Home প্রতিবেদন এক ছাদের নীচে চার সমাধান!

এক ছাদের নীচে চার সমাধান!

SHARE
Well-food

সৈয়দ ইকবাল
রুদ্র ও নীলিমার আজ তৃতীয় বিবাহ বার্ষিকী। ইচ্ছে আছে সারাদিন শহরের বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে শপিং করে ভালো কোনো রেস্টুরেন্টে খাবে। তাদের বাসা নগরীর উত্তরায়। নীলিমা আইসক্রীম আর রুদ্র কফি খেতে খুব পছন্দ করেন। কিন্তু মুশকিল হলো অনেক রেস্টুরেন্টেই ভারী খাবার ঠিকই পাওয়া যায় কিন্তু আইসক্রীমটা ডেজার্ট হিসেবে পাওয়া মুশকিল। আর রুদ্রর জন্য কফি খেতে হলেও যেতে হবে অন্য আরেকটি রেস্টুরেন্টে। একেকবার একেক রেস্টুরেন্ট আর কফি হাউজ-এ দৌঁড়াদৌঁড়ি ভালো লাগে কারোর? তার উপর দিনটি যদি হয় স্পেশাল কোনো দিন। সব মিলিয়ে তৃতীয় বিবাহ বার্ষিকীতে কোন রেস্টুরেন্টে খেতে যাবে সেটা নিয়েই চিন্তায় অস্থির দু’জন। সারাদিন ঘোরাঘুরির পর যখন উত্তরার মাসকাট প্লাজা পার হয়ে খানিকটা সামনে এগিয়ে যায় তখনই দেখতে পায় ওয়েল ফুড-এর বিশাল একটি সাইনবোর্ড। যেখানে লেখা আছে ওয়েল ফুড বেকারি, সুইটস, রেস্টুরেন্ট। আরো লেখা দেখলো রিও কফি। রুদ্রর আর বুঝতে বাকি রইলো না এক ছাদের নীচে যে চারটি খাবারের সন্ধান মিলবে। তাই আর দেরি না করে রুদ্র নীলিমাকে নিয়ে চলে গেলেন ওয়েল ফুড-এর বিশাল এই খাবারের রাজ্যে।
হ্যাঁ, পাঠক এটা সত্যিই এক অসাধারণ উদ্যোগ। বিশেষ করে ভোজন রসিকদের জন্য বেশ আনন্দদায়কই বটে। করণ এক ছাদের নীচে পাওয়া যাচ্ছে রেস্টুরেন্ট, কফি হাউজ, আইসক্রীম ও বেকারির সব আইটেম। রয়েছে মিষ্টিও। ওয়েল ফুড-এর এই এক সাথে থাকা চারটি আউটলেট এর কোনটিতে কী ধরনের খাবার রয়েছে তা নিয়ে এই আয়োজন।
ওয়েল গ্রæপ-এর একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান ওয়েল ফুড। ১৯৭১ সাল থেকে ওয়েল গ্রæপ দেশে সুনামের সাথে ব্যবসা করে আসছে। বর্তমানে ওয়েল গ্রæপ-এর ২১ ধরনের ব্যবসা রয়েছে। যার মধ্যে ওয়েল ফুড একটি। ওয়েল ফুড বন্দর নগরী চট্টগ্রামে একটি মাত্র আউটলেট দিয়ে যাত্রা শুরু করে। বর্তমানে চট্টগ্রামেই রয়েছে ২৪টি ওয়েল ফুডের আউটলেট। ২০১৩ সাল থেকে ওয়েল ফুড ঢাকায় তাদের ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে। ঢাকাতেই রয়েছে তাদের ২৫টি আউটলেট। অন্যদিকে সিলেটে রয়েছে ৪টি শোরুম। ওয়েল ফুড এর রেস্টুরেন্ট চালু হয়েছে সম্প্রতি। তারই ধারাবাহিকতায় ঢাকার উত্তরায় ওয়েল ফুড রেস্টুরেন্টের আউটলেট রয়েছে দুটি। আর একই ছাদের নীচে চারটি ফুড আইটেম-এর স্টোর করা তাদের ব্যবসায় এক নতুন দিগন্ত।
ওয়েল ফুড রেস্টুরেন্ট
