তাই  নির্মাতারা ১৪ আগষ্টে মুক্তিপ্রাপ্ত এস এ হক অলিকের আরো ভালোবাসবো তোমায় এবং রানা প্লাজা চলচ্চিত্রকে পরীমনির জন্য ভাগ্য নির্ধারনেরক্ষণ হিসেবে দেখছেন। কারন দু’টি ছবিতে দুই বাজার কাটতি নায়ক আছেন। প্রথমটিতে আছেন সুপারষ্টার শাকিব খান, দ্বিতীয়টিতে আছেন বর্তমানের জনপ্রিয় নায়ক সায়মন। দু’টি ছবিই বিগ বাজেটের, গল্পও চমৎকার। আরো ভালোবাসবো তোমায় ব্যবসা সফল হবে এটা নিশ্চিত মনে করছেন চলচ্চিত্রের নব্বই ভাগ মানুষ। কোনো কারনে পরীমনি ব্যর্থ হলেও শাকিব খানের কারনেই ছবিটি ব্যবসা করবে বলে তাদের বিশ্বাস। আর এই সাফল্য নাকি যোগ হবে ৪ সেপ্টেম্বর মুক্তি প্রতিক্ষিত রানা প্লাজা ছবিতেও। বর্তমানে পরীমনিকে নিয়ে এমন সমীকরন চলছে চলচ্চিত্র মহলে। ২১ আগষ্ট পরীমনির আরো একটি ছবি মুক্তি পাচ্ছে। ছবির নাম লাভার নাম্বার ওয়ান। পরীমনি এ পর্যন্ত এক ডজন ছবিতে সাইন করেছেন। তার মধ্যে এক মাসেই মুক্তি পাচ্ছে তিনটি ছবি। হাতে যে সব ছবি রয়েছে তার মধ্যে আছে- আমার মন জুড়ে তুই, ইনোসেন্টলাভ, সারপ্রাইজ, প্রবাসী ডন, ভালোবাসার অনেক জ্বালা, মন জানেনা মনের ঠিকানা, ধুমকেতু, মোনালীসা প্রভ‚তি।  গত আড়াই দশকে চলচ্চিত্রে যত নায়িকা ফিল্ম ইন্ডষ্ট্র্রিতে পা রেখেছেন তার ৯৫ ভাগ এসেছেন খুলনা বিভাগ থেকে। পরীমনি বরিশালে নানা বাড়িতে বেড়ে উঠলেও তার জন্ম হয়েছে পৈত্রিক নিবাস বৃহত্তর যশোরের নড়াইল জেলার কালিয়াতে। ছোট বেলায় মা ও বাবাকে হারিয়েছেন। মানুষ হয়েছেন মামার কাছে। তার ডাক নাম স্মৃতি। পুরোনাম শামসুন নাহার। চলচ্চিত্রের পাশাপাশি অনেক নাটকেও অভিনয় করেছেন পরীমনি। চলচ্চিত্রে ব্যস্ত হওয়ায় নাটকে অভিনয় করা আপাতত বন্ধ রেখেছেন তিনি।