Home প্রতিবেদন বাংলাদেশে প্রথম মুদ্রণ হলো রুবাইয়াৎ-ই-ওমর খৈয়াম

বাংলাদেশে প্রথম মুদ্রণ হলো রুবাইয়াৎ-ই-ওমর খৈয়াম

SHARE

আনন্দ আলো প্রতিবেদন: সাম্যের কবি, প্রেমের কবি, মেহনতি মানুষের কবি, বিদ্রোহী কবি, বাঙ্গালীর জাতীয় জীবনে ক্রান্তিকাল উত্তরনের কবি, তিনি আমাদের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম।  তিনি যে অনুবাদ সাহিত্যের মহান কারিগর তার প্রমান দিয়েছেন ফার্সি ভাষায় লেখা রুবাইয়াৎ-ই ওমর খৈয়াম বাংলায় অনুবাদ করার মধ্য দিয়ে।  আজ থেকে ৮৫ বছর আগে পারস্য ঔপন্যাসিক ওমর খৈয়ামের অমর গ্রন্হ রুবাইয়াৎ-ই ওমর খৈয়াম প্রথম অনুবাদ করেন জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম।  ১৯৩৫ সালে অনুবাদিত এই বইটি প্রকাশিত হয় কলকাতা থেকে।  দ্বিতীয় সংস্করণও প্রকাশ হয় ১৯৫৮ সালে কলকাতা থেকে।  তখন বইটির চিত্রায়ন করেছিলেন খালেদ চৌধুরী, ভূমিকা লিখেছিলেন বিখ্যাত সাহিত্যিক সৈয়দ মুজতবা আলী।

বইটি প্রথম প্রকাশ হওয়ার পর অসাধারণ অনুবাদের জন্য উপমহাদেশের পাঠকদের মধ্যে তুমুল আলোড়ন তুলে।  বাংলাভাষার মহান এই কবি যে ফার্সি ভাষায়ও সিদ্ধহস্ত ছিলেন তার প্রমানও দিয়েছেন।  এরপর বহু বছর হলো পাঠকদের প্রথম পছন্দের এই বই পাঠকদের কাছ থেকে প্রায় হারিয়ে যায়।  কিন্তু অমর সৃষ্টি কী কখনো হারিয়ে যায় না হারিয়ে যেতে পারে? দীর্ঘ ৮৫ বছর পর সেটাই প্রমান হলো।

সম্প্রতি চ্যানেল আই- এর উদ্যোগে লায়নস ক্লাব অব ঢাকা অনন্ত- এর সৌজন্যে সম্পূর্ণ নতুন ভাবে প্রকাশ হলো জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম অনুবাদিত অমর গ্রন্হ রুবাইয়াৎ-ই ওমর খৈয়াম।  এটি বাংলাদেশে প্রথম মুদ্রন।

৯ নভেম্বর চ্যানেল আই-এর স্টুডিওতে বইটির প্রকাশনা অনুষ্ঠান হয়।  এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান।  রুবায়াৎ-ই ওমর খৈয়াম সম্পর্কে বক্তব্য দেন চ্যানেল আইয়ের পরিচালক মুকিত মজুমদার বাবু, জহির উদ্দিন মাহমুদ মামুন, লায়নস ক্লাব অব ঢাকা অনন্ত- এর প্রেসিডেন্ট ও বইটির প্রকাশক ইনামুল হক খান, জাতীয় কবি নজরুল ইসলামের নাতি কাজী অনির্বান, নাতনি তারা বাংলা টিভির উপস্হাপিকা ও গায়িকা কাজী অনিন্দিতা, খিলখিল কাজী, লায়নস ক্লাবের গভর্নর স্বদেশ রঞ্জন, নজরুল ইন্সটিটিউটের নির্বাহী পরিচালক ইকরাম আহমেদ, পরিচালক কবি রেজাউদ্দিন স্টালিন, বিশিষ্ট রন্ধন তারকা কেকা ফেরদৌসী, বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী শাহিন সামাদ, ফাতেমা তুজ জোহরা পরে প্রধান অতিথির সঙ্গে উপস্হিত সবাই মিলে বইটির মোড়ক উম্মোচনা করেন।

প্রধান অতিথি বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান বলেন, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বাংলা ভাষার অমর ও অবিসংবাদিত এক কবি।  তিনি গোষ্ঠি বা বিশেষ কোনো ধর্মের কবি নন।  তিনি বাঙ্গালীর কবি, বাংলা ভাষার কবি এবং অসাম্প্রদায়িক এক মানুষ ছিলেন।  বাংলা ভাষার বাইরে ফার্সি ভাষায়ও তার সৃজনশীলতার ছাপ ছিল।  রুবায়াৎ-ই ওমর খৈয়াম নজরুলের আগে দু’একজন অনুবাদ করেছেন কিন্তু সে সবের আর অস্তিত্ব নেই।  তাঁর মতো অতো সাবলিল ও üদয়গ্রাহী করে আর কেউ অনুবাদ করতে পারেননি।  যে কারনে নজরুলের এই অনুবাদিত গ্রন্হটি শতশত বছর পরেও পাঠক মহলে সমাদৃত হবে।  চ্যানেল আই বরাবরই শিল্প সংস্কৃতি ও সাহিত্যের বিকাশে নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছে।  রুবাইয়াৎ-ই ওমর খৈয়াম প্রকাশ তারই অংশ।

বক্তব্য শেষে রুবাইয়াৎ-ই ওমর খৈয়াম থেকে আবৃত্তি করেন বিশিষ্ট আবৃত্তি শিল্পী শিমুল মোস্তফা ও অভিনেতা শাহরিয়ার নাজিম জয়।  সব শেষে নজরুলের বিখ্যাত গান মোরা উদ্দাম, মোরা ঝঞ্জার মতো… মোরা প্রকৃতির মতো… গানটি খালি গলায় গেয়ে শোনান বিশিষ্ট নজরুল সংগীত শিল্পী শাহিন সামাদ, ফাতেমা তুজ জোহরা, রওনক আরা, রাহাত আরা গীতি, অনির্বান, অনিন্দিতা ও খিলখিল কাজী।

বইটির আধুনিক পুনরুদ্ধার ও সংরক্ষণ করেছেন কবির নাতি কাজী অনির্বান।  (হিন্দুস্হান পার্ক, কলকাতা) বইটি মুদ্রণ করেছে ইমপ্রেস প্রিন্টিং লিমিটেড।  বইয়ের ব্লক তৈরী করেছেন শ্রী হীরালাল সেন গুপ্ত (কলকাতা)।  একমাত্র পরিবেশক লায়নস ক্লাব অব ঢাকা অনন্ত।