উত্তরার মাসকাট প্লাজা থেকে সোনারগাঁও জনপথ রোডের উপর অবস্থিত ওয়েল ফুড এর রেস্টুরেন্ট অংশে রয়েছে সুস্বাদু আর স্বাস্থ্যকর সব খাবার। রেস্টুরেন্টটিতে প্রবেশ করলেই নাগরিক কোলাহল থেকে এর পরিবেশ আপনাকে মুক্তি দেবে অনেকখানি। ছিমছাম পরিপাটি করে সাজানো পরিবেশে বসে আপনি মুহূর্তেই প্রশান্তি লাভ করবেন। রেস্টুরেন্টের একটি অংশে রয়েছে বইয়ের একটি সেলফ। যেখানে রয়েছে প্রিয় লেখকদের সব জনপ্রিয় বই। চাইলে খাবারটা অর্ডার করে অপেক্ষমান সময়ে প্রিয় লেখকের কোনো গল্প, উপন্যাসে কিংবা কবিতার চরনে চোখ রাখতে পারেন। তথ্য প্রযুক্তির যুগে মানুষ যেনো বই থেকে কোনোভাবেই সরে না যান তাই তো ওয়েল ফুড কর্তৃপক্ষের এই আয়োজন। ওয়েল ফুড রেস্টুরেন্টটিতে আপনি পাবেন বার্গার, স্যান্ডুইচ, পাস্তা, ফ্রাইড রাইস, ফ্রেঞ্চ ফ্রাই, চিকেন ফ্রাই, ব্রেস্টেড চিকেন, ফিশ ফিঙ্গার, ভেজিটেবল সালাদ সহ আরো নানান আইটেম। আকর্ষনীয় দামে সেট মেন্যুও পাবেন এখানে। রেস্টুরেন্টটিতে বাচ্চাদের জন্য আলাদাভাবে রয়েছে খাবারের বেশ কয়েকটি আইটেম। যেগুলোতে বাচ্চাদের উপযুক্ত স্বাদ আর তাদের রুচিকে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে। রেস্টুরেন্টটিতে ডেজার্ট আইটেমের ক্ষেত্রে বেশ মজাদার কিছু মেন্যু রয়েছে। ওয়েবেরি ক্রীম, চকো ওভার লোড, চিজি কেক, চিজি কেক নিউইয়র্ক বেকড সহ পাবেন আরো নানান আইটেম। রেস্টুরেন্টটিতে খাবারের দামও রয়েছে হাতের নাগালে।
রিও কফি
ওয়েল ফুড এর রিও কফির অংশে গেলে আপনি কফির গন্ধে কিছুটা হলেও মাতোয়ারা হবেন। অলস বিকেলে এক মগ কফি, হালকা মিউজিক আর একটা প্রিয় কবিতার বই যদি সঙ্গে থাকে তাহলে আর কি কিছু লাগে! বোধকরিনা। রিও কফি হাউজের পরিবেশটাই ঠিক এমন। মজাদার সব টেস্টের কফি পাবেন এখানে। এসপ্রেসো, আমেরিকানো, লং বø্যাক, ক্যাপাচিনো, ড্রাই ক্যাপাচিনো, ক্যাফে লেট, ক্যারামেল ল্যাটে সহ মোট ১৩টি ফ্লেভারের কফি পাবেন এখানে। পরিমিত দাম আর মজার স্বাদের এই কফি একবার পরোখ করতে পারেন।
টুইংগেল প্রিমিয়াম আইসক্রীম
খাবারের পর অনেকেই আইসক্রীম খেতে পছন্দ করেন। এজন্য ওয়েল ফুড রেস্টুরেন্ট থেকে খেয়ে নীচতলায় নামলেই রয়েছে টুইংগেল প্রিমিয়াম আইসক্রীম। এখানে প্রবেশ করলেই নানান রকম আইসক্রীম আপনাকে স্বাগত জানাবে। নিজস্ব উৎপাদনের এই আইসক্রীমগুলো আপনার স্বাদের ধরনটাই পাল্টে দিবে। এখানে পাবেন ক্লিন ফিল ভেনিলা, চকোলেট চিপ কুকি, ম্যাংগো মেডনেস, রিচি রিচ চকোলেট, মিন্টি চকোলেট, স্ট্রবেরি, টুইংগেলস ওয়েফার সহ মোট ১৬টি ফ্লেভারের আইসক্রীম। টুইংগেল প্রিমিয়াম আইসক্রীম এর স্টল নগরীর ধানমন্ডিতেও রয়েছে।
ওয়েল ফুড বেকারী
ফ্রেশ বেকারীর আইটেম পেতে হলে আপনাকে অবশ্যই ওয়েল ফুড এর বেকারীর স্টলে যেতেই হবে। ফ্রেশ ব্রেড, বিস্কুট, কেক এবং মিষ্টির নানান পদ পাবেন বেকারীর অংশে। মিষ্টির আইটেম এর মধ্যে রয়েছে মতিচুর, মিহিদানা লাড্ডু, লাল মোহন, রসগোল্লা, বেবী সুইটস সহ আরো নানান আইটেম। কেক আইটেম-এ রয়েছে চকোলেট, ভ্যানিলা, ফ্রেঞ্চ মাউস, বø্যাক ফরেস্ট, হোয়াইট ফরেস্ট সহ আরো অনেক ধরনের আইটেম। একই ভাবে বিস্কুট ও ব্রেড-এ পাবেন অনেক ধরনের স্বাদ ও ফ্লেভার।
ওয়েল ফুডের এরকম চারটি স্টোর এক সাথে উত্তরার বাইরে ঢাকার ধানমন্ডিতেও রয়েছে।