Home এক্সক্লুসিভ তুই অপরাধীরে…

তুই অপরাধীরে…

SHARE
Oparadhi

সৈয়দ ইকবাল ও মোহাম্মদ তারেক: অনেকে বলছেন এটা একটা হুজুগ। হুজুগে মেতেছে সবাই। একজনের দেখাদেখি অন্যজন একটা গান নিয়ে মেতে উঠেছে। একটি ছেলের মুখ থেকে আরেকটি মেয়ের মুখে এলো সেই গান। তারপর শিশু থেকে বুড়োর মুখে ছড়িয়ে গেল। জাতীয় ক্রিকেট দলের ক্রিকেটাররাও গানটি গাইলেন। ব্যস হুজগে মেতে উঠলো সবাই। সবার মুখে একই গান। পাড়া, মহল্লা, হাটে, মাঠে, ঘাটে সর্বত্রই একই সুর। এক পক্ষ অন্য পক্ষকে ঘায়েল করার জন্য গানটির আশ্রয় নিচ্ছে। ‘অপরাধী’ শিরোনামের এই গানটি বাংলার পাশাপাশি হিন্দী ভাষায়ও ইতিমধ্যে রিমেক হয়েছে। ইউটিউবে ঝড় তোলা বাংলা গানের তালিকায় ‘অপরাধী’ই এখন সবার উপরে আছে। অনেকে মনে করছেন ‘অপরাধী’ শিরোনামের এই গানটি আমাদের বাংলা গানের জগতে নতুন এক মাত্রা যুক্ত করেছে।

অপরাধী এই গানের ¯্রষ্টা একজন তরুণ সংগীত শিল্পী। তার নাম আরমান আলিফ। নেত্রকোনার ছেলে। কলেজে পড়ে। ছোটবেলা থেকেই সংগীতের প্রতি তার অনেক ঝোক। একটি মেয়েকে ভালোবাসতো। মূলত তাকে ঘিরেই ‘অপরাধী’ শিরোনামের গানটি লিখে ফেলে। এক আড্ডায় গানটি লিখতে সময় লেগেছিল মাত্র ৩০ মিনিট। গান লিখেই গিটার বাজিয়ে তা গেয়ে ফেলেন আরমান আলিফ। এক বন্ধুর মোবাইলে গানটি ধারণ করা হয় এবং অনেকটা শখের বসে গানটি ফেসবুকে ছেড়ে দেওয়া হয়। সঙ্গে সঙ্গে শ্রোতাদের কাছ থেকে ব্যাপক সাড়া পেতে থাকে আরমান। ঈগল মিউজিক কর্তৃপক্ষের নজরে আসে বিষয়টি। ঈগল মিউজিক নতুন করে আরমানের গানটি রেকর্ড করে। একপর্যায়ে এই গানের মিউজিক ভিডিও ছেড়ে দেওয়া হয় ইউটিউবে। ব্যস গানটি নিয়ে একের পর এক ঘটতে থাকে নতুন ঘটনা। আরমানের গানটিতে একটি মেয়েকে অপরাধী ভাবা হয়েছিল। প্রেমে প্রত্যাখ্যাত এক তরুণের মনের কষ্ট ফুটে উঠেছে আরমানের গানে। আরমানের গান শুনে টুম্পা খান নামে একজন তরুণী গানটির ভাষা বদলে দিয়ে নতুন করে গানটি গেয়ে ফেসবুকে ছেড়ে দেয়। আরমানের গানে অপরাধী বলা হয়েছে প্রেমিকাকে। আর টুম্পার গানে অপরাধী বলা হয়েছে প্রেমিককে। ব্যস ‘অপরাধী’ শিরোনামের এই গানটি নিয়ে ব্যাপক সাড়া পড়ে যায়। এক পর্যায়ে জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের নেতৃত্বে ভারতের দেরাদুনে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা যখন আরমান আলিফের গানটি গেয়ে তা ফেসবুকে ছেড়ে দেন তখন বিষয়টি আরও গুরুত্বপুর্ণ হয়ে ওঠে। আরমানের গাওয়া গানটি বর্তমানে ইউটিউবে শোনা বাংলা গানের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ স্থানে রয়েছে। বাংলা ভাষার বাইরে হিন্দী ভাষায়ও গানটি রিমেক হয়েছে। কলকাতায় নতুন করে এর মিউজিক ভিডিও হয়েছে। বাংলাদেশে একটি শিশুর কণ্ঠেও গানটি ব্যাপক প্রচার পেয়েছে। পরিস্থিতি এমন দাঁড়িয়েছে যে এক পক্ষ অন্য পক্ষকে ‘অপরাধী’ ভেবে গানটি ব্যবহার করছেন। মাকে বৃদ্ধাশ্রমে রাখা যে অপরাধ সেই ভাবনাও এই গানটিতে যুক্ত হয়েছে। বিশ্বকাপ ফুটবলে জনপ্রিয় তারকাদের ব্যর্থতাকে ঘিরেও গানটি গাওয়া হয়েছে। আর্জেন্টিনার বিশ্বখ্যাত ফুটবলার মেসিকেও ‘অপরাধী’ ভেবে বাংলাদেশের এক তরুণী নতুন করে গানটি গেয়েছেন। ফলে ‘অপরাধী’ শিরোনামের এই গানটি যেমন আবেগ ছুয়েছে সবার তেমনি আমাদের সমাজ জীবনে নানা ধরনের অসঙ্গতির কথাও তুলে ধরছে। প্রথমে গানটির শিরোনাম দেওয়া হয়েছিল ‘মাইয়ারে’। পরে শিরোনাম পাল্টে ‘অপরাধী’ শব্দটি যুক্ত করা হয়। আরমান নিজেও ভাবতে পারেনি অপরাধী শিরোনামের এই গানটি এতো সাড়া ফেলবে। এজন্য অবশ্য জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছে আরমান। তার সহজ সরল মন্তব্যÑ একটি গান যখন দেশের বীর ক্রিকেটারদের কণ্ঠে ধ্বনিত হয় তখন বুঝতে হবে গানটি কতটা গুরুত্ব পেয়েছে। মূলত সাকিব আল হাসানের নেতৃত্বে জাতীয় ক্রিকেট দলের ক্রিকেটাররা গানটি গাওয়ার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তা বিদ্যুৎ গতিতে ভাইরাল হয়ে যায়। সাকিব আল হাসান ভারতের দেরাদুনে আফগানিস্তানের সঙ্গে ৩ ম্যাচের টি-২০ খেলতে গিয়ে আড্ডারছলে সতীর্থদের নিয়ে আরমানের এই গানটি গিয়েছিলেন। কিন্তু দেরাদুনে আফগানিস্তানের সঙ্গে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল হোয়াইট ওয়াশ হয়। ফলে সাকিব আল হাসানই আবার গানটির শিরোনাম হন। সাকিবকে ‘অপরাধী’ ভেবে এক তরুণী গানটির নতুন সংস্করণ ফেসবুকে ছেড়ে দেন। ফলে ‘অপরাধী’ শিরোনামের এই গানটি ব্যাপক আলোচিত হওয়ার পাশাপাশি সমালোচিতও হতে শুরু করে। প্রশ্ন উঠেছে ‘অপরাধী’ শিরোনামের এই গানটি এতো জনপ্রিয়তা পাবার কারণ কি? গানটির ভাষা খুবই সাদা মাটা। সহজবোধ্য ভাষায় গানটি লিখেছেন আরমান আলিফ। তিনিই এর একটা ব্যাখ্যা দিলেনÑ ‘গানটির ভাষা খুবই সহজ সরল। গানটির মূল বক্তব্য প্রেম। প্রতিটি মানুষের জীবনে কখনও না কখনও প্রেম আসে এবং প্রেমে ব্যর্থতার ঘটনাও অনেক। অপরাধী গানটিতে প্রেমে ব্যর্থতার পাশাপাশি প্রেমিক-প্রেমিকার প্রতারণার বিষয়টি গুরুত্ব পেয়েছে। তাই গানটি সবার মাঝে আলোড়ন তুলেছে। আরমান আলিফের মন্তব্যের সত্যতা ফুটে উঠেছে গানটির প্রকাশ ভঙ্গির মাধ্যমে। আরমান গানটি গাওয়ার সময় প্রেমিকাকে অপরাধী ভেবেছেন। যেমন আরমান গাইছেন “ও মাইয়ারে, মাইয়ারে তুই অপরাধীরে আমার যতেœ গড়া ভালোবাসা দে ফিরাইয়া দে। আমার অনুভ‚তির সাথে খেলার অধিকার দিলো কে? মাইয়া তুই বড় অপরাধী, তোর ক্ষমা নাইরে…”

Tumpa-Khanঅন্যদিকে টুম্পা খান গানটিতে ভাষা বদলে দিয়েছেন। মাইয়ারে’র জায়গায় ‘পোলা’ শব্দটি জুড়ে দিয়েছেন। তিনি গেয়েছেন এভাবেÑ “ও পোলারে, পোলারে তুই অপরাধীরে আমার যতেœ গড়া ভালোবাসা দে ফিরাইয়া দে…”

গানের একটি বিশেষ অংশে আরমান দোষারোপ করেছেন তার প্রেমিকাকে। টুম্পা খান দোষারোপ করেছেন প্রেমিককে। যেমন আরমান গেয়েছেনÑ “তোরে স্কুল পালাইয়া একটা নজর দেখিতে যাইতাম, আমি টিফিনের সব টাকা জমায়া আবেগ কিনিতাম। হায়রে রাইতের পর রাইত জাইগা গান লিখিতাম, আমার সেই গানেরও সুরে তোরে খুজিয়া লইতাম।”

অন্যদিকে টুম্পা খান গেয়েছেন এভাবেÑ “তোর জন্য হাত পোড়াইয়া রান্না করিতাম। টিউশনীর টাকা জমায়া আবেগ কিনিতাম, রাইতের পর রাইত জাগিয়া গান শুনাইতাম…”

অভিজ্ঞ মহলের মতে আরমান আলিফের গানটিতে ভালোবাসার পাশাপাশি প্রতারণার কথা থাকায় জনপ্রিয়তা পেয়েছে। এই একটি গানের মাধ্যমে প্রায় জগৎ জোড়া খ্যাতি পেয়েছেন আরমান আলিফ। আর অখ্যাত কণ্ঠশিল্পী টুম্পা খান তো এখন ব্যাপক জনপ্রিয় সংগীত তারকা। আরমান আলিফ এখনও চলচ্চিত্রে গান গাওয়ার সুযোগ না পেলেও টুম্পা খান ইতিমধ্যে একটি ছবিতে গানে কণ্ঠ দিয়েছেন। ছবিতে কবীর বকুলের লেখা তার গানে ঠোট মিলাবেন জনপ্রিয় চিত্র নায়িকা মাহিয়া মাহী।

লেখার শুরুতে হুজগের কথা বলা হয়েছিল। আমাদের গানের জগতে এখন চলছে ‘অপরাধী’ ভাবনার হুজগে সময়। গানটির অনুকরণে যে যাকে পাচ্ছে অপরাধী বলে ফেসবুকে ট্যাগ করছে। বিশ্বফুটবলের আসর পর্যন্ত গড়িয়েছে এই গান। এক তরুণী গায়িকা মেসি আর নেইমারকে অপরাধী ভেবে গানটির নতুন সংস্করণ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দিয়েছেন। গানটির প্রথম চার লাইন এরকমÑ “ও মেসি ও নেইমার তুই অপরাধীরে। আমার স্বপ্নে দেখা সোনার কাপটি দে ফিরাইয়া দে। তোদের জন্য রাইত জাইগা খেলা দেখিলাম। ড্র কইর‌্যা সবার কাছে কানমলা খাইলাম…”

ভারতের দেরাদুনে আফগানিস্তানের সঙ্গে টি-২০ সিরিজে বাংলাদেশ হোয়াইট ওয়াশ হওয়ার পর সাকিব আল হাসানকে ঘিরে ‘অপরাধী’ শিরোনামে একটি গানও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। গানটির ভাষা এরকমÑ “একটা সময় তোরে দেশের রতœ ভাবিতাম। তোর বিশ্বসেরা উপাধিতে গর্বিত হইতাম। তোর হাসিটাকে অনেক সরল হাসি ভাবিতাম। তুই খেলায় হারলে আমরা অনেক কষ্ট পাইতাম। তোর অভিনয়ে মুগ্ধ হয়ে নেতা করলাম ভাই। এখন তোর মনেতে রাজনীতি, ক্রিকেটটা আর নাই। তোরে আদর কইর‌্যা ছাইর‌্যা দিলাম টাকা কামাইতে। সেই টাকা দিয়ারে তুই নেতা হবিরে। ও সাকিব্বা রে সাকিব্বা তুই অপরাধীরে দেশের দেয়া এতকিছু দে ফিরাইয়া দে…”

তবে এটা সত্য, আরমান আলিফের ‘অপরাধী’ গানটি আমাদের গানের জগতে একটা নতুন ভাবনার জন্ম দিয়েছে। সেই সঙ্গে আমাদের পারিবারিক ও সামাজিক ভাবনার ক্ষেত্রেও ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। অপরাধী গানটির অনুকরণে ‘মাকে’ নিয়েও একটি গান সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। গানের ভাষা অনেকটা এরকমÑ “একটা সময় তুমি আমার জগৎ ছিলে মা। আমার সেই জগতে অন্য কারও জায়গা ছিলনা। তোমার কোলের মাঝে আমার সুখের শেষ তো ছিল না। তোমার মুখের হাসি আমার বুকের সাহস দিল মা। আমার নিজের সুখের জন্য তোমায় কষ্ট দিলাম মা। তোমায় বোঝা ভেবে এই বাড়িতে আর রাখলাম না। আমার নিজের স্বার্থে বৃদ্ধাশ্রমে রেখেছি তোমারে। আজ কতো শতো পাপ ধরেছে এবার আমারে। ও মা মাগো আমি অপরাধী গো। তোমার যতেœ গড়া ভালোবাসা বুঝিনি হায় গো…”

একটা বিষয় ভাবতে খুব ভালো লাগছে এই ভেবে যে মাকে ঘিরেও অপরাধী ভাবনাটা শুরু হয়েছে আমাদের মাঝে। মাকে নিয়ে লেখা গানটি শোনার পর নিশ্চয়ই আমরা কেউ মাকে অথবা বাবাকে আর বৃদ্ধাশ্রমে পাঠাতে চাইব না। পাশাপাশি ভালোবাসায় আর প্রতারণা থাকবে না এটাই হোক সকলের প্রত্যাশা। ভালোবাসার জয় অনিবার্য…

প্রেম প্রতারণার প্রতি সবার আগ্রহ বেশী-আরমান আলিফ

Arman-alifঅপরাধী গানটির মাধ্যমে তরুণ মনের ভালোবাসার কথাই প্রকাশ করেছে নেত্রকোনার তরুণ গীতিকার ও কণ্ঠশিল্পী আরমান আলিফ। গানটি তার প্রেমিকার উদ্দেশে লিখেছে। কিন্তু প্রেমিকার প্রতিক্রিয়া পায়নি আজও। প্রসঙ্গ তুলতেই বলল, গানটি এত জনপ্রিয়তা পাবে ভাবিনি। প্রেম ও প্রতারণার বিষয়টিতে সব মানুষের ব্যাপক আগ্রহ থাকে। সে কারণে আমার ধারণা ‘অপরাধী’ গানটি ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। এজন্য ঈগল মিউজিকের কাছে অনেক কৃতজ্ঞ আরমান। আয়না ও ফানুস নামে দুটি গান লিখেছে আরমান। অচিরেই দুটি গানের মিউজিক ভিডিও বাজারে আসবে বলে জানাল। জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে আরমান বলেছে, যখন ভাবি আমাদের ক্রিকেটদলের প্রিয় খেলোয়াড়রা আমার গানটি গেয়েছেন তখন আনন্দ আবেগ ধরে রাখতে পারি না। একটি ছোট্ট মেয়ে ‘অপরাধী’ গানটি গেয়েছে। তার প্রতি অনেক শুভ কামনা জানিয়েছে আরমান আলিফ